• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯

নির্বাচিত হলেন বড় সতীন, আনন্দিত বাকি দুই সতীন


পঞ্চগড় প্রতিনিধি নভেম্বর ২৯, ২০২১, ০৪:৪০ পিএম
নির্বাচিত হলেন বড় সতীন, আনন্দিত বাকি দুই সতীন

পঞ্চগড় : উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার রাধানগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বচনে সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডের (৪, ৫ ও ৬) সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে প্রার্থী বড় শাহিনা বেগম ‘কলম’ প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছে। রোববার (২৮ নভেম্বর) রাতে আটোয়ারী উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার শহিদুল আলম শাহীনা বেগমকে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, শাহিনা বেগম ‘কলম’ প্রতীক নিয়ে ২ হাজার ৩৫২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তানজিনা বেগম তালগাছ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১ হাজার ৬৩৫ ভোট।
 
এদিকে প্রথম বারের মতো বড় সতীন শাহীনা বেগম সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় তার বাড়িতে বইছে আনন্দের জোয়ার। অন্যদিকে বড় সতীনের বিজয় অর্জনের বেশ খুশি তার মেজো সতীন আকলিমা আক্তার ও ছোট সতীন রত্না আক্তার।

তৃতীয় ধাপে রাধানগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি কলম প্রতীক নিয়ে ভোটের মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। রাত-দিন স্বামীসহ তিন সতীন ছুটে যান সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের বিভিন্ন গ্রাম ও পাড়া মহাল্লায়। বড় সতীনের জন্য বাকি দুই সতীন কলম প্রতীককে ভোট চেয়ে দোয়া ও সমর্থনের জন্য ভোটারদের বাড়ি বাড়ি যান। সাংসারিক বিভিন্ন সমস্যা মধ্যেও এক সঙ্গে থাকায় এবার ইউনিয়ন নির্বাচনে একে অপরের পাশে দাঁড়িয়েছেন শাহিনা বেগম, আকলিমা বেগম ও রত্না বেগম।

এবিষয়ে শাহিনা বেগম বলেন, আমার নির্বাচনী ৩টি সাধারণ ওয়ার্ডের মানুষ আমাকে ভালবেসে তাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে জয়ী করে তাদের সেবা করার সুযোগ করে দিয়েছেন। আজ তাই আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ। আমি আমার ভোটারদের সঙ্গে নিয়ে ওয়ার্ডের উন্নয়নের কাজ করতে চাই এবং তাদের সেবা করতে চাই। আমার জন্য আমার স্বামী ও দুই সতীন অনেক কষ্ট করেছে তাদের অবদান আমি ভুলতে পারবো না।

এবিষয়ে কথা হয় শাহীনার মেজো সতীন আকলিমা আক্তারের সঙ্গে, তিনি বলেন, শাহিনা আমার বড় সতীন হলেও তিনি আমার বড় বোন। তিনি আজ নারী ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন এতে আমি অনেক আনন্দিত। আমার বোন জনগণের সেবা করবে তাদের পাশে দাঁড়াবে এটাই বড় আনন্দ আমার আজ।

একই কথা বলেন শাহীনার ছোট সতীন রত্না আক্তার, তিনি বলেন, আমরা তিন সতীন বোনের মতো। শাহানা আপাকে ভোটে জেতাতে আমরা তিন জনে রাত দিন কাজ করেছি। আজ তিনি জয়ী হলেন এতে অনেক আনন্দিত। আমি সকলের কাছে দোয়া চাই আমার বড় সতীন যেন সবার সেবা করে পাশে দাঁড়াতে পারেন।

এবিষয়ে শাহিনার স্বামী দেলওয়ার হোসাইন বলেন, আমার বড় বউ শাহীনা বেগম আজ জনগণের ভোটে সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য নির্বাচিত হলেন এতে আমিসহ আমার তিন বউ অনেক খুশি ও আনন্দিত। আমার বড় বউ শাহীনাকে ভোটাতে জেতাতে মেজো ও ছোট বউসহ যেভাবে পাশে ছিলাম ভবিষ্যতেও পাশে থাকবো আমরা। সবার কাছে দোয়া চাই শাহিনা যেন মানুষের সেবা করে ভোটারের দেয়া আমানত রক্ষা করতে পারে।

জান গেছে, আটোয়ারী উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের মেহেরপাড়া এলাকার বাসিন্দা ও মৎস্যচাষী দেলওয়ার হোসেন ভালবেসে পর্যায়ক্রমে শাহিনা, আকলিমা ও রত্নকে বিয়ে করেছেন। তিন স্ত্রীর ঘরে ১ মেয়ে ও তিন ছেলে নিয়ে তার সংসার। দেশের বিভিন্ন এলাকায় সতীনের ঘরে ঝগড়া বিবাদ দেখা গেলেও দেলওয়ারের ঘরে দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র। দেলওয়ার এক বাড়িতেই তিন স্ত্রী ও সন্তানদের বসবাস করছেন। পরিবারে নেই কোন ঝগড়া বিবাদ। দেখে মনে হতে পারে তারা তিন বোন কিন্তু বাস্তবে তারা তিন সতীন। পরিবারের কাজগুলোও তারা ভাগ করে নিয়ে পালন করছেন। স্বামী দেলোয়ারের চোখে তারা তিন জনে সমান ভালবাসার জালে আবদ্ধ।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System