• ঢাকা
  • শনিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

শেয়ারবাজারে পতনের ৩ কারণ নির্ধারণ করেছে বিএসইসি 


নিজস্ব প্রতিনিধি অক্টোবর ১৯, ২০২১, ০৯:১৫ পিএম
শেয়ারবাজারে পতনের ৩ কারণ নির্ধারণ করেছে বিএসইসি 

ফাইল ছবি

ঢাকা: দেশের শেয়ারবাজারে টানা সাত কার্যদিবস পতন নিয়ে শীর্ষ ব্রোকারেজ ও ডিলারদের সাথে বৈঠক করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। বৈঠকে পতনের তিনটি ইস্যু প্রাথমিকভাবে সনাক্ত করা হয়েছে বিএসইসি সূত্রে জানা গেছে।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বিএসইসির নিজস্ব ভবনে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। এ সময় নির্বাহী পরিচালক মো. সাইফুর রহমান, মূখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক মো. রেজাউল করিম উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া শীর্ষ ব্রোকারেজ ও ডিলারদের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে গত সাত দিনের পতনকে সামন্য উল্লেখ করে বিনিয়োগকারীদের আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে বৈঠকে পতনের তিনটি কারণ প্রাথমিকভাবে নির্ধারণ করা হয়েছে।

পতনের প্রাথমিক তিনটি ইস্যুর মধ্যে দীর্ঘ উত্থানের পরে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও বিনিয়োগকারী তাদের মুনাফা সংগ্রহ করছে। এজন্য প্রতিদিন শেয়ার বিক্রির জন্য চাপ থাকার কারণে সূচকের পতন হচ্ছে। এছাড়া বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল- ইসলাম পদত্যাগ ও সরকার থেকে দেয়া এক হাজার কোটি টাকার তহবিল ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে বলে গুজব ছড়ানো হয়েছে। যে কারণে সূচকের পতন হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

বৈঠক শেষে শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ গণমাধ্যমে জানিয়েছেন, ‘একটি মহল পুঁজিবাজারকে অস্থিতিশীল করার জন্য গুজব ছড়াচ্ছে। এই বিষয়টিও তদন্ত করা হচ্ছে।’

বিনিয়োগকারীদেরকে অভয় দিয়ে তিনি বলেন, ‘ভয় পাওয়ার কিছু নেই। পুঁজিবাজারের জন্য আমরা কাজ করছি, চেয়ারম্যানও কাজ করছেন। কোনো ব্যক্তি বা কোনো গোষ্ঠী যদি পুঁজিবাজারের কারসাজি করতে চায়, বা ক্ষতি করতে চায়, আমরা এখন অনেক শক্তিশালী, আমরা এখন আইডেনটিফাই করতে পারি।

তিনি জানান, তারা জানতে পেরেছেন যে, বিএসইসি চেয়ারম্যান পদত্যাগ করতে যাচ্ছেন-এমন গুজব ছড়ানো হয়েছে কিন্তু এর কেনো ভিত্তি নেই। গুজব হিসেবে যা ছড়ানো হয়েছে, সেটি হলে পুঁজিবাজারের জন্য বরং ভালো হবে। কারণ, মহলটি ছড়িয়েছে যে বিএসইসি চেয়ারম্যানকে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর করা হবে।

শামসুদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে অনেকগুলো বিষয় নিয়ে আমাদের মতবিরোধ আছে। অবণ্টিত লভ্যাংশ ও আমানতের মধ্যে যে পার্থক্য সেটি নিয়েও আমাদের মত পার্থক্য আছে। আমাদের চেয়ারম্যান যদি ওখানে যান, তাহলে এটা তো আমাদের আর ব্যাখ্যা করে বলতে হবে না। তাহলে তো সেটা পুঁজিবাজারের জন্য আরও ভালো হবে, আরও সৌভাগ্যের বিষয় হবে। এটা তো লকোচুরির কিছু নয়। এটা নিয়ে গুজব ছড়ানো কিছু নেই।’

বৈঠকে শরিফ আনোয়ার হোসেন ছাড়াও মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ছাইদুর রহমান সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সোনালীনিউজ/এমএইচ

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System