বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬

সেন্টমার্টিনে আটকা পড়েছেন চার শতাধিক পর্যটক

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৮ নভেম্বর ২০১৯, শুক্রবার ০২:১৩ পিএম

সেন্টমার্টিনে আটকা পড়েছেন চার শতাধিক পর্যটক

কক্সবাজার : ঘুর্ণিঝড় ‘বুলবুলের’ প্রভাবে বৈরী আবহাওয়ার কারণে শুক্রবার সকাল থেকে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত কোনো ধরনের জাহাজ ও অন্য কোনো নৌযান চলাচল করতে পারবে না।

বৃহস্পতিবার বিকেলে এডিসি (রাজস্ব) মোহাম্মদ আশরাফুল আফসার স্বাক্ষরিত নোটিশে এ নির্দেশ দেয়া হয়।  পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে বিশেষ ব্যবস্থায় আটকা পড়া চার শতাধিক পর্যটকদের ফিরিয়ে আনা হবে।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায়, সাগরে ৪ নম্বর সতর্ক সংকেত জারি করা হয়েছে।

সেন্টমার্টিন দ্বীপের হোটেল ব্যবসায়ী এম জুবায়ের জানান, বৈরী আবহাওয়ার কারণে ভ্রমণে আসা চার শতাধিক পর্যটক আটকা পড়েছেন। হোটেল নীল দিগন্তে ১২০ জন, বাগানবাড়ি ৬৪ জন, সমুদ্রকুটির ৩০ জন, অন্যান্য হোটেল-মোটেল ও কটেজে দুই শতাধিক রয়েছেন।

স্থানীয় নুর মোহাম্মদ জানান, বৃহস্পতিবার ভ্রমণে আসা পর্যটকরা টেকনাফ ফিরে যেতে পারেননি। হঠাৎ বৈরী আবহাওয়ায় প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞার কারণে তারা আটকে গেছেন।

টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌ-রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারী সিন্দাবাদের ব্যবস্থাপক শাহ আলম জানান, শুক্রবার জাহাজ বন্ধ রাখার নির্দেশনা পেয়েছি।  তবে আবহাওয়া পরিস্থিতি ভালো হলে জাহাজ চলাচল শুরু হবে।

জাহাজ চলাচল বন্ধ

সেন্টমার্টিন পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আটকা পড়া পর্যটকরা দ্বীপের ১০৬টি হোটেল-মোটেল ও কটেজে অবস্থান করছেন। তাদের প্রশাসনিকভাবে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে।  পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পর্যটকরা গন্তব্যে ফিরতে পারবেন।

সেন্টমার্টিন ইউপি চেয়ারম্যান নুর আহাম্মদ জানান, ৩ নম্বর সংকেতের কারণে জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রসাশন।  আবহাওয়া পরিস্থিতি ভালো হলে জাহাজ চলাচল শুরু হবে।

সোনালীনিউজ/এএস

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue