• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১, ১১ আষাঢ় ১৪২৮
abc constructions

মিতু হত্যার পর ৩ বিয়ে করেন বাবুল আক্তার


নিজস্ব প্রতিবেদক মে ১২, ২০২১, ০৭:২৮ পিএম
মিতু হত্যার পর ৩ বিয়ে করেন বাবুল আক্তার

ফাইল ছবি

ঢাকা: চট্টগ্রামে চাঞ্চল্যকর মাহমুদা খানম মিতু হত্যাকাণ্ডের চুক্তি হয় ৩ লাখ টাকায়।মিতুর স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তার স্ত্রীকে হত্যায় খুনিদের সঙ্গে এ চুক্তি করেন বলে প্রাথমিক ভাবে জানতে পেরেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই)।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে ৮ জনের বিরুদ্ধে নতুন একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। পাঁচলাইশ থানায় মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন বাদী হয়ে এ মামলা করেন।

এমামলায় গ্রেফতারের পর বুধবার (১২ মে) বাবুল আক্তারকে আদালতে হাজির করে রিমান্ড চাইলে আদালত ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। 

এদিকে মাহমুদা খানম মিতু হত্যার পর আরও তিনটি বিয়ে করেন বাবুল আক্তার। এর মধ্যে দুজনের সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে গেছে, বর্তমানে একজনের জনের সঙ্গে সংসার করছিলেন তিনি।

মিতুর মা শাহিদা মোশাররফ বুধবার সাংবাদিকদের বলেন, ‘মিতু মারা যাওয়ার আগে বাবুর (বাবুল আকতার) সঙ্গে ভারতের এক নারীর সঙ্গে সম্পর্ক ছিল। মিতু কৌশলে সেটা জেনে যায়। শুধু ওই নারী নয়, আরও কয়েক জনের সঙ্গে তার সম্পর্ক ছিল। যাদের মধ্যে দুই জনকে নিয়ে মিতুর মৃত্যুর পর সে সংসার করেছে। আরেকটি বিয়ে করেছে পারিবারিকভাবে।’

মিতুর মা জানান, চট্টগ্রামে থাকার সময় ওয়েল ফুডে চাকরি করা এক নারীর সঙ্গে বাবুলের পরিচয় হয়। মিতু মারা যাওয়ার পর ওই নারীকে ঢাকায় এনে একসঙ্গে থাকতে শুরু করেন বাবুল। এক পর্যায়ে ওই নারী বাবুলকে ছেড়ে চলে যান।

এরপর খুলনার এক মেয়েকে বিয়ে করেন বাবুল। তবে ওই সংসারও বেশি দিন টেকেনি। সবশেষ ৪-৫ মাস আগে কুমিল্লার এক মেয়েকে তিনি বিয়ে করেন। মিতুর মায়ের অভিযোগ কুমিল্লার মেয়েটির সঙ্গেও বাবুলের আগে থেকেই সম্পর্ক ছিল। ওই মেয়ের সঙ্গে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বাবর রোডে থাকছিলেন তিনি।

২০১৬ সালের ৫ জুন মিতুকে হত্যার পর বাবুল তার দুই সন্তানকে নিয়ে খিলগাঁওয়ের মেরাদিয়ায় শ্বশুরের বাসায় ওঠেন। মিতুর মা বলেন, সে সময় বাবুলের কান্না ও ‘নিখুত অভিনয়’ তাদেরকে বিভ্রান্ত করেছিল। তবে সময় যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বাবুল সম্পর্কে তাদের ভুল ধারণা ভাঙতে শুরু করে।

শাহেদা মোশাররফ বলেন, ‘তিন বছর আগে হঠাৎ করেই সে (বাবুল) আমাদের বাসা ছেড়ে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এরপর আমার দুই নাতিকে নিয়ে চলে যায়।’

সোনালীনিউজ/আইএ

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Wordbridge School