• ঢাকা
  • শনিবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২০, ১৬ কার্তিক ১৪২৭
Sonalinews.com

শেয়ারবাজার থেকে টাকা নিয়ে পালানোর সুযোগ নেই


নিজস্ব প্রতিবেদক সেপ্টেম্বর ১২, ২০২০, ০৩:০৪ পিএম
শেয়ারবাজার থেকে টাকা নিয়ে পালানোর সুযোগ নেই

ঢাকা: শেয়ারবাজার থেকে টাকা নিয়ে পালানোর সময় শেষ। বিনিয়োগকারীদের নিরাপত্তা ও ব্যবসা সহজ করার জন্য বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন নিয়ন্ত্রক সংস্থাটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম।

শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর) পুঁজিবাজার সাংবাদিকদের সংগঠন ক্যাপিটাল মার্কেট জার্নালিষ্টস ফোরাম (সিএমজেএফ) ও বাংলাদেশ মার্চেন্টস ব্যাংকার্স এসোসিয়েশন (বিএমবিএ) আয়োজিত পুঁজিবাজারের বর্তমান অবস্থা ও আগামী দিনের জন্য করনীয় শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, পুঁজিবাজার থেকে অনিয়ম এবং বিভিন্ন কারসাজী দূর করতে ডিএসই’র তথ্য-প্রযুক্তি বিভাগে সংস্কার জরুরি। ডিএসইর ওয়েবসাইট নিয়ে যে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছিলো তার জন্য গঠিত তদন্ত কমিটি রিপোর্ট চূড়ান্ত করেছে। শিগগিরই তারাআমাদের কাছে এই রিপোর্ট জমা দেবেন। রিপোর্ট অনুযায়ী আমরা ব্যবস্থা নিতে বলবো।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের(ডিএসই) আইটি বিভাগে বড় ধরনের সংস্কার করতে হবে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, ডিএসইর আইটি সেক্টরে বড় ধরনের পরিবর্তন আনতে হবে। সাম্প্রতিক সময়ে ডিএসইর আইটি বিভাগের সমস্যা নিয়ে গঠিত তদন্ত কমিটি তাদের রিপোর্ট চূড়ান্ত করেছে। আগামীকাল রোববার তারা আমাদের কাছে এই রিপোর্ট জমা দেবেন। এরপরই ডিএসইর আইটি বিভাগে বড় ধরনের সংস্কার করতে বলবো।

বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, বর্তমানে দেশের ডিএসই ১ হাজার কোটি টাকা লেনদেন হচ্ছে। এটি  ৩-৫ হাজার কোটি টাকা হওয়ার কথা। আগামী দিনে বাজারে বিভিন্ন ধরনের বন্ড, এসএমই প্রোডাক্টসহ অনেক ধরনের নতুন নতুন পণ্য আসবে। এসব পণ্য চালু হলে টার্নওভার তখন ৫হাজার কোটি টাকা ছাড়াবে। তার জন্য ডিএসইর আইটি বিভাগকে সংস্কার করতে হবে।

সেমিনারে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন বিএমবিএর প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. মনিরুজ্জামান। আর অনুষ্ঠান সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন সিএমজেএফের সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) চেয়ারম্যান ও সাবেক সচিব মো. ইউনুসুর রহমান, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহীম, ডিএসই ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ডিবিএ) প্রেসিডেন্ট শরীফ আনোয়ার হোসেন এবং মিউচ্যুয়াল ফান্ড অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান ইমাম।

শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, শেয়ারবাজারে বৈচিত্র আনতে হবে। সারাক্ষন শুধু সেকেন্ডারি মার্কেট না থাকলে হবে না। আমাদেরকে এই মার্কেটটাকে অনেক বড় করতে হবে।

বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, আমরা ইক্যুইটি ভিত্তিক শেয়ারবাজার থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করছি। গত সাড়ে ৩ মাসে প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকার সাবঅর্ডিনেটে এবং পারপিচুয়াল বন্ড এবং ৮৫০ কোটি টাকার জিরো কূপন বন্ডের অনুমোদন দিয়েছি। এতে করে বাজারের সব কিছু বৃদ্ধি পাবে।

শেয়ারবাজারের উন্নয়নে বিএসইসি একা কিছু করতে পারবে না বলে জানান তিনি। এখানে একটি টিম হয়ে সবাইকে কাজ করতে হবে। এরমধ্যে দু-একজন করবে না, কিন্তু তাতে করে লক্ষ্যচ্যুত হয় না।

সোনালীনিউজ/এলএ/টিআই

Side banner