বুধবার, ২১ অক্টোবর, ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭

হিরো আলমকে দেখতে ভিড়, হলে নেই দর্শক

বিনোদন ডেস্ক  | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৭ অক্টোবর ২০২০, শনিবার ০৪:০০ পিএম

হিরো আলমকে দেখতে ভিড়, হলে নেই দর্শক

ঢাকা : মহামারি করোনার কারণে দীর্ঘ সাত মাস পর শর্ত সাপেক্ষে শুক্রবার খুলেছে দেশের সিনেমা হল। ৪০টি হলে প্রদর্শিত হচ্ছে ‘সাহসী হিরো আলম’। যদিও অধিকাংশ হলে দর্শক উপস্থিতি কম লক্ষ্য করা গেছে। কিন্তু হিরো আলম বলছেন ‘সুপারডুপার না হলেও ভালোই চলছে’ তার সিনেমা।

‘গীত’ এবং ‘সংগীত’ হলের ম্যানেজার সবুজ এ প্রসঙ্গে  বলেন, ‘সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে এই খবর অনেকেই জানেন না। তাই দর্শক উপস্থিতি কম। যে কারণে সকালের শো আমরা বন্ধ রেখেছি। বিকালের শোতে ছিল ১৭ জন এবং রাতের শোতে দুই হল মিলিয়ে দর্শক হয়েছে ৪০ জন।’

‘চিত্রামহল’ সিনেমার সুপার ভাইজার সোহেল বলেন, ‘দর্শক ভালো সিনেমা দেখতে চায়। এই সিনেমাটিও সাফল্য পাবে এমন প্রত্যাশা রয়েছে। তবে গতকাল দর্শক বেশি ছিল না। হিরো আলম নতুন নায়ক। আমাদের দর্শকদের চাহিদা এখন যারা সুপারস্টার আছেন তাদের সিনেমা। হিরো আলমের সিনেমায় দর্শক রেসপন্স কেমন তা এ সপ্তাহেই জানা যাবে।’

রাজধানীর ‘আনন্দ’ ও ‘ছন্দ’ সিনেমা হলের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ শামসুদ্দিন বলেন, ‘আমাদের প্রথম প্রদর্শনী শুরু হয় সকাল ১০টায়। দুই হলে প্রত্যাশার চেয়ে দর্শক কম হলেও দীর্ঘদিনের খরার পর হলে দর্শক এসেছে এটাই আনন্দ।’

এদিকে হিরো আলম জানান, তার সিনেমা চিত্রামহল, জিঞ্জিরার নিউ গুলশান ও নারায়ণগঞ্জে ভালো ব্যবসা করছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুটি শো ছিল দর্শকপূর্ণ। এ ছাড়া ঢাকার বাইরে থেকে তার কাছে যেসব হল থেকে ফোন এসেছে, সেগুলোতেও দর্শক সমাগম ছিল উল্লেখ করার মতো।

হিরো আলম রাজধানীর বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহ শুক্রবার ঘুরে দেখেছেন। এসময় তাকে দেখতে, তার সঙ্গে সেলফি তুলতে অসংখ্য মানুষ ভিড় করেছেন। কিন্তু তার সিনেমা দেখতে মানুষ সেভাবে আগ্রহী হয়নি বলেই হল মালিক সূত্রে জানা গেছে। যদিও অনেকেই বলছেন, প্রথম দিন ফাঁকা গেলেও করোনার এই সময়ে ধীরে ধীরে হলে দর্শক বাড়বে। এ জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

হিরো আলম প্রযোজিত, অভিনীত সিনেমা ‘সাহসী হিরো আলম’। করোনার কারণে যেখানে দেশের স্বনামধন্য প্রযোজকরা এসময় সিনেমা মুক্তি দিতে সাহস পাননি, সেখানে হিরো আলম এগিয়ে এসেছেন। তার সিনেমা দিয়েই দীর্ঘ সাত মাস পর খুলল হলগুলো। যদিও বড় অনেক হল এখনও বন্ধ রয়েছে। ভালো সিনেমা পাওয়া না গেলে তারা হল খুলবেন না বলে জানিয়েছেন।

‘সাহসী হিরো আলম’-এ আরো অভিনয় করেছেন সাকিরা মৌ, রাবিনা বৃষ্টি ও নুসরাত জাহান, কালা আজিজ প্রমুখ। সিনেমাটি পরিচালনা করছেন এ আর মুকুল নেতৃবাদি। গল্প লিখেছেন পিজি মোস্তফা। চিত্রনাট্য করেছেন দেলোয়ার জাহান ঝন্টু।

এদিকে মহামারি পরিস্থিতিতে আজ থেকে দেশে সব সিনেমা হল খুলে দেওয়া হয়েছে।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিনেমা শিল্পের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি একজন সিনেমা প্রিয় ও সংস্কৃতিমনা মানুষ বলেও মন্তব্য করেছেন তথ্য সচিব কামরুন নাহার।  তিনি জানান, ‘সিনেমার জন্য এক হাজার কোটি টাকার তহবিল গঠনের ঘোষণা দিয়েছে সরকার।  এছাড়াও দেশের প্রতিটি জেলায় একটি করে সরকারি সিনেমা হল চালু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

শুক্রবার (১৭ অক্টোবর) জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি (বাচসাস) আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশের চলচ্চিত্র’ শীর্ষক এক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্যসচিব বলেন, ‘একটা সময় চলচ্চিত্রের খুব খারাপ অবস্থা ছিল। কিন্তু সেই অবস্থাটা এখন আর নেই। সরকার চলচ্চিত্রকে বিনোদনের জায়গায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। একটা সময় চলচ্চিত্রে অতিরিক্ত সহিংসতা দেখানো হতো, সেই সময় সদ্য প্রকাশিত ৬৫টি সিনেমা ব্যান এবং ৯টি সিনেমা স্থায়ীভাবে ব্যান করা হয়েছিল।’

এফডিসিতে উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘সিনেমার জন্য অনুদান ৩০ থেকে ৭০ লাখ টাকায় উন্নীত করা হয়েছে। ৩২৭ কোটি টাকা দিয়ে এফডিসিতে একটি কমপ্লেক্স তৈরির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এফডিসির আইন সংস্কারের কাজ করা হচ্ছে। একই সঙ্গে সেন্সর বোর্ড আইন চলচ্চিত্রের সার্টিফিকেশন নামে সংস্কারের কাজ চলছে।’

সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ডেইলি অবজারভারের সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ও নির্মাতা মৌসুমী, অভিনেতা ফেরদৌস, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির সভাপতি ফাল্গুনী হামিদ, সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান বাবু প্রমুখ।

সোনালীনিউজ/এএস