শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬

সাবেক বার্সেলোনা তারকার জেল

ক্রীড়া ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার ০১:২৭ পিএম

সাবেক বার্সেলোনা তারকার জেল

ঢাকা: ঘটনাটি গত বছরের। তুরস্কের এক নাইটক্লাবে মারামারি করার পর হাসপাতালেও গুলি ছুঁড়েছিলেন বার্সেলোনার তুর্কি ফরোয়ার্ড আরদা তুরান। সেই কাণ্ডের জন্য দুই বছর আট মাসের জেল হয়েছে তার। প্রায় এক বছর ধরে শুনানি চলার পর বুধবার এ রায় জানিয়েছে তুরস্কের আদালত। তবে এখনই জেলে যেতে হচ্ছে না তুরানকে। আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে কোনও ধরণের অপরাধ করলে তখনই জেলেপাঠানো হবে এই  খেলোয়াড়কে।

জেল আরও বেশি হতে পারত। অল্পতেই বেঁচেছেন তিনি। তুরানের বিপক্ষে অভিযোগ ছিল যৌন হয়রানী, হাসপাতালে গুলি ছুঁড়ে জনমনে ভীতি সৃষ্টি করা, অবৈধ অস্ত্র নিজের কাছে রাখা এবং ইচ্ছাকৃতভাবে গায়ক বার্কে সাহিনকে আহত করা। যৌন হয়রানী ছাড়া বাকি সব অভিযোগেই দোষী প্রমাণিত হন তিনি। এ ধরণের অপরাধের আরও বেশি সাজা পেয়ে থাকেন। প্রতিপক্ষের আইনজীবীও সাড়ে ১২ বছরের জেল দেওয়ার আবেদন করেছিলেন।

নাইটক্লাবে গায়ক বার্কে শাহিনের সঙ্গে হাতাহাতির এক পর্যায়ে তাকে মেরে রীতিমতো তার নাক ভেঙে দিয়েছিলেন তুরান। তাতেও শান্ত হননি। সাহিন যখন হাসপাতালে যান তার পিছু নেন তিনি। হাসপাতালে গিয়ে শাহিন স্ত্রী ওজলেম আদা সাহিনকে উদ্দেশ্য করে গুলি ছোঁড়েন। আর এ ধরণের কাণ্ড নতুন নয় তার জন্য। এর আগেও হাতাহাতি, সতীর্থ কিংবা ম্যানেজারদের সাথে বাগবিতণ্ডার কারণে একাধিকবার শিরোনাম হয়েছেন। অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের হয়ে বার্সেলোনার বিপক্ষে কোপা দেল রে'র একটি ম্যাচে লাইন্সম্যানের সিদ্ধান্ত পছন্দ না হওয়ায় বুট ছুঁড়ে মেরেছিলেন তুরান। বর্তমানে বার্সেলোনা থেকে ধারে তুরষ্কের ক্লাব বাসাকসেহিরে রয়েছেন তুরান। আদালতে কিছুটা ছার মিললেও তুরস্কের ক্লাবটি অবশ্য সদয় হচ্ছে না তার ওপর। 

সোনালীনিউজ/আরআইবি/এমএএইচ