• ঢাকা
  • সোমবার, ২১ জুন, ২০২১, ৮ আষাঢ় ১৪২৮
abc constructions

ব্যাংকে চাইলে ‘নাই’, খোলা বাজারে চড়া দামে নতুন টাকা


বিশেষ প্রতিনিধি মে ৬, ২০২১, ০৪:২৪ পিএম
ব্যাংকে চাইলে ‘নাই’, খোলা বাজারে চড়া দামে নতুন টাকা

ছবি: সোনালীনিউজ

ঢাকা: মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন মূল্যমানে নতুন টাকার নোট। চাহিদা বেশি থাকায় এবছর ১০ টাকা নোট সবচেয়ে বেশি চলছে। 

বৃহস্পতিবার (১২) দুপুরে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ও গুলিস্তানের আন্ডার পাস সংলগ্ন এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়।

মতিঝিলের বাংলাদেশ ব্যাংকের সামনে গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন বয়সী নারী পুরুষ মিলে প্রায় ২০ থেকে ২৫টি নতুন নোটের দোকান সাজিয়ে বসেছেন অনেকে।

ছবি: সোনালীনিউজ

তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ১০ টাকা নোটে প্রতি হাজারের বান্ডিল বিক্রি হচ্ছে ১১০০ টাকা, ২০ টাকা নোটের প্রতি বান্ডিল বিক্রি হচ্ছে ১০৮০ টাকায়, আর ৫০, ১০০ এবং নতুন ২০০ টাকা নোটের বান্ডিল বিক্রি হচ্ছে বান্ডিল প্রতি ১০০ থেকে ৯০ টাকা বেশি দরে। 

নতুন টাকা নিতে আসা রোকন উদ্দিন সোনালী নিউজকে জানান, ছোট বাচ্চাদের ঈদ সেলামি দিতে ৬ বান্ডিল ১০ টাকা নোট নিয়েছি। দাম কেমন জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রতি বান্ডিলে ১০০ টাকা বেশি দিতে হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকে টাকা নিতে এসে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করে ফিরে যাচ্ছিলেন মনোয়ার হোসেন। তিনি জানান, ব্যাংকের ভেতরে টাকার জন্য হয়রানি হতে হয়। আর আপনি দেখুন বাহিরে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে অসাধু ব্যাংক কর্মকর্তারা টাকার বিনিময়ে এগুলো এনে ফুটপাতে বিক্রি করছেন। এই দুর্নীতির শেষ কোথায়? 

এদিকে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভেতরে গিয়ে নতুন টাকা চাইলে নিরাপত্তাকর্মীরা ব্যাংক থেকে এবার টাকা সরবরাহ করা হচ্ছে না বলে জানান। তবে মধ্যবসয়ী এক ব্যক্তি এগিয়ে এসে বলেন ১০ টাকার নোট হাজারে ৫০ টাকা বেশি লাগবে। তার পাশে থাকা আরেকজন বলেন, ১০ টাকার ১০ হাজারের এক বান্ডিল নিলে ৮০০ টাকা লাগবে। তবে সাংবাদিক পরিচয় দিতেই দুজনই সরে যান।

এর আগে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ঈদ উপলক্ষ্যে ১৪ হাজার কোটি নতুন টাকার নোট ছাড়া হয়েছে। এই নোটগুলো গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী পর্যাক্রমে ছাড়া হবে।

সোনালীনিউজ/আরএইচ/আইএ

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Wordbridge School