• ঢাকা
  • বুধবার, ২৯ জুন, ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯

নাবিক হাদিসুরের বাড়িতে শোকের মাতম


বরগুনা প্রতিনিধি: মার্চ ৩, ২০২২, ০৩:৫৫ পিএম
নাবিক হাদিসুরের বাড়িতে শোকের মাতম

বরগুনা: ইউক্রেনে যুদ্ধের কারণে দেশটির অলিভিয়া বন্দর চ্যানেলে আটকে থাকা ‘বাংলার সমৃদ্ধি’ জাহাজে রকেট হামলা হয়েছে। ‘বাংলার সমৃদ্ধি’তে রকেট হামলায় জাহাজের থার্ড ইঞ্জিনিয়ার মো. হাদিসুর রহমান নিহত হয়েছেন। তার বাড়ি বরগুনার বেতাগী উপজেলার ৩ নম্বর হোসনাবাদ ইউনিয়নের কদমতলা এলাকায়।তার পিতার অবসরপ্রাপ্ত মাদরাসা শিক্ষক মো. আব্দুর রাজ্জাক। চার ভাই বোনের মধ্যে হাদিসুর দ্বিতীয়।

এদিকে হাদিসুরের মৃত্যুতে তার গ্রামের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। ছেলের মৃত্যুর খবর শুনে বার বার মুর্ছা যাচ্ছেন মা।বলতে গিয়েও কিছুই বলতে পারছে না। স্মৃতি হিসেবে ছেলের কয়েকটি মেডেল হাতে নিয়ে হাউমাউ করে কান্না করেছেন আর বলেছেন, ‘আমার ছেলের লাশটা তোরা আইন্না দে’।

হাদিসুরের বাবা আব্দুর রাজ্জাক স্মৃতি হিসেবে ছেলের কয়েকটি মেডেল গলায় জড়িয়ে কান্না করছিলেন। বলেন, ‘বাড়িতে এসে ছেলের ঘরের কাজ ধরার কথা ছিল, ছিল বিয়ের কথাও। এখন সব কিছুই শেষ। আমি সন্তানের লাশ দেখতে চাই।’

স্বজনরা জানান, হাদিসুর সর্বশেষ বাড়িতে এসেছিলেন ৩ মাস আগে। তবে পরিবারের সঙ্গে নিয়মিতই যোগাযোগ ছিল তার। জানিয়েছিলেন, আটকে থাকা জাহাজ ছাড়া পেলে শিগগিরই বাড়ি ফিরবেন।

বেতাগী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাকসুদুর রহমান ফোরকান সাংবাদিকদের বলেন, হাদিস আমার চাচাতো ভাইয়ের ছেলে। ছোটবেলা থেকেই সে মেধাবী ছাত্র ছিল। চট্টগ্রাম মেরিন একাডেমি থেকে পাস করার পর ২০১৮ সাল থেকে ওই জাহাজে ছিল হাদিসুর। অবিবাহিত ছেলেটা সর্বশেষ বাড়িতে এসেছিল ছয়মাস আগে।

হাদিসুরের ছোট ভাই গোলাম মাওলা প্রিন্স বলেন, গোলার আঘাত হানার সময় ভাইয়া বাইরে এসে আমাকে ফোন দিয়েছিলেন। তবে কথার এক পর্যায় হঠাৎ করে একটি গোলা এসে পড়ে জাহাজটিতে। বিকট শব্দে কিছুই শুনতে পাইনি, ভাইয়ার সঙ্গে আর কথাও হয়নি।

হাদিসুরের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় ছেলের নিহত হওয়ার খবরে শোকে ভেঙে পড়েছেন হাদিসুরের মা-বাবা। শোকে মুহ্যমান পরিবারের অন্য স্বজনেরাও। সকাল থেকেই হাদিসুরের বাড়িতে ভিড় জমাতে শুরু করে মানুষের। তার মৃত্যুর খবরে এলাকার মানুষের মধ্যেও শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সোনালীনিউজ/আইএ

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System