• ঢাকা
  • বুধবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮

৯৫ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানতে পারে ‘গুলাব’


আন্তর্জাতিক ডেস্ক সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২১, ০৯:৩০ পিএম
৯৫ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানতে পারে ‘গুলাব’

ছবি : সংগৃহীত

ঢাকা : ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ ও উড়িষ্যা উপকূলে ঘূর্ণিঝড় গুলাবের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। এটি সর্বোচ্চ ৯৫ কিলোমিটার বেগেও আঘাত হানতে পারে। স্থানীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর রোববার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাতের মধ্যেই ঝড়টি স্থলভাগে পৌঁছাবে বলে সতর্ক করেছে। উপকূলে আঘাত হানার পর ঝড়ের গতিবেগ হবে ঘণ্টায় ৭৫ থেকে ৮৫ কিলোমিটার। খবর: আনন্দবাজার পত্রিকার।

ঘূর্ণিঝড় গুলাবের কারণে অন্ধ্র প্রদেশ ও উড়িষ্যা উপকূলে বাড়তি সতর্কতা জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। সমুদ্রে মাছ ধরতে যেতে নিষেধ করা হয়েছে স্থানীয় জেলেদের।

ভারতীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা থেকে ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় গুলাবের প্রভাবে রোববার সারারাত ও সোমবার সারাদিন বৃষ্টিপাত হতে পারে। ইতোমধ্যেই ভারতের পশ্চিমবঙ্গ উপকূলের দিঘা, মন্দারমণি, শঙ্করপুর এলাকায় বৃষ্টি শুরু হয়েছে। বিপর্যয় ঠেকাতে সোমবারের মধ্যে দিঘা খালি করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে পর্যটকদের।

রোববার থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত দিঘাসহ পার্শ্ববর্তী এলাকার হোটেলগুলোকে নতুন করে বুকিং নিতে নিষেধ করেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন। এখনও যে সব পর্যটক দিঘায় আছেন তাদের দ্রুত হোটেল ত্যাগ করে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’ বর্তমানে উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করছে। এজন্যে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়ার সামুদ্রিক পর্যবেক্ষণে বলা হয়, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও কাছাকাছি উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি আরও ঘনীভূত ও পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে শনিবার রাত ৯টায় উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও কাছাকাছি পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় ঘূর্ণিঝড় গুলাবে পরিণত হয়েছে। এটি চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৭০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৫২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৭০ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৫০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল। এটি আরও পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার, যা দমকা বা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড়টির কেন্দ্রের কাছে সাগর খুবই উত্তাল রয়েছে।

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত নামিয়ে এর পরিবর্তে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

সোনালীনিউজ/এমএএইচ

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System