বুধবার, ০৮ এপ্রিল, ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬

সালমান শাহর লিখে যাওয়া চিরকুট উদ্ধার

বিনোদন ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, সোমবার ০৩:৪২ পিএম

সালমান শাহর লিখে যাওয়া চিরকুট উদ্ধার

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা : স্ত্রী সামিরা এবং শাবনূরই প্রচণ্ড ভালোবাসতেন প্রয়াত চিত্রনায়ক সালমান শাহ। এ কারণে শাবনূরকেও বিয়ে করে সংসার করতে চেয়েছিলেন সালমান। কিন্তু সামিরা তাতে রাজি হননি। এ  তথ্য উঠে এসেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) -এর তদন্ত প্রতিবেদনে।

সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় প্রেস ব্রিফিংয়ে এ সব তথ্য জানান পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার। পিআইবি প্রধান জানান, সালমানের বাসায় রান্না-বান্নার কাজ করা মনোয়ারা বেগমের জবানবন্দি থেকে এ তথ্য জানা গেছে। 

মনোয়ারার জবানবন্দির বরাত দিয়ে পিবিআই প্রধান বলেন, সতীনের সংসার করতে রাজি ছিলেন না সালমানের স্ত্রী সামিরা। শাবনূরকে নিয়ে সালমান-সামিরার নিয়মিত ঝগড়া হতো।

ব্রিফিংয়ে বলা হয়, দ্বন্দের কারণে পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করেন সালমান শাহ। চিত্রনায়ক সালমান শাহর রহস্যজনক চলে যাওয়া পর দায়ের করা মামলায় এখন পর্যন্ত কোনও তদন্তকারী সংস্থার প্রতিবেদন গ্রহণ করেনি তার পরিবার। প্রথমে থানা পুলিশ পরে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) মামলাটি তদন্ত করে। সেটি প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পর সালমান শাহ স্ব-ইচ্ছায় নাকি অন্যভাবে চলে তা নিশ্চিত হতে আদালত বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি করে। সেটাও প্রত্যাখ্যাত হয়। 

এদিকে, ২৩ বছর আগের লেখা সালমান শাহর সুইসাইড নোটটি আবারও তুলে ধরেন পিবিআই।

পিবিআইর প্রধান বনজ কুমার মজুমদার এসব তথ্য জানান, সেই সময়ের একটি সুইসাইডাল নোট উদ্ধার করা হয়। আমরা সেটা নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছি। হ্যান্ড রাইটিং এক্সপার্টকে আমরা সুইসাইড নোটটি দেখিয়েছি। উনি হাতের লেখা দেখে-তা সালমান শাহর বলে চিহ্নিত করেছেন।

পিবিআই প্রধান আরো বলেন, ১০ সাক্ষীর ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি পর্যালোচনা করে। একজন সাক্ষীকে অন্তত ১০ বার ডেকে নিয়ে এসেছি। কারণ সেই সময়ের স্মৃতি কতটুকু তাদের মনে আছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনসহ সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকসহ সকলের মতামত বিশ্লেষণ করে প্রমাণ পাই সালমান শাহ সুইসাইড করেন। 

সুইসাইড নোটে যা লেখা ছিল: আমি চৌঃ মোঃ শাহরিয়ার। পিতা কমরূদ্দীন আহমেহ চৌধুরী। ১৪৬/৫ গ্রীনরোড ঢাকা#১২১৫ ওরফে শালমান শাহ। এই মর্মে অঙ্গিকার করছি যে, আজ অথবা আজকের পর যে কোন দিন পৃথিবী ছেড়ে গেলে তার জন্য কেউ দায়ী থাকবে না। স্বেচ্ছায়-স্বজ্ঞানে-সুস্থ মস্তিস্কে আমি সুইসাইট করছি।

সোনালীনিউজ/এমএএইচ