• ঢাকা
  • বুধবার, ১০ আগস্ট, ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯

৩৭ কোটি টাকার মদ জব্দ


নিজস্ব প্রতিবেদক জুলাই ২৫, ২০২২, ০১:৫৭ পিএম
৩৭ কোটি টাকার মদ জব্দ

ঢাকা : দীর্ঘদিন ধরে গার্মেন্টস পণ্য, টিভি ও গাড়ির পার্টস আমদানির আড়ালে মাদকের একটি সিন্ডিকেটকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালাচ্ছিল র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন- র‌্যাব। কিন্তু সিন্ডিকেটটি এক বছর ধরে অভিনব কায়দায় মাদকের কারবার চালিয়ে যাওয়ায় ধরা যাচ্ছিল না। অবশেষে দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ বিদেশি ৭ হাজার বোতল মদ জব্দ করেছে তারা।

চট্রগ্রাম বন্দর থেকে টিভি ও পার্টস আমদানির আড়ালে মদ এনে কৌশলে খালাস করে বন্দর থেকে বাইরে নেওয়া হয়। র‌্যাব গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ মদের বোতল ও তিনজনকে গ্রেপ্তার করে।

রোববার (২৪ জুলাই) কাওরানবাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য দেন পরিচালক খন্দকার আল মঈন।  

তিনি বলেন, গার্মেন্টস পণ্যের আড়ালে অভিনব কায়দায় শুল্ক ফাঁকি দিয়ে প্রায় ৩৭ কোটি টাকা মূল্যের প্রায় ৩৭ হাজার বোতল বিদেশি মদ ও কোটি টাকা মূল্যের দেশি ও বিদেশি মুদ্রা উদ্ধারসহ ২ জনকে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থেকে আটকের পর সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা আব্দুল আহাদকে রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি বলেন, গত শনিবার র্যাব-১১ গোপন সূত্রে সংবাদ পায় যে, পণ্যবাহী কন্টেইনারে করে কিছু চোরাকারবারি চোরাচালানের মাধ্যমে শুল্ক-কর ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে মাদকদ্রব্য পরিবহন করে চট্টগ্রাম হতে ঢাকার দিকে রওনা দিয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় র‍্যাব-১১, নারায়ণগঞ্জের একটি আভিযানিক দল রাত সাড়ে ১০ টার দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ থানাধীন টিপর্দির সালাউদ্দিন সাহেবের পার্কিং স্ট্যান্ডের সামনে চট্টগ্রাম হতে ঢাকাগামী মহাসড়কে চেকপোস্ট স্থাপন করে। এরপর সন্দেহজনক ঢাকাগামী বিভিন্ন পণ্যবাহী ট্রাক এবং কন্টেইনারসহ টেইলার তল্লাশি শুরু করে।  

রাত ১২ টার দিকে সন্দেহজনক দুইটি কন্টেইনার টেইলার হতে তল্লাশি করে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ৩৬ হাজার ৮১৬ বোতল বিদেশি মদ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মাদকের সরকার কর্তৃক নির্ধারিত মোট ৩১ কোটি ৫৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা ভ্যাটসহ সর্বমোট মূল্য ৩৬ কোটি ৮৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা।

তিনি আরো বলেন, অবৈধ এ চালান আমদানি কারবারের সাথে জড়িত একজনের বাসায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ নগদ দেশি এবং বিদেশি মুদ্রা আটক করা হয়। যার পরিমাণ বাংলাদেশি টাকা ৯৮ লাখ ১৯ হাজার ৫০০।

অভিযানে গ্রেপ্তার হয় মো. নাজমুল মোল্লা (২৩), সাইফুল ইসলাম সাইফুলকে।  এরই ধারাবাহিকতায় অদ্য সকালে বিমানবন্দর এলাকা হতে এই চক্রের অন্যতম হোতা আব্দুল আহাদ (২২)কে গ্রেপ্তার করা হয়।

আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদের বরাতে তিনি আরো জানান, এই মাদক সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা গ্রেপ্তারকৃত আহাদ (২২) এবং মিজানুর রহমান আশিক (২৪) সম্পর্কে দুই ভাই। এই সিন্ডিকেটের মূলহোতা তাদের পিতা আজিজুল ইসলাম। তারা গত ১ বছর ধরে এই অবৈধ কারবারের সাথে জড়িত।

তারা সিএন্ডএফ-এর যোগসাজশের মাধ্যমে এই অবৈধ মাদক আমদানি করে। এই অবৈধ মাদক আমদানির ক্ষেত্রে তারা বিভিন্ন কোম্পানির কাগজপত্র ব্যবহার করে থাকে। এই চক্রটি দেশে টিভি ও গাড়ির পার্টস ব্যবসার আড়ালে অবৈধ মাদকদ্রব্য বিপণন নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে।

অবৈধ মাদক বিদেশ থেকে আনার পরে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর, রাজধানীর বংশাল ও ওয়ারীতে ওয়্যার হাউসে রাখা হয়। পরবর্তীতে সুবিধাজনক সময়ে এই সকল অবৈধ মাদক বিপণন করে থাকে। ক্ষেত্র বিশেষে পরিবহনকৃত ট্রাক/কন্টেইনার হতে সরাসরি ক্রেতাদের নিকট সরবরাহ করে থাকে।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System