• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর, ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯

শূন্য টাকার নোট


নিউজ ডেস্ক সেপ্টেম্বর ২০, ২০২২, ০৩:৪৪ পিএম
শূন্য টাকার নোট

ঢাকা : বাজারে হরহামেশা দুই টাকা, পাঁচ টাকা থেকে শুরু করে ১০০,২০০, ৫০০ কিংবা এক হাজার টাকার নোট দেখতে পাওয়া যায়। তবে কি কখনো শূন্য টাকার নোট দেখেছেন?

শুনতে অবাক লাগলেও ভারতে আছে শূন্য টাকার নোট। যাকে বলা হয় জিরো রুপি নোট। এই নোট দেখতে অবিকল ৫০ টাকার নোটের মতো। রং থেকে শুরু করে আকার সবই একরকম। তবে পঞ্চাশের জায়গায় এই নোট লেখা আছে শূন্য টাকা। প্রথম দেখায় কেউ বুঝতে পারবেন না এটি শূন্য টাকার নোট। যদিও এই নোটের কোনো মূল্য নেই। এই টাকা দিয়ে কিছুই করা যায় না। মূল্য না থাকলেও এই নোট এক মহৎ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয়।

কিছু মানুষকে শিক্ষা দেওয়ার ক্ষেত্রেই এই নোটের জুরি মেলা ভার। মূলত এই নোট ছাপার উদ্দেশ্য ছিল দুর্নীতি দূর করা ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে মানুষকে সচেতন করে তোলা।

সরকারি বিভিন্ন স্তরে দুর্নীতি বা ঘুষ দেওয়া-নেওয়া বন্ধ করার জন্যই এই পদক্ষেপ করেছিল সংস্থাটি। কোনো সরকারি অফিসার যদি কাজের জন্য ঘুষ চান, তাহলে এই নোট দিয়ে তাকে অনায়াসেই বোকা বানানো যাবে। পাশাপাশি তাকে লজ্জাতেও ফেলা যাবে। এর ফলে দ্বিতীয়বার আর ঘুষ নেওয়ার সাহস দেখাবেন না তিনি।

পঞ্চাশ টাকার নোটের উপরের দিকে যেখানে রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়া লেখা থাকে, সেই জায়গায় এই নোটের উপর লেখা রয়েছে এলিমিনেট করাপশন অ্যাট অল লেভেল অর্থাৎ সর্বস্তর থেকে দুর্নীতি দূর করুন।

৫০ টাকার নোটের যে অংশে লেখা থাকে ‘বাহককে আমি ৫০ টাকা দিতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ’, এই নোটে সেই অংশে লেখা রয়েছে ‘প্রতিজ্ঞা করছি কখনো ঘুষ দেব না এবং নেব না।’

আইনত যাতে কোনো ভুল না থাকে, তাই এই নোটের মধ্যে কোথাও ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের উল্লেখ করা হয়নি। সতীন্দ্রমোহন ভগবত নামে এক শিক্ষক এই নোটের পরিকল্পনা করেছিলেন। পুরো দেশের মধ্যে দুর্নীতি ছড়িয়ে পড়তে দেখে পঞ্চম পিলার নামে ঐ সংস্থাকে এই নোটের কথা বলেছিলেন তিনি।

তারপরই বিপুল পরিমাণ জিরো রুপির নোট ছাপায় পঞ্চম পিলার। দেশের বিভিন্ন অংশে তা ছড়িয়ে দেওয়া হয়।

তবে শুধুমাত্র ভারতেই নয়, পঞ্চম পিলার থেকে এই ভাবনা ধার নিয়েছে নেপাল, মেক্সিকো, ইয়েমেন, ঘানার মতো দেশও। দুর্নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে এই নোটকে বেছে নিয়েছেন তারা।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System