শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৩ আশ্বিন ১৪২৭

হেঁটে বিদ্যালয়ের কাছে গিয়েই হঠাৎ স্কুলছাত্রীর মৃত্যু

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৮ মার্চ ২০২০, রবিবার ১১:৪৫ এএম

হেঁটে বিদ্যালয়ের কাছে গিয়েই হঠাৎ স্কুলছাত্রীর মৃত্যু

তাড়াশ : পরনে বিদ্যালয়ের নীল রংয়ের ইউনিফর্ম। গলায় ঝুলছে বিদ্যালয়ের পরিচয়পত্র। আর মাত্র ৫শ গজ এগিয়ে গেলেই প্রিয় বিদ্যালয়। কিন্ত এতটুকু পথ আর পাড়ি দেওয়া হলো না মেধাবী শিক্ষার্থী কানিছ ফাতেমা কনার। হাঁটতে হাঁটতে হঠাৎই মাথা ঘুরে পড়ে গিয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লো মেয়েটি। 

রোববার (৮ মার্চ) সকালে সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলা ভ্যানস্ট্যান্ডে এই ঘটনা ঘটে। কনা উপজেলার মাগুড়াবিনোদ ইউনিয়নের ঘড়গ্রামের ফজলুর রহমানের মেয়ে। 

স্থানীয়রা জানায়, সকালে মা শেফালী খাতুন মেয়েকে নাস্তা খাইয়ে বিদ্যালয়ে আসার জন্য অটোরিকশায় তুলে দেন। তারপর প্রায় ৪ কিলোমিটার পথ পেরিয়ে তাড়াশ ভ্যানস্ট্যান্ডে নেমে হেঁটে বিদ্যালয়ে আসছিল তাড়াশ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ক শাখার মেধাবী শিক্ষার্থী কানিছ ফাতেমা কনা। ঘড়িতে তখন সকাল ৮টা ২০ মিনিট। তাড়াশ ডিগ্রি কলেজের সামনে এসে হঠাৎ করেই মাথা ঘুরে মাটিতে পড়ে যায় সে। সেই সঙ্গে নাক-মুখ দিয়ে গল গল করে র*ক্ত বের হতে থাকে। পথচারীরা বিষয়টি দেখে কনাকে দ্রুত তাড়াশ ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে আসেন। পরে সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক খায়রুল বাশার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।  

বিষয়টি নিশ্চিত করে চিকিৎসক খায়রুল বাশার বলেন, ময়নাতদন্ত ছাড়া কনার মৃত্যুর কারণ বলা সম্ভব নয়।

এদিকে কনার মৃত্যুর খবর মূহুর্তের মধ্যেই ছড়িয়ে পড়ে। হাসপাতালে ছুটে আসেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল গণি, সাবেক প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলামসহ অন্য শিক্ষক-কর্মচারী ও সহপাঠীরা। তারা কনার হঠাৎ মৃত্যুতে কান্নায় ভেঙে পড়েন। 

প্রধান শিক্ষক আব্দুল গণি জানান, মেধাবী শিক্ষার্থী কনার এমন মত্যুতে তারা শোকাহত। তিনি শোকাহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।  

সোনালীনিউজ/এএস
 

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue