বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৯, ৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

স্ত্রীকে হত্যার পর অ্যাম্বুলেন্সে লাশ শ্বশুরবাড়ি পাঠালেন স্বামী

গাজীপুর প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ৩০ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার ১১:৩০ এএম

স্ত্রীকে হত্যার পর অ্যাম্বুলেন্সে লাশ শ্বশুরবাড়ি পাঠালেন স্বামী

গাজীপুর : মারজিয়া আকতার লিপি (৩৪) নামের এক গৃহবধূকে হত্যার পর লাশ অ্যাম্বুলেন্সে করে শ্বশুরবাড়িতে পাঠানোর অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে।  চট্টগ্রামের পাহাড়তলী থানার হালিশহরে ঘটে এ হত্যাকাণ্ড।

মঙ্গলবার (২৯ অক্টোকর) দিবাগত রাত ৩টার দিকে গাজীপুরের কালীগঞ্জে বাপের বাড়িতে ওই নারীর লাশ এসে পৌঁছে।  
লিপি বাড়ি কালীগঞ্জের জামালপুর ইউনিয়নের চুপাই গ্রামের সরকারবাড়ির মৃত আবদুল আজিজের মেয়ে।

তিনি স্বামীর সঙ্গে চট্টগ্রামের পাহাড়তলীর হালিশহরে থাকতেন।  এ ঘটনার পর থেকে লিপির স্বামী মোশারফ হোসেন সরকার পলাতক।   তার স্বামী মোশারফ হোসেন সরকারও একই এলাকার হাসিমুদ্দিন সরকারের ছেলে।  তিন সন্তান নিয়ে চট্টগ্রামের হালিশহরে ভাড়া বাসায় থাকতো তারা।  সেখানে ঠিকাদারি কাজ করত লিপির স্বামী মোশারফ হোসেন ।

স্বজনরা জানান, লিপির সঙ্গে ২০ বছর আগে বিয়ে হয় মোশারফের।  তাদের মধ্যে দাম্পত্য কহল চলছিল।  এর জের ধরে মঙ্গলবার রাতে বাসায় লিপিকে পিটিয়ে হত্যা করেন মোশারফ।  এর পর মরদেহ অ্যাম্বুলেন্সে করে গাজীপুরের কালীগঞ্জে লিপির বাড়িতে পাঠিয়ে দেন।

নিহত লিপির মা রহিমা বেগম জানান, চট্টগ্রামে লিপির প্রতিবেশীরা ফোন করে তাদের জানিয়েছেন লিপিকে হত্যা করে মোশারফ পালিয়ে গেছে।

রহিমা বেগমের অভিযোগ, বিয়ের এক বছর পর থেকেই যৌতুকের জন্য মোশারফ লিপিকে চাপ দিয়ে আসছিল। এ নিয়ে বেশ কয়েকবার লিপিকে মারধর করেছে মোশারফ।  তিন বছর আগে মোশারফ পিটিয়ে লিপির বাম চোখ নষ্ট করে দেয়।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মিজানুর হক জানান, খরব পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।  হত্যার ঘটনাটি চট্টগ্রামে ঘটেছে।  তাই এ ব্যাপারে সেখানে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে।

সোনালীনিউজ/এএস

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue