মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ, ২০২০, ১৭ চৈত্র ১৪২৬

৭৫ জন প্রধান শিক্ষকের পদ সংরক্ষণে হাইকোর্টের নির্দেশ

আদালত প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০২ মার্চ ২০২০, সোমবার ০৮:৩০ পিএম

৭৫ জন প্রধান শিক্ষকের পদ সংরক্ষণে হাইকোর্টের নির্দেশ

ঢাকা: জাতীয়করণ করা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আরও ৭৫ জন সহকারী শিক্ষকের জন্য প্রধান শিক্ষকের পদ ছয় মাস সংরক্ষিত রাখার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

একইসঙ্গে, ওই সহকারী শিক্ষকদের সম্মিলিত জ্যেষ্ঠতার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি কেন দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়েছে। বিধিমালার ৯(১) ধারা কেন অবৈধ হবে না তাও জানতে চাওয়া হয়েছে রুলে।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে শিক্ষা সচিবসহ সংশ্লিষ্টদেরকে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। সোমবার (২ মার্চ) আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেন আইনজীবী মোহাম্মদ সিদ্দিক উল্লাহ মিয়া।

এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে রোববার (১ মার্চ) হাইকোর্টের বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান এবং বিচারপতি কেএম কামরুল কাদের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিট আবেদনকারীদের পক্ষে শুনানি করেন- আইনজীবী মোহাম্মদ সিদ্দিক উল্লাহ মিয়া। তাকে সহযোগিতা করেন আইনজীবী মো. মনিরুল ইসলাম রাহুল ও আইনজীবী মো. সোহরাওয়ার্দী সাদ্দাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন- ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এবিএম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ সিদ্দিক উল্লাহ মিয়া বলেন, ‘অধিগ্রহণকৃত বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক (চাকরির শর্তাদি নির্ধারণ) বিধিমালা, ২০১৩ এর বিধি ২(গ) অনুসারে সদ্য জাতীয়করণ করা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের আত্তীকরণের পূর্বের চাকরিকাল ৫০ ভাগ গণনা করার বিধান থাকলেও সম্বলিত জ্যেষ্ঠতার তালিকা তৈরির সময় ওই বিধি না মেনে জ্যেষ্ঠতার তালিকা করা হয়েছে। বিধিমালার ৯(১) এবং ওই তারিখের পূর্বে নিয়োগ বিধির অধীন শিক্ষক পদে সরাসরি নিয়োগপ্রাপ্ত সর্বশেষ ব্যক্তির নিচে সহকারী শিক্ষকের অবস্থান নির্ধারিত হবে বলে উল্লেখ রয়েছে, যা সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক।’

তিনি বলেন, ‘অন্তর্বর্তীকালীন আদেশের ফলে ৭৫ জনের জন্য প্রধান শিক্ষকের পদ সংরক্ষিত রাখতে হবে।’

রিটকারীরা হলেন- কিশোরগঞ্জ জেলার কুলিয়াচর উপজেলার আল আমিন আহমেদ, মো. শামসুল ইসলাম, মো. জিল্লুর রহমান, মো. রফিকুল ইসলাম, মো. মনিরুজ্জামান, মো. আবুল হাসেম, নাসিমা খাতুন, রোকেয়া বেগম, মো. লিয়াকত আলি, মো. কামাল উদ্দিন, মো. মইনউদ্দিন, নিকলি উপজেলার প্রদীপ চন্দ্র ঘোষ, মো. সফিকুল ইসলাম, মো. সিরাজুল ইসলাম, কামরুল হাসান সহ সর্বমোট ৭৫ জন সহকারী শিক্ষক।

এর আগে, গত ৩০ অক্টোবর শেরপুর জেলার নালিতাবাড়ী উপজেলার ৫২ জন এবং নড়াইল সদরের ১০৩ সহকারী শিক্ষকের ও গত ১২ নভেম্বর নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার ১৬৭ জন সহকারী শিক্ষকের পৃথক রিট আবেদনেও একই আদেশ দিয়েছিলেন আদালত।

সোনালীনিউজ/এইচএন

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue