• ঢাকা
  • সোমবার, ২৩ মে, ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

সংকটাপন্ন হিমালয়ী শকুন উদ্ধার


ভোলা প্রতিনিধি জানুয়ারি ১৭, ২০২২, ১১:১১ এএম
সংকটাপন্ন হিমালয়ী শকুন উদ্ধার

ভোলা  : ভোলায় প্রায় সংকটাপন্ন হিমালয়ী গৃধিনী প্রজাতির একটি শকুন উদ্ধার করেছে বনবিভাগ।

রোববার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে ভোলার সদর উপজেলা ইলিশা ইউনিয়নের গুপ্তেরমুন্সি এলাকা থেকে শকুনটি উদ্ধার করে বন বিভাগ। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে শকুনটিকে বন বিভাগের সংরক্ষিত বনে অবমুক্ত করা হবে। এনিয়ে এক সপ্তাহে দুটি শকুন ভোলা থেকে উদ্ধার করা হলো।

ভোলা বনবিভাগের বণ্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র সংরক্ষণ কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম জানান, শকুনটি উড়তে উড়তে সদর উপজেলার ইলিশা ইউনিয়নের মাঝিবাড়ি সংলগ্ন পশ্চিমের বিলে পড়ে যায়।

এ সময় স্থানীয় কৃষক সেলিম সিকদার অসুস্থ শকুনটিকে তুলাতলি বাজারে নিয়ে যায়।

পরে খবর পেয়ে বন বিভাগের একটি দল সেখান থেকে শকুনটি উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য ভোলা প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পশু হাসপাতালে নিয়ে গেছে। সেখানে চিকিৎসার পাশাপামি খাবার-দাবার দিয়ে সুস্থ করে শকুনটিকে বন বিভাগের সংরক্ষিত বনে অবমুক্ত করা হবে বলে জানান তিনি।

এর আগে, গত ১০ জানুয়ারি জেলার লালমোহন উপজেলা থেকে এই প্রজাতির আরো একটি শকুন উদ্ধার করে বন বিভাগ।

ওয়াইল্ডলাইফ কনজারভেশন সোসাইটির কো-অর্ডিনেটর ও বন্যপ্রাণী গবেষক সামিউল মেহেসানিন ইমেইলের মাধ্যমে শকুটির ছবি দেখে এটিকে হিমালয়ী শকুন (Himalayan Griffon) বা হিমালয়ান গৃধিনী বলে চিহ্নিত করেন।

তিনি বলেন, হিমালয়ী গৃধিনী প্রজাতির এই শকুনগুলো বাংলাদেশে সচারাচর দেখা যায় না। উত্তরে প্রচণ্ড শীতের কারণে হিমালয় থেকে শকুনটি খাবারের সন্ধানে ভোলায় এসেছে।

এ প্রজাতির অধিকাংশ শকুন বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের জেলা ঠাকুরগাঁও ও পঞ্চগড়ে বেশি দেখা যায়। কিছু কিছু শকুন পথ ভুলে দক্ষিণাঞ্চলে চলে যায়।

এসময় দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে গিয়ে খাবার না পেয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে। কয়েকদিন পর্যাপ্ত খাবার পেলে শকুনটি আবার তার আবাসস্থলে ফিরে যেতে পারবে বলে জানান তিনি।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System