• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২১, ১৩ কার্তিক ১৪২৮

ফ্রি ফায়ার পাবজি রেখে দাড়িয়াবান্ধায় ফিরেছে তরুণরা


ফিচার ডেস্ক সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১, ০৫:৫৭ পিএম

ঢাকা : বাংলাদেশের গ্রামীণ খেলাধুলার মধ্যে একটি পরিচিত খেলা দাড়িয়াবান্ধা। এ দেশের সকল স্থানে নিজেস্ব নিয়ম-কানুন অনুযায়ী এ খেলাটি হয়ে থাকে। 

প্রায় সব এলাকার শিশুরাই এ খেলাটি খেলতে পছন্দ করে তবে ছেলে, মেয়ে, এমনকি বড়দেরও এ খেলায় অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়। খেলাটির একটি নিয়ম আছে। তবে আমরা গ্রামীন নিয়মা সমম্পর্কে বলবো-

প্রথমে মাটিতে দাগ কেটে ঘর তৈরি করা হয়। ঘর দেখতে অনেকটা ব্যাডমিন্টনের কোর্টের মতো। দুই দলে চার-পাঁচজন করে খেলোয়াড় হলে খেলাটি বেস জমে। 

বর্গাকার একটি ঘরের সামনে-পেছনে সমান দূরত্বে দুটি করে দাগ কাটতে হয়। এ দুই দাগের মাঝে এক হাত পরিমাণ জায়গা রাখা হয়। এগুলোকে বলে আড়া কোর্ট।

দুটি আড়া কোর্ট জোড়া দিয়ে মাঝখানে একটি কোর্ট তৈরি করা হয়। মাঝখানের এই কোর্টকে বলে ‘খাড়া কোর্ট’। খেলোয়াড় যত বেশি হবে, কোর্টের সংখ্যাও তত বাড়বে। প্রতিটি আড়া কোর্টে একজন করে খেলোয়াড় দাঁড়ায়। এখানে দাঁড়িয়ে অন্য দলের খেলোয়াড়দের ঘরের ভেতর ঢুকতে বাঁধা দেওয়াই প্রতিপক্ষের কাজ। 

কোর্টের ওপর বা ঘরের ভেতর অন্য দলের খেলোয়াড়কে ছুঁতে পারলে সে মারা পড়ে। কেউ যদি দাগে পা দেয় সেও মারা পরে। সামনের খেলোয়াড় তার পেছনের খাড়া কোর্ট পুরোটাই ব্যবহার করতে পারে।

যে দল খেলার সুযোগ পায়, তাদের প্রত্যেককে সামনের ঘর দিয়ে ঢুকে শেষ ঘরটি পার হতে হয়। সব ঘর পেরোনোর পর আবার পেছনের ঘর থেকে সামনে আসতে হয়। কোর্টে দাঁড়িয়ে থাকা অন্য দলের খেলোয়াড়দের ছোঁয়া বাঁচিয়ে একজন খেলোয়র ফিরে আসতে পারলেই একটি গেম হয়। 

সোনালীনিউজ/এসএন

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System