বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯, ৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

সিনিয়রদের যেটুকু সম্মান তারা দেখিয়েছে, তাতে আমি খুশি

বিনোদন প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৫ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার ১২:২৭ পিএম

সিনিয়রদের যেটুকু সম্মান তারা দেখিয়েছে, তাতে আমি খুশি

ঢাকা : আগামী ২৫ অক্টোবর আসন্ন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ নির্বাচনকে ঘিরে উৎসবের কমতি নেই। এবার প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন  চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন।

তিন সদস্যের আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রযোজক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম খান। বাকি দুজন সদস্য হলেন পরিচালক সোহানুর রহমান ও রশিদুল আমিন।

‘বিগত দিন গুলোতে যেসব কাজ হয়নি বর্তমান কমিটি তা করেছেন। আমাদের শিল্পীরা যারা মারা গেছে তাদের বেশির ভাগ শিল্পীকে সবাই ভুলে গেছে, ওরা তাদের নামে কোরআন খতম, মিলাদ দোয়ার আয়োজন করেছে। কেউ অসুখ-বিসুখ হলে মিশা-জায়েদ পাগলের মত ছুটে যায়। মিশা-জায়েদ গত দুই বছর অনেক ভালো কাজ করেছে।

সিনিয়রদের যেটুকু সম্মান তারা দেখিয়েছে, তাতে আমি খুশি, আমরা তো তার-ই কাঙ্গাল। সেটাই তারা দিয়েছে, দেখিয়েছে। কারো পক্ষ না নিয়ে বলব, সবাই মিলে মিশে আসুন চলচ্চিত্রকে বাঁচানোর চেষ্টা করি।’

কথাগুলো বলেন এক সময়ের বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী আনজুমান শিল্পী। যিনি ২০০০ সাল পর্যন্ত প্রায় ৩৬টি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। অমর নায়ক সালমান শাহর সঙ্গেও রয়েছে তার জনপ্রিয় সিনেমা ।

তিনি আরও বলেন,‘আমরা শিল্পী সবাই দিন শেষ একটা ঘরের মানুষ। শিল্পী সমিতি একটা অলাভজনক সংগঠন। এই নির্বাচন নিয়ে কেনো এতো সমালোচনা বা কাদা ছোড়া ছুড়ি হচ্ছে বুঝি না।’

মিশা- জায়েদ প্যানেলের কাজের প্রশংসা করে শিল্পী আরও বলেন, কেউ যদি মনে করেন যে মিশা-জায়েদ কমিটি সঠিক ভাবে শিল্পী সমিতির উন্নয়নের কাজে কোনো ভূমিকা রাখেনি। যারা মনে করেন যে এই প্যানেল খারাপ কাজ করেছে তাহলে আপনারা নিজেরা একটা প্যানেল করে বিজয়ী হয়ে সমিতির উন্নয়ন করে দেখান।

যারা মিশা- যায়েদ প্যানেলের বিরুদ্ধে কথা বলছেন তাদের বিরুদ্ধেও কথা বলেছেন শিল্পী। কিছুটা কটাক্ষ করেই সাবেক এ অভিনেত্রী বলেন, ‘আমি বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ দেখেছি যে সবাই বলছেন নির্বাচনে অংশ নিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ব্যস্ততার জন্য নির্বাচনে অংশ নিতে পারিনি। আপনাদের যদি এতোই ব্যস্ততা থাকে তাহলে সমিতি নিয়ে এতো কথা বলছেন কেন?

হয় আপনার সমিতির হাল ধরেন না হয় যারা ধরতে চাইছেন তাদেরকে ধরতে দিন। নিজেরাও পারছেন না যারা কাজ করছেন তাদেরও করতে দিচ্ছেন না। এটা তো হতে পারে না। কারণ শিল্পীরা তো এতোটা বোকা না যে ভাই একটা ভোট দেন আর দিয়ে দিলো ভালো মন্দ না বুঝে।’

নতুন নেতৃত্বে যারা আসবেন তাদের কাছে প্রত্যাশ ব্যক্ত করে শিল্পী বলেন, ‘যারা নির্বাচিত হবে তাদের কাছে আমার প্রত্যাশা যে সমিতির আরো উন্নয়ন হোক। আমাদের সিনেমার সুদিন ফিরে আসুক সেটাই প্রত্যাশা। আর যারা নির্বাচন করছেন সবার জন্য আমার পক্ষ থেকে শুভ কামনা রইল।’

সোনালীনিউজ/এমটিআই