• ঢাকা
  • বুধবার, ০৪ আগস্ট, ২০২১, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮
abc constructions
গোয়েন্দা জিজ্ঞাসাবাদে পরীমনিকে নির্যাতনের কথা স্বীকার নাসিরের

নারীপাচারে ‘অমি গ্যাং’


বিশেষ প্রতিনিধি জুন ১৭, ২০২১, ০৪:২৫ পিএম
নারীপাচারে ‘অমি গ্যাং’

ঢাকা : জনপ্রিয় নায়িকা পরীমনির ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে আরেকটি ভয়াবহ পাচার সিন্ডিকেটের সন্ধান পেয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ।

উঠতি বয়সি তরুণীদের ক্লাবে নাচের পাশাপাশি মধ্যপ্রাচ্যে পাচার করে এই সিন্ডিকেট। অভিযোগ আছে, দীর্ঘদিন ধরে এই গ্রুপের অন্যতম হোতা হিসেবে নেপথ্যে সক্রিয় রয়েছেন ধনাঢ্য ব্যবসায়ী নাজিম সরকার ও তুহিন কাজী। আর মাধ্যম হিসেবে কাজ করেন গ্রেপ্তার হওয়া তুহিন সিদ্দিকী অমি।

বুধবার (১৬ জুন) অমির অফিসে অভিযান চালিয়ে তার দুই সহযোগীকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১০২টি পাসপোর্ট উদ্ধার করা হয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা বলছেন, তদন্তের এখন মাত্র শুরু। এখনই যেসব তথ্য আসছে সামনে, আরো চাঞ্চল্যকর তথ্য আসবে। এর আগে বাংলাদেশি এক তরুণীকে ভারতে নিয়ে নির্যাতনের ভয়াবহ ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হওয়ার সূত্র ধরে হূদয় বাবুসহ নারী পাচারকারী আন্তর্জাতিক চক্রের চাঞ্চল্যকর সব তথ্য সামনে আসে।  

জানা যায়, বিশেষ অনুমতি ছাড়া বেআইনিভাবে পাসপোর্ট রাখার দায়ে তাদের প্রথমে আটক করা হয়। এরপর দক্ষিণখান থানায় একটি মামলা করা হয়। ওই মামলায় অমি ও তার দুই সহযোগীকে আসামি করা হয়েছে। গ্রেপ্তার ওই দুই সহযোগী হলেন-বাছির ও মশিউর মিয়া।

দক্ষিণখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিকদার মোহাম্মদ শামীম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, দক্ষিণখান থানার আশকোনা হাজি ক্যাম্পসংলগ্ন সিঙ্গাপুর ট্রেনিং সেন্টার নামে একটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে তুহিন সিদ্দিকী অমির। সেই প্রতিষ্ঠানের দুই কর্মকর্তা বাছির ও মশিউর মিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার রাতে ঢাকা জেলা পুলিশ এসে দক্ষিণখান এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে। আটকের পর ঢাকা জেলা পুলিশ বাদী হয়ে দক্ষিণখান থানায় একটি মামলা দায়ের করে। সেই মামলায় বাছির ও মশিউর মিয়াকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। মামলাটি পাসপোর্ট অধ্যাদেশে করা হয়েছে। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১০২টি পাসপোর্ট জব্দ করা হয়।

তিনি আরো বলেন,  প্রতিষ্ঠানটি তুহিন সিদ্দিকী অমির হলেও পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন বাছির ও মশিউর মিয়া। তাদের মধ্যে একজন প্রতিষ্ঠানটির এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এবং অন্যজন মার্কেটিং ডিরেক্টর।

কী অভিযোগে মামলা করা হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিশেষ কোনো অনুমতি ছাড়া একটি লোক বা একটি প্রতিষ্ঠানের কাছে এতগুলো পাসপোর্ট থাকা বেআইনি। সে কারণেই তাদের আটক এবং মামলা করা হয়েছে। ওই মামলায় আসামি অমি নিজেও। যেহেতু অমি অন্য একটি মামলায় গ্রেপ্তার আছে, তাই এ মামলায় তাকে শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানো হবে।

পরীমনিকে নির্যাতনের কথা স্বীকার : পুলিশের এক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, ৮ জুন ঢাকা বোট ক্লাবের ঘটনার আগেও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম মেম্বার ও ব্যবসায়ী নাসিরের সঙ্গে কথা বলেছেন অমি। মূলত পরীমনিকে ফাঁসিয়েছেন তিনি। চলচ্চিত্র অভিনেত্রী পুলিশকে বলেছেন, ঘটনার রাতে বোট ক্লাবে ওয়েটারদের কারণে বড় ধরনের নিপীড়নের হাত থেকে রক্ষা পান তিনি।

কারণ বার বার নাসির উত্তেজিত হয়ে ওয়েটারদের বলছিলেন, এখনই লাইট বন্ধ কর। ওয়েটাররা লাইট বন্ধ করতে দেননি। তবে পরীমনির কস্টিউম ডিজাইনার জেমিকে মারধর করেন নাসির। তদন্তে উঠে এসেছে, ক্লাবপাড়ায় দীর্ঘদিন ধরেই মদের কারবারের বড় নিয়ন্ত্রক তিনি।

এদিকে পুলিশের আরেক কর্মকর্তা জানান, পরীমনিকে নির্যাতনের কথা স্বীকার করেছেন নাসির। মূলত অমির কারণে ওই রাতে এ ধরনের পরিস্থিতি তৈরি হয়। কৌশলে পরীমনিকে ঢাকা বোট ক্লাবে নিয়ে যান তিনি।

নারী পাচার সিন্ডিকেট : টিকটকের তদন্ত করতে গিয়ে যেমন নারী পাচারের ভয়ংকর রুটের সন্ধান পান গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। এবার অভিনেত্রী পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে ক্লাবপাড়ায় মদ-জুয়া ও সুন্দরী নারীদের ব্যবহার করে নানা কারবার এবং দেশে-বিদেশে তরুণী পাচারের সংঘবদ্ধ গ্রুপের সন্ধান পেয়েছে গোয়েন্দারা।

অভিযোগ আছে, দীর্ঘদিন ধরে এই গ্রুপের অন্যতম হোতা হিসেবে নেপথ্যে সক্রিয় রয়েছেন ধনাঢ্য ব্যবসায়ী নাজিম সরকার ও তুহিন কাজী।

অভিজাত এলাকা উত্তরা, বনানী, বারিধারা, গুলশান ও গাজীপুরে রিসোর্ট, ক্লাবকেন্দ্রিক তাদের গোপন সিন্ডিকেট। পরীমনির মামলায় ব্যবসায়ী ও জাতীয় পার্টির নেতা নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও তুহিন সিদ্দিকী অমি গ্রেপ্তারের পর বেরিয়ে আসছে নেপথ্যের অনেক তথ্য।

এরই মধ্যে নাজিম ও তুহিনের ব্যাপারে তদন্ত শুরু করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। যে-কোনো সময় তারা আইনের আওতায় আসতে পারেন-এমন আভাসও মিলেছে।

জানা যায়, ঢাকাসহ দেশের অন্যান্য এলাকায় ক্লাবপাড়ায় নাজিম ও তুহিনকে সবাই চেনেন। তাদের মাধ্যমে রঙিন জগতের ‘অনেক কিছু’ হাতবদল হয়। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে টার্গেট করে তরুণীদের এই সিন্ডিকেটে আনতে তাদের বিশ্বস্ত এজেন্ট রয়েছে।

ডিবির যুগ্ম কমিশনার হারুন অর রশিদ বলেন, নাজিম ও তুহিনের কর্মকাণ্ড নিয়ে এরই মধ্যে তদন্ত শুরু হয়েছে। এই জগতে তাদের বিচরণ অনেক দিনের। অমির সঙ্গে তুহিনের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকার তথ্যও আমরা পেয়েছি। অমি ও নাজিমের বিদেশে সেকেন্ড হোম রয়েছে বলে জানা গেছে।

একাধিক সূত্র জানায়, দক্ষিণখানে হলি ডে প্ল্যানার নামে একটি রিসোর্ট রয়েছে। সেখানে প্রায় নিয়মিত ডিজে পার্টির আয়োজন হয়। এতে মূল ভূমিকা রাখেন তুহিন কাজী ও অমি। আশকোনায় সিঙ্গাপুর ট্রেনিং সেন্টার নামে প্রতিষ্ঠান রয়েছে তার।

অভিযোগ আছে, দীর্ঘদিন ধরে এই সেন্টারের আড়ালে দুবাইসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ ও ইউরোপে মানবপাচার করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন অমি। দুবাইয়ে রয়েছে তার নানা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। ঢাকা ও টাঙ্গাইলে একাধিক বহুতল বাড়ি, মার্কেট, প্লট, ফ্ল্যাটসহ নামে-বেনামে বিপুল বিত্তের মালিক অমি।

এছাড়া ঢাকার একটি ধনাঢ্য শ্রেণির কাছে অমির পরিচয় নারী সরবরাহকারী হিসেবে। আর অমির কাছে নানা নারী নিয়ে আসেন তুহিন কাজী। পরে ব্যবসায়ী, শিল্পপতি, সরকারি কর্মকর্তাদের মধ্যে যারা ওই জগতে বিচরণ করেন তাদের কাছে  নিয়ে হাজির হন অমি। তুহিন-অমির চক্রে শতাধিক সুন্দরী নারী রয়েছেন।

সূত্র জানায়, গুলশানেও এই চক্রের একাধিক রংমহল আছে। সেখানে এক অবাঙালি ব্যক্তিও তাদের পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে আসছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, অমি গ্রেপ্তারের দুদিন আগেও গুলশানে তাদের একটি জলসা বসে। সেখানে অমি, তুহিন কাজী ও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এক ব্যক্তিও ছিলেন। তুহিন একাধিক বিয়ে করেছেন। তাদের মধ্যে একজন ছিলেন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী।

এ ছাড়া ঢাকাই সিনেমার আরেক জনপ্রিয় অভিনেত্রীকে ‘চাচাতো বোন’ হিসেবে তিনি পরিচয় দেন।

এই সিন্ডিকেটে তরুণীদের পাঠিয়ে যারা সহায়তা করে এদের মধ্যে মতিন ও আকবর নামে দুজনের নাম পাওয়া গেছে, যারা দেশের অন্যান্য এলাকা থেকে মেয়ে টার্গেট করে নানা প্রলোভন ও ফাঁদ পেতে এই সিন্ডিকেটে যুক্ত করে।

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলেন, ব্যাংকের বড় ঋণ পাস করানো, বড় ঠিকাদারি কাজ বাগানোসহ অনেক কাজ হাতিয়ে নিতে তারা সুন্দরী নারীদের ব্যবহার করে। নাজিম সরকার গাজীপুরের বিএনপি নেতা হাসান উদ্দিন সরকারের চাচাতো ভাই। গাজীপুরের কালীগঞ্জে তার রিসোর্ট ও হাউস বিল্ডিংয়ে রেস্টুরেন্ট রয়েছে। উত্তরার রয়েল ক্লাবেরও প্রতিষ্ঠাতা সদস্য তিনি।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Dutch Bangla Bank Agent Banking
Wordbridge School