• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯

দুই প্রবাসী সন্তানকে বুকে জড়ানো হলো না মায়ের


নিজস্ব প্রতিবেদক মে ১৯, ২০২২, ০৭:৫৭ পিএম
দুই প্রবাসী সন্তানকে বুকে জড়ানো হলো না মায়ের

ঢাকা: দীর্ঘদিন বিদেশে থেকে দেশে ফিরছেন প্রবাসী দুই সন্তান। খুশি যেন আর ধরে না মায়ের। বহুদিন পর ছেলদের বুকে জড়িয়ে ধরবেন সেই আশায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ছেলেদের আনতে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু নিয়তি তাকে আর সেই সুযোগ দিলো না। পথে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হলেন সেই মা।

বৃহস্পতিবার (১৯ মে) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কুমিল্লার দাউদকান্দি-ভবেরচর মহাসড়ক এলাকায় নিহত হন তিনি।

নিহত মায়ের নাম আম্বিয়া বেগম। তিনি বুড়িচং উপজেলার ভারেল্লা উত্তর ইউনিয়নের কংশনগর পূর্বপাড়া এলাকার মো. সুলতান মিয়ার স্ত্রী।

এঘটনায় দুই প্রবাসী ভাইয়ের দেশে ফেরার খুশি নিমেষেই বিষাদে পরিণত হলো।

দুপুরে স্থানীয় ও নিহত মায়ের পরিবার সূত্রে জানা যায়, কংশনগর পূর্বপাড়া এলাকার চা দোকানদার মো. সুলতান মিয়া পরিবারের কয়েকজন সদস্যকে নিয়ে বিদেশ থেকে দেশে আসা তার দুই ছেলেকে আনতে ঢাকা বিমানবন্দর যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে ঘটনাস্থলে পৌঁছলে ভয়াবহ এই দুর্ঘটনার শিকার হন তারা।

আরো জানা যায়, গজারিয়া থানা এলাকার কুতুবদিয়া হোটেলের পাশে পৌঁছলে সুলতান মিয়া প্রস্রাব করবে বলে তাদের গাড়ি থামাতে বলে। তখন সড়কের পাশে মাইক্রোবাস থামিয়ে তাকে প্রস্রাব করার সুযোগ করে দেন চালক। এমন সময় একটি কাভার্ডভ্যান এসে সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা মাইক্রোবাসটিকে ধাক্কা দিলে সেটি দুমড়েমুচড়ে যায়। গাড়ি ভেতরে থাকা সুলতান মিয়ার স্ত্রী আম্বিয়া বেগম সেখানেই নিহত হন। গাড়িতে থাকা প্রবাসীদের ভাতিজা-ভাতিজিসহ পরিবারের অন্তত পাঁচজন গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে ঢাকা মেডিক্যাল হাসপাতালে নিয়ে যায়। আহতরা হলেন- গাড়িচালক ইউসুফ আলী (২৭), সুলতান (৬৫), আলী (২৫), ইয়াসমিন (১০), কাউয়ুম (১৯), মুরশেদ (৩৫) ও সবুজ (১৬)।

এ বিষয়ে বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাকসুদ আলম জানান, ঘটনাটি আমিও শুনেছি, তবে হাইওয়ে পুলিশ ঘটনার বিস্তারিত ভালোভাবে বলতে পারবে।

সোনালীনিউজ/আইএ

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System