• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর, ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯

‘দুলাভাই ও বোনকে কেউ বিষ খাইয়ে হত্যা করেছে’


গাজীপুর প্রতিনিধি আগস্ট ১৮, ২০২২, ০৫:২৩ পিএম
‘দুলাভাই ও বোনকে কেউ বিষ খাইয়ে হত্যা করেছে’

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বড়বাড়ি বগারটেক এলাকায় প্রাইভেটকারের ভেতর থেকে এক শিক্ষক দম্পতির মরদেহ বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) সকালে উদ্ধার করা হয়েছে। খাবারে বিষ মিশিয়ে এই দম্পতিকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন তার স্বজনরা। নিহত মাহমুদা আক্তার জলির বোন তাহমিদা আক্তার ইমা এ দাবি করেন।

উত্তরার নসট্রাম হাসপাতালের চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, ‘আমার দুলাভাই ও বোনকে বিষ প্রয়োগে হত্যা করা হয়েছে। দুলাভাই বাইরের কিছু খেতেন না। অতি আপনজনের কেউ তাকে খাবারের সঙ্গে কিছু মিশিয়ে খাইয়েছে।’

মৃতরা হলেন- শহীদ স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জিয়াউর রহমান মামুন এবং তার স্ত্রী আমজাদ আলী সরকার পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের সহকারী শিক্ষক মাহমুদা আক্তার জলি।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানান, বুধবার বিকেলে জিয়াউর রহমান স্ত্রীকে নিয়ে স্কুল থেকে বের হন। সন্ধ্যায় তাদের ছেলে তৌসিফুর রহমান মেরাজের সঙ্গে সর্বশেষ কথা হয়। এরপর থেকে তাদের মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। রাতে তারা বাসায় ফিরে না আসায় বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করা হয়। পরে তাদের নিখোঁজের বিষয়টি গাছা থানায় জানানো হয়। বৃহস্পতিবার সকালে গাছা থানার বগারটেক এলাকায় প্রাইভেটকারে তাদের অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে তাদের উত্তরার একটি হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এরপর পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে গাছা থানায় নিয়ে আসে।

জিয়াউর রহমান মামুনের ভগ্নিপতি আব্দুর রশিদ বলেন, গাড়ির ভেতরে দুজনকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই। মোবাইলসহ তাদের ব্যবহৃত কোনো কিছু খোয়া যায়নি। তাই এ ঘটনা ছিনতাই নয়, এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার মোহাম্মদ ইলতুৎমিশ বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য শিক্ষক দম্পতির লাশ শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাদের মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি। ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

সোনালীনিউজ/এম

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System