রবিবার, ৩১ মে, ২০২০, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

‍‍`শ্রমিক বিক্রির হাটে‍‍` নেই স্বাস্থ্যবিধি; সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকি

বাগেরহাট প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৭ মে ২০২০, রবিবার ০৩:৫২ পিএম

‍‍`শ্রমিক বিক্রির হাটে‍‍` নেই স্বাস্থ্যবিধি; সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকি

বাগেরহাট: দেশে করোনা ভাইরাস আতঙ্ক, মে মাসকে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। তবু জনসমাগম আর সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার বালাই নেই ফকিরহাটে মানুষ বিক্রি হাটে। ফলে তারা নিজেরা যেমন ঝুঁকির মধ্যে, অন্যদিকে দুর দুরান্ত থেকে আসা এসব মানুষ ফকিরহাটবাসীর জন্যও ঝুঁকির কারণ হতে পারে।

রবিবার (১৭ মে) সকালে উপজেলা সদরের কাজি আজহার আলি কলেজ মাঠে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে শ্রম বা কামলা হিসেবে নিজেদের বিক্রির জন্য শত শত শ্রমিকদের অপেক্ষা করতে দেখা যায়। সপ্তাহে দু'দিন এ হাট বসে।

মানুষের এই হাটে বেচাকেনা চলে ভোর থেকে সকাল ৯টা পর্যন্ত। দামদর ঠিক হয়ে গেলে শ্রমজীবী মানুষগুলো রওনা হন মালিকের গন্তব্যে। সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা আব্দি ঘাম ঝরিয়ে কাজ করেন কঠোর পরিশ্রমী মানুষগুলো। একদিন, দুদিন আবার সপ্তাহের জন্যেও তাদের ক্রয় করা হয়।

একবিংশ শতাব্দীর তথ্যপ্রযুক্তির যুগেও ক্ষুধা আর দারিদ্র্যের নির্মম আঘাতে নিন্ম আয়ের মানুষগুলো দুই বেলা রুটিরুজির জন্য নিজেকে বেঁচে দেন এ মানুষ বিক্রির হাটে!

বিক্রি হতে আসা অপেক্ষারত শ্রমিক আশ্রাফ আলীর জানান, তিনি ঝিনাইদহ থেকে এসেছেন এখানে শ্রম বিক্রি করতে। তার সাথে আরও কয়েকজন এখানে এসেছেন। চাপাইনবয়াবগঞ্জ থেকে আসা যুবক বরকত উল্লাহ বলেন, বিক্রি হলে দিন ৬ শ' থেকে ৭শ' টাকা পাই। ধান কাঁটার মৌসুমে কাজের সন্ধান এখানে এসেছি।

করোনা সংক্রমণে সামাজিক দুরত্ব সম্পর্কে তাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ইচ্ছা থাকলেও তাদের মাস্ক ব্যবহার ও নিয়মিত হাত ধোয়ার মত সুযোগ নেই। যাতায়াত ও কাজের সময়ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার সুযোগ থাকে না।

সোনালীনিউজ/এএস

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue