• ঢাকা
  • শনিবার, ২১ মে, ২০২২, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

শ্রমিক-ব্যবস্থাপক দ্বন্দ্বে বন্ধ চা-বাগান


মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি ডিসেম্বর ২১, ২০২১, ১১:২১ এএম
শ্রমিক-ব্যবস্থাপক দ্বন্দ্বে বন্ধ চা-বাগান

হবিগঞ্জ : মাধবপুর উপজেলার বৈকুণ্ঠপুর চা-বাগানে শ্রমিক ও ব্যবস্থাপকদের মধ্যে দ্বন্ধের জেরে গত ৮ ডিসেম্বর থেকে চা-বাগান বন্ধ রয়েছে। প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি ও শ্রমিক এবং ব্যবস্থাপকদের মধ্যে একাধিকবার বৈঠক করার পরও বাগান খোলার বিষয়ে কোনো সমঝোতা হয়নি। হঠাৎ করে চা-বাগান বন্ধ হয়ে পড়ায় রুগ্ন এ চা-বাগানটি আরো লোকসানের মধ্যে পড়েছে। শ্রমিকদের ১৩ দিন ধরে বেতন ও রেশন বন্ধ থাকায় পাঁচ শতাধিক শ্রমিক পরিবারে অভাব অনটন দেখা দিয়েছে।

বৈকুণ্ঠপুর চা-বাগানের শ্রমিক নেতা ও ইউপি সদস্য বাবুল চৌহান জানান, গত ১৩ দিন আগে এক শ্রমিকের ঘর তোলাকে কেন্দ্র করে সমঝোতা বৈঠক চলাকালে শ্রমিক ও ব্যবস্থাপকের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বাগান কর্তৃপক্ষ কোনো পূর্ব নোটিশ ছাড়া বাগান বন্ধ করে দেয়। হঠাৎ করে চা-বাগান বন্ধ করে দেওয়ায় চা-বাগানের ক্ষতির পাশাপাশি রেশন তলব না দেওয়ায় সাধারণ শ্রমিকরা অভাব অনটনের মধ্যে পড়েছে।

চা-বাগানের ব্যবস্থাপক শামসুল ইসলাম বলেন, গত ৮ ডিসেম্বর শ্রমিক ও ব্যবস্থাপকের মধ্যে বৈঠক চলাকালে কিছু উত্তেজিত শ্রমিক ব্যবস্থাপককে লাঞ্ছিত করে। এখন বাধ্য হয়েই মালিকপক্ষ বাগান বন্ধ রেখেছে। তবে বাগান খোলার বিষয়ে মালিকপক্ষ আন্তরিক রয়েছে।

বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক রামভজন কৈরী জানান, মালিকপক্ষ কোনো কারণ ছাড়া হঠাৎ যেভাবে বাগান বন্ধ রেখেছে, তা শ্রম নীতিমালা আইন পরিপন্থি। কোনো বিরোধ দেখা দিলে শ্রমিক ও ব্যবস্থাপকদের মধ্যে আলোচনা করে মীমাংসা করার নিয়ম রয়েছে। বাগান বন্ধ রাখায় সাধারণ শ্রমিকরা এখন অভাব অনটনের মধ্যে পড়েছে।

মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ মঈনুল ইসলাম মঈন বলেন, ব্যবস্থাপক ও চা শ্রমিকদের মধ্যকার দ্বন্ধের বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য আমরা আলোচনায় বসেছি। অচিরেই সমাধান হবে।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System