রবিবার, ৩১ মে, ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

সুবর্ণচরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ 

নোয়াখালী প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ মে ২০২০, শনিবার ০৩:২৩ পিএম

সুবর্ণচরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ 

নোয়াখালী: নোয়াখালী সুবর্ণচরের চরবাটার চর মজিদ গ্রামে পুকুর থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহম্পতিবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দফায় দফায় বালু উত্তোলনের করেন বাবেক এক ইউপি মহিলা মেম্বার।

কাজী সিরাজুল ইসলামের স্ত্রীর ভাষ্য, দশ পনের বছর আগে আমার স্বামী জায়গাটি খরিদ করেন, সে সময় এই জায়গা জঙ্গলে ভরাট ছিলো আমার স্বামী একজন লোককে দায়িত্ব দিয়ে সবকিছু পরিস্কার করে বসবাস করে আসছি। এরপর থেকে আমি সন্তানদের নিয়ে বসবাস করতেছি। এখন সাবেক মহিলা মেম্বার আলেয়া বেগম চরাঞ্চল থেকে বাহিনী নিয়ে এসে রাতের জেলে দিয়ে আমার পুকুরের মাছ ধরে নিয়ে গেছে। 

এসময় তারা আমার সাথে খুবই খারাপ আচরণ করেন। কাজী সিরাজুল ইসলামের ভাষ্য, বছর পনের আগে চর মজিদ গ্রামে ২.৭০শতাংশ জায়গা খরিদ করেন। জায়গা খরিদের পর থেকে বাড়ি ও পুকুর খনন করে তা ভোগ দখল করে আসছেন। সম্প্রতি সাবেক মহিলা মেম্বার আলেয়া বেগম একটি দলিল দেখিয়ে দলবল নিয়ে অবৈধভাবে দখল করার চেষ্টা করেন এবং পুকুরের বালু উত্তোলন করে নিয়ে যান। এতে আমার স্ত্রী বাঁধা দিলে তার সাথে খারাপ আচরণ করেন।

অভিযুক্ত মহিলা মেম্বার আলেয়া বেগমের ছোট ছেলে বলেন, আমার মা মুল মালিকের কাছ থেকে এই জায়গা খরিদ করেন, তারা আমাদের কাছে বিক্রি ও করেন। সিরাজকে উনার কাগজ পত্র ও দলিল নিয়ে একাধিকবার থানায় বসার জন্য বললে তিনি যাননি। যখনই তাদেরকে ডাকা হয় তখন উনারা বিভিন্ন অযুহাতে বসেন না এখন আমাদের প্রয়োজনে আমার মা কাজ করাচ্ছেন। জায়গা রক্ষণাবেক্ষণকারী ফয়েজ আহম্মদ জানান, আমি দশ বছর যাবত এই জায়গা দেখাশুনা করতেছি ঐসময় কাউকে আসতে দেখিনি এখন মহিলা মেম্বার দাবি করছেন উনার জায়গা তিনি কিভাবে মালিক হলেন তা তিনি জানেন না।

সুবর্ণচর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো.আরিফুর রহমান বলেন, অভিযোগ পাওয়া মাত্র ঘটনাস্থল গিয়ে বালু উত্তোলন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

সোনালীনিউজ/এফকে/এসআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue