• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯

মানবপাচারের ঘটনায় নিঁখোজ দুই যুবক, গ্রেফতার ১


মাদারীপুর প্রতিনিধি মে ২৪, ২০২২, ১১:০৬ এএম
মানবপাচারের ঘটনায় নিঁখোজ দুই যুবক, গ্রেফতার ১

গ্রেফতারকৃত বোরহান মোল্লা

মাদারীপুর: মাদারীপুরে মানবপাচারের ঘটনায় নিঁখোজ দুই যুবকের সন্ধান পাওয়া যায়নি দুই মাসেও। এদিকে এই ঘটনায় মামলা হলে এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মামলার নথি ও স্থানীয় পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর শহরের পাকদী এলাকার মশিউর রহমান মিলন ও মোহাম্মদ হোসেনকে গ্রিস পাঠানোর কথা বলে তার পরিবারের কাছ থেকে কয়েক দফায় ৩৬ লক্ষ টাকা নেয় লিয়াকত সরদার ও বোরহান মোল্লা নামে মানবপাচারকারী একটি সিন্ডিকেট। পরে তাদের গত ২৭ ফেব্রুয়ারি গ্রিসের উদ্দেশ্যে তুরস্কে পাঠায়। এরপর থেকেই পরিবারের সাথে সব ধরেন যোগাযোগ বন্ধ মশিউর রহমান মিলন ও মোহাম্মদ হোসেনের। পরে দালাল লিয়াকত সরদার ও বোরহান মোল্লার সাথে যোগাযোগ করলে তারা ভয়ভীতি দেখিয়ে কয়েক দফায় ৩৬ লক্ষ টাকা নেয়। কিন্ত মশিউর রহমান মিলন ও মোহাম্মদ হোসেনের সন্ধান পাওয়া যায়নি। 

এতে বাধ্য হয়ে গত ১৭ মে মাদারীপুর মানব পাচার অপরাধ দমন ট্রাইবুনালে ৫জনকে আসামী করে একটি মামলা করে নিঁখোজ মশিউর রহমান মিলনের ভাই অনিক মিয়া। সেই মামলায় রোববার (২২ মে) রাতে দালাল বোরহান মোল্লাকে পুলিশ গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত বোরহান মাদারীপুর সদর উপজেলার সাবেক গোবিন্দপুর গ্রামের চান মিয়া মোল্লার ছেলে। তাকে সোমবার (২৩ মে) আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিঁখোজ মশিউর রহমান মিলনের ভাই অনিক বলেন, আমার ভাই ও খালাত ভাইকে গ্রিস পাঠানোর কথা বলে প্রথমে টাকা নেয়। পরে তুরস্ক পাঠিয়ে তাদের নির্যাতন ও ভয়ভীতি দেখিয়ে কয়েক দফায় ৩৬ লক্ষ টাকা নিয়েছে। এখন আমার ভাই ও খালাত ভাইয়ের কোন সন্ধান নাই। কোথায় আছে? কেমন আছে? জানি না। আমরা আমার ভাইদের সন্ধান চাই আর দালালদের বিচার চাই। 

এব্যপারে মাদারীপুর সদর থানার এসআই ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. মামুন মিয়া বলেন, মানব পাচারের ঘটনায় কোর্টে একটি মামলা হয়েছে। সেই মামলার প্রাথমিক তদন্তে মানবপাচারের সত্যতা পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় অভিযান চালিয়ে বোরহান নামে একজন গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামীদের গ্রেফতারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সোনালীনিউজ/এএইচ/এসআই

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System