• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর, ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯

শরীয়তপুরে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি, সাংবাদিকদের হুমকি!


শরীয়তপুর প্রতিনিধি আগস্ট ১৮, ২০২২, ০৭:২৩ পিএম
শরীয়তপুরে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি, সাংবাদিকদের হুমকি!

শরীয়তপুরের ডামুড্যা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শ্রী রথি কান্ত মিস্ত্রি সপ্তম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনা জানাজানি হলে ওই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় সাংবাদিকরা তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে প্রাণ নাশের হুমকি দেন ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুজিত কর্মকার। এ বিষয়ে ডামুড্যা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন ভুক্তভোগী সাংবাদিকরা।

এ দিকে এ ঘটনার দু'টি অডিও ক্লিপ (১৭ আগস্ট) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ডামুড্যা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের কৃষি শিক্ষা ও স্কাউট বিষয়ক সহকারী শিক্ষক রথি কান্ত মিস্ত্রী। সেই সুবাদে তিনি স্কাউটিং প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন। তারই ধারাবাহিকতায় গত বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) স্কাউটদের সাপ্তাহিক মিটিং ছিল। কোনো কারণ ছাড়াই রথি কান্ত সেই মিটিং বাতিল করে দেন। পরে গুরুত্বপূর্ণ কথা আছে বলে ওই শিক্ষার্থীকে তিনি বিদ্যালয়ের তৃতীয় তলার একটি কক্ষে ডেকে নিয়ে যান। সেখানে ওই শিক্ষার্থীর স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন রথি কান্ত। 

বিষয়টি শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুজিত কর্মকারের কাছে জানালে, প্রধান শিক্ষক বিষয়টিকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন। এ ঘটনার তথ্য সংগ্রহ করতে আসলে স্থানীয় দুই সাংবাদিককে প্রাণ নাশের হুমকি দেন প্রধান শিক্ষক। 

স্থানীয় ও অভিভাবকরা জানান, একজন শিক্ষক পিতার সমান, সেই শিক্ষকই যদি লম্পট হয়। তাহলে সেই বিদ্যালয়ে আমাদের সন্তানদের কীভাবে পড়তে দিবো। এর আগেও প্রধান শিক্ষক বিভিন্ন সময় মেয়েদের সাথে খারাপ আচারণ করেছে। এটা সবাই জানে। আমরা চাই গার্লস স্কুলের প্রধান যেন মহিলা শিক্ষক হয়। হয়তো তাহলে কিছুটা ভরসা পেতে পারে এ বিদ্যালয়ের প্রতি।

একটি অডিও রেকর্ডিং এ শোনা যায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী এক জনকে বলছে, তাকে জোর অসামাজিক কার্যকালাপ করার চেষ্টা করেছেন অভিযুক্ত ওই শিক্ষক। তার বিভিন্ন স্থানে স্পর্শ করেছে এবং এ ঘটনা কাউকে না বলতে শিক্ষকরা হুমকি দিয়েছেন।

অভিযুক্ত রথিকান্ত মিস্ত্রিকে একাধিক বার ফোন করে পাওয়া যায়নি।

ভুক্তভোগী সাংবাদিক শাহাদাত হোসেন হিরু জানান, ‘শিক্ষকের হাতে ছাত্রীর শ্লীলতাহানী এ সংক্রান্ত তথ্য জানতে আসলে প্রধান শিক্ষক আমাদের সাথে খারাপ আচরণ করে। পরে আবার মোবাইল ফোনে প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। এতে আমরা জীবন নিয়ে সংশয়ে আছি।’ 

জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে এ ঘটনায় একটি ডামুড্যা থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগী ওই দুই সাংবাদিক।

ডামুড্যা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক সুজিত কর্মকার বলেন, অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এর পরেও বিষয়টি নিয়ে দুই সাংবাদিক বিরক্ত করায় তাদের গালিগালাজ করেছি। এজন্য তিনি সাংবাদিকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করছেন। 

ডামুড্যা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মোঃ আলমগীর হোসেন মোল্যা  বলেন, তাকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণ হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ডামুড্যা উপজেলার চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন মাঝি বলেন, এ ঘটনাকে নিন্দা জানাই। দোষী শিক্ষককে আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি জানান তিনি।

ডামুড্যা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এস এম গিয়াস উদ্দীন জানান, এ ঘটনাটি আমরা সামাজিক মাধ্যমে জানতে পেরেছি। এখনো কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। তার বিরুদ্ধে তদন্ত করা হবে, তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোনালীনিউজ/এম

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System