রবিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬

স্ত্রীকে অচেতন করে শ্যালিকাকে ধর্ষণের পর হত্যা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২০ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার ০৩:৩৫ পিএম

স্ত্রীকে অচেতন করে শ্যালিকাকে ধর্ষণের পর হত্যা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদরের শালগাঁও এলাকায় তামান্না আক্তার (১৫) নামে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের করার পর শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে দুলাভাইয়ের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) দুপুর পৌনে ১টার দিকে উপজেলার নাটাই ইউনিয়নের শালগাঁও নামক গ্রাম থেকে তামান্নার লাশ উদ্ধার করেন পুলিশ।

তামান্না ওই গ্রামের নোয়াব মিয়ার মেয়ে এবং একই গ্রামের একটি বিদ্যালয় নবম শ্রেণির অধ্যয়নরত ছাত্রী ছিল। এ দিকে ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত দুলাভাই নাঈম ইসলাম (২৭) পলাতক রয়েছেন বলে পুলিশ জানায়।

তামান্নার বড় বোন স্মৃতি আক্তার সাংবাদিকদের জানান, নাঈম তার বাবা বসু মিয়ার সঙ্গে জেলা শহরের সড়ক বাজারে নৈশপ্রহরীর কাজ করেন। গত সোমবার তামান্নাকে খবর দিয়ে বাড়িতে আনেন নাঈম। বুধবার রাতে বসু মিয়া কাজে গেলেও নাঈম যাননি। স্মৃতি কাজে না যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে নাঈম জানান তিনি সকালে ঢাকা থেকে তার মাকে আনতে যাবেন।

তিনি আরও জানান, রাত সাড়ে ৯টার দিকে নাঈম আমের জুস নিয়ে তার মেয়ে জান্নাতকে খাওয়ান। জুস খেয়ে জান্নাত ঘুমিয়ে পড়ে। এরপর তামান্নাকেও জুস খেতে বললে তামান্না জুস না খাওয়ায় স্মৃতি সেই জুস খান। জুস খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্মৃতি অচেতন হয়ে পড়েন। সকালে ঘুম থেকে উঠে তামান্নাকে ডাক দিলেও সে কোনো সাড়া দেয়নি। এরপর তামান্নার কাছে গিয়ে দেখেন তার শরীর রক্তাক্ত।

এ বিষয়ে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) আতিকুর রহমান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue