• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২২, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

ভেজাল চা চেনার সহজ উপায়


ফিচার ডেস্ক নভেম্বর ২, ২০২২, ০২:৩০ পিএম
ভেজাল চা চেনার সহজ উপায়

ঢাকা : ক্যামেলিয়া সিনেনসিস (Camellia sinensis)। চা গাছের বৈজ্ঞানিক নাম। সর্বোচ্চ চা রপ্তানিকারক দেশ বাংলাদেশ। পানির পরেই চা বিশ্বের সর্বাধিক উপভোগ্য পানীয়। এর একধরনের স্নিগ্ধ, প্রশান্তিদায়ক স্বাদ রয়েছে এবং অনেকেই এটি উপভোগ করে। প্রস্তুত করার প্রক্রিয়া অনুসারে চা-কে ৫টি প্রধান শ্রেণিতে ভাগ করা যায়।

যেমন– কালো চা, সবুজ চা, ইস্টক চা, উলং বা ওলোং চা ও প্যারাগুয়ে চা।

এ ছাড়াও, সাদা চা, হলুদ চা, পুয়ের চা-সহ আরো বিভিন্ন ধরনের চা রয়েছে। তবে সর্বাধিক পরিচিত ও ব্যবহৃত চা হলো সাদা, সবুজ, উলং ও কালো চা। প্রায় সবরকম চা-ই ক্যামেলিয়া সিনেনসিস থেকে তৈরি হলেও বিভিন্ন উপায়ে প্রস্তুতের কারণে এক এক ধরনের চা এক এক রকম স্বাদযুক্ত। পুয়ের চা একধরনের গাঁজনোত্তর চা যা অনেক ক্ষেত্রে ঔষধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

চা গাছের পাতা, পর্ব ও মুকুলের একটি কৃষিজাত পণ্য ‘চা পাতা’। যা বিভিন্ন উপায়ে প্রস্তুত করা হয়। কিন্তু সেই পাতা ভেজাল নাকি ভালো সেটা চেনার উপায় রয়েছে।

দোকানে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের চা পাতা পাওয়া যায়। তবে সব চা পাতা ভালো নয়। অনেক চা পাতার সঙ্গে মেশানো থাকে ভেজাল। যেগুলোতে রং বা অনেক ধরনের রাসায়নিক মেশানো থাকে। ভেজাল চা দীর্ঘদিন ধরে পান করলে স্বাস্থ্যের উপরও খারাপ প্রভাব পড়তে পারে।

তাই জেনে রাখা জরুরি, আপনি যে চা পান করছেন তা কি আসল নাকি ভেজাল মিশ্রিত? চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক চা পাতার ভেজাল চেনার উপায়-

১. চা পাতায় ভেজাল আছে কি না শনাক্ত করতে প্রথমে একটি টিস্যু পেপারে ২ চা চামচ চা পাতা রাখুন। এরপর পাতায় কয়েক ফোঁটা পানি দিয়ে কিছুক্ষণ রোদে রাখুন।

তারপর টিস্যু পেপার থেকে চা পাতা তুলে ফেলুন। চা পাতায় ভেজাল থাকলে টিস্যু পেপারে দাগের চিহ্ন দেখা যায়। কোনো দাগ বা চিহ্ন যদি না থাকে তাহলে বুঝবেন চা পাতায় ভেজাল নেই।

২. আরেকটি উপায় হলো, এক গ্লাস ঠান্ডা পানিতে ১-২ চা চামচ চা পাতা দিয়ে ১ মিনিট রেখে দিন। পানিতে কিছুক্ষণের মধ্যে রং বের হলে বুঝবেন চা পাতায় ভেজাল আছে। আসল চা পাতার রং এত তাড়াতাড়ি বের হয় না। তাও আবার ঠান্ডা পানিতে!

৩. চা পাতা আসল নাকি নকল পরীক্ষা করার আরো একটি উপায় হলো হাতে চা পাতা নিয়ে ১-২ মিনিট ঘষুন। হাতে কোনো রং দেখলে বুঝবেন চা পাতায় কিছু মেশানো আছে।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

Wordbridge School