• ঢাকা
  • শনিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

পীরগঞ্জে হামলার ‘হোতা’ সৈকত ছাত্রলীগ নেতা


নিজস্ব প্রতিবেদক অক্টোবর ২৩, ২০২১, ০৯:০৭ পিএম
পীরগঞ্জে হামলার ‘হোতা’ সৈকত ছাত্রলীগ নেতা

বহিস্কৃত ছাত্রলীগ নেতা সৈকত।ছবি: সংগৃহীত

রংপুর: রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িতে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় র‌্যাবের হাতে আটক হওয়া সৈকত মণ্ডল (২৪) একজন ছাত্রলীগ নেতা। তিনি রংপুর কারমাইকেল কলেজের দর্শন বিভাগ শিক্ষার্থী ও ওই বিভাগের ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি।

হামলার ঘটনার পর গত ১৮ অক্টোবর (সোমবার) তাকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়। 

বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন কারমাইকেল কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইদুজ্জামান সিজার। সৈকত উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের চেরাগপুর গ্রামের রাশেদুল মণ্ডলের ছেলে।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) দুপুর সোয়া ১২টার দিকে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, রংপুরের পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক হামলার উসকানিদাতা সৈকত মণ্ডল। তিনি হামলায় সরাসরি অংশ নিয়েছিলেন। এছাড়া তার নির্দেশেই মাইকিংয়ের মাধ্যমে লোক জড়ো করেছিল মসজিদের মোয়াজ্জেম রবিউল।

রবিউল খেজমতপুর গ্রামের মৌলভী মো. মোসলেম উদ্দিন বাবুর ছেলে। এর আগে শুক্রবার (২২ অক্টোবর) রাতে টঙ্গী এলাকা থেকে সৈকত মণ্ডল ও তার সহযোগী রবিউল ইসলামকে (৩৬) আটক করে র‌্যাব-১৩।

কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, সৈকত একটি ফেসবুক পেজের এডমিন। ওই পেজে তার তিন হাজার ফলোয়ার রয়েছে। তিনি প্রথমে ওই পেজে ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্ট দেন। পরে মাইকিংয়ের মাধ্যমে লোক জড়ো করে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করেন।

তিনি বলেন, সৈকত প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এসব ইচ্ছাকৃতভাবে করেছেন বলে স্বীকার করেছেন। তার নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন হামলায় সরাসরি অংশ নিয়ে বাড়িঘর, দোকানপাট ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে। আটক হওয়া রবিউল ঘটনাস্থলের পাশে একটি মসজিদের মোয়াজ্জেম ছিলেন। সৈকতের নির্দেশেই রবিউল মাইকিং করে লোকজন জড়ো করেছিলেন। এরপর উঁচু একটি স্থানে দাঁড়িয়ে সৈকত হামলা ও অগ্নিসংযোগের জন্য সবাইকে নির্দেশনা দেন। ঘটনার পরপর সৈকত ও রবিউল দুজনই আত্মগোপনে চলে যান।

সোনালীনিউজ/আইএ

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System