মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর, ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭

সিনহা হত্যা 

স্বীকারোক্তি জানাতে আদালতে এসআই লেয়াকত

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ৩০ আগস্ট ২০২০, রবিবার ১২:৩৮ পিএম

স্বীকারোক্তি জানাতে আদালতে এসআই লেয়াকত

ঢাকা : অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় দণ্ডবিধির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে এক নম্বর আসামি পুলিশের বহিষ্কৃত ইন্সপেক্টর লেয়াকতকে আদালতে আনা হয়েছে। 

রোববার (৩০ আগস্ট) বেলা ১১টায় তাকে কক্সবাজার জেলা জজ আদালতে আনা হয়।

এর আগে র‌্যাব হেফাজতে থাকা লেয়াকতের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। এই মামলার অন্যতম আসামি পুলিশের বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, এসআই নন্দ দুলাল র‌্যাবের দুই দফায় ১১ দিনের রিমান্ডে রয়েছেন।

চাঞ্চল্যকর এই মামলাটিতে এর আগে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন এপিবিএন সদস্য কনস্টেবল আবদুল্লাহ। বুধবার (২৬ আগস্ট) কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালতে তিনি এ স্বীকারোক্তি দেন। পাশাপাশি ঘটনার বর্ণনাও তুলে ধরেন। 

৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের মারিশবুনিয়া পাহাড়ে ভিডিওচিত্র ধারণ করে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে কক্সবাজারের হিমছড়ি এলাকার নীলিমা রিসোর্টে ফেরার পথে শামলাপুর ১৬ এপিবিএনের তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সিনহা।

এ সময় পুলিশ সিনহার সঙ্গী সাহেদুল ইসলাম সিফাতকে আটক করে।

পরে নীলিমা রিসোর্ট থেকে শিপ্রা দেবনাথকে আটক করা হয়। একপর্যায়ে পৃথক মামলায় দু’জনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। বর্তমানে তারা দু’জনই জামিনে মুক্ত রয়েছেন।

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যার ঘটনায় ৫ আগস্ট নিহত সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পরিদর্শক লিয়াকত আলী, ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন।

এ মামলায় বর্তমানে টেকনাফ থানার ৭ পুলিশ, পুলিশের মামলার ৩ সাক্ষী ও আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (১৬-এপিবিএন) তিন পুলিশ সদস্যসহ ১৩ জন গ্রেফতার হয়েছেন।

পাশাপাশি ১৩ জনের মধ্যে এপিবিএনের ৩ পুলিশ সদস্য ৭ দিন করে রিমান্ড ভোগ করলেও বাকি ৭ পুলিশ ও ৩ পুলিশের মামলার সাক্ষী ১১ দিন করে রিমান্ডে রয়েছেন।

সোনালীনিউজ/এএস

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue