• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৫ মার্চ, ২০২১, ২১ ফাল্গুন ১৪২৭

ঘর পেয়ে আপ্লুত গৃহ ও ভূমিহীনরা


নিউজ ডেস্ক জানুয়ারি ২৩, ২০২১, ০৬:৫২ পিএম
ঘর পেয়ে আপ্লুত গৃহ ও ভূমিহীনরা

ঢাকা : মুজিববর্ষ উপলক্ষে ৬৬ হাজারের বেশি গৃহ ও ভূমিহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ নতুন বাড়ি উপহার দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, মুজিববর্ষে কেউ গৃহহীন থাকবে না। সীমিত সম্পদেই সবার ঠিকানা করে দেবে সরকার।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশে এসব পরিবারের মধ্যে জমি ও গৃহ প্রদান অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। এসময় তিনি জানান, দুঃস্থ মানুষগুলোর ঘর যাতে মানসম্পন্ন হয়, সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে তদারকি করা হচ্ছে।

প্রশাসনের কর্মকর্তা এবং জনপ্রতিনিধিরা ঘর নির্মাণে অতুলনীয় কাজ করেছে বলেও জানান শেখ হাসিনা। খুব শিগগিরই আরও এক লাখ নতুন ঘর তৈরি করে দেয়া হবে বলেও জানান তিনি। আনুষ্ঠানিক বক্তব্য শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জমি ও গৃহ প্রদান অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

এ সময় সরাসরি সংযুক্ত ছিল খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর, নীলফামারীর সৈয়দপুর ও হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলা প্রশাসন। পাশাপাশি দেশের সব উপজেলা অনলাইনে এ অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়। এই প্রকল্প বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে অসহায় ভূমিহীন এবং গৃহহীন ৯ লাখ পরিবারের স্বপ্ন পূরণ হবে। 

সোনালীনিউজ প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-


 

ময়মনসিংহ: জেলার ফুলবাড়ীয়া উপজেলা পরিষদ হল রুমে শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের হাতে জমির কাগজ তুলে দেন স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মোসলেম উদ্দিন। 

এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশরাফুল ছিদ্দিক, নব নির্বাচিত পৌর মেয়র গোলাম কিবরিয়া, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান শারমিন সুলতানা বিউটি, সদস্য রহুল আমীন, বিআরডিবির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইমদাদুল হক সেলিম প্রমুখ। ২ শতক করে জমি সেই সাথে জন প্রতি একটি করে নতুন ঘর ৫০ জনের মধ্যে হস্তান্তর করা হয়। 

সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জে ৭৯৬টি ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবার পেল স্বপ্নের আধা পাকা ঘর। মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে এসব ঘর ও জমি দেওয়া হয়। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পরে জেলা প্রশাসন ভূমিহীন গৃহহীনদের মাঝে এই ঘরগুলো বুঝে দেন। 

জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহম্মদের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন সদর আসনের সংসদ সদস্য ডঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কে, এম হোসেন আলী হাসান, ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আব্দুস সামাদ প্রমুখ। উল্লেখ্য ৭৯৬টি পরিবারের মধ্যে ৩৪টি পরিবারকে দলিল হস্তান্তর করা হয়েছে। পরবর্তীতে বাকিদের মাঝে দলিল তুলে দেওয়া হবে। 

দশমিনা (পটুয়াখালী): জেলার দশমিনা উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীন আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় ৫০ জন দরিদ্র গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবার মাথা গোঁজার ঠাঁই হিসাবে সেমিপাকা ঘর প্রদান করা হয়। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) দুপুরে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উপজেলা প্রশাসনের উপস্থিতিতে উপকারভোগীদের হাতে ঘরের চাবি ও দলিল হস্তান্তর করা হয়। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসাবে এই ঘর প্রদান করা হয়। উপজেলার ৫০টি পরিবারের প্রত্যেকের জন্য ২ শতাংশ জমির উপর ২ কক্ষ বিশিষ্ট সেমি পাকা ঘর নির্মাণ করা হয়। ঘরগুলো সরকার নির্ধারিত একই নকশায় নির্মাণ করা হয়। উপজেলার বিভিন্ন স্থানের খাসজমি এবং দানকৃত জমিতে এই ঘরগুলো নির্মাণ করা হয়। 

নড়াইল: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে নড়াইলে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে জেলা প্রশাসন ও সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

নড়াইলে জেলা প্রশাসক মোহম্মদ্দ হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে এ সময় বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মোহাম্দ জসিম উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নিজামউদ্দিন খান নিলু, আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধ অ্যাডভোকেট ফজলুর রহমান জিন্নাহ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. ইয়ারুল ইসলাম প্রমুখ। নড়াইল জেলায় এ কার্যক্রমের আওতায় আজ ১ম পর্যায় ২ শতক জমিসহ ১০৫টি গৃহ জমিরমালিকানা সংক্রান্ত কাগজ পত্র উপকারভোগিদের মাঝে হস্তান্তরের করা হয়।

মৌলভীবাজার: ঘরগুলো প্রস্তুত রাখা হয়েছিলো আগে থেকেই। ঘরগুলো প্রত্যেকটি গৃহহীন পরিবারে স্বপ্ন। এই স্বপ্ন দেখেছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু । আর মুজিব শতবার্ষিকীতে সেই স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রত্যেকটি পরিবারকে দুই শতক জমিনসহ বুঝিয়ে দিলেন তাদের স্বপ্নের পাকা ঘর। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে দেশের ৪৯২টি উপজেলার ৬৬ হাজার ১৮৯টি পরিবারের মাঝে পাকা ঘরসহ বাড়ি হস্তান্তর করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যার মধ্যে মৌলভীবাজারেও ৫৪২টি গৃহহীন পরিবার ছিলো। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ প্রকল্পে।এর অংশ হিসাবে আগামী বছরের ফেব্রæয়ারি নাগাদ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মধ্যে আরও এক লাখ বাড়ি বিতরণের কাজ করে যাচ্ছে সরকার।

চুয়াডাঙ্গা: মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক চুয়াডাঙ্গায় গৃহহীন ১৩৪টি পরিবারকে গৃহ প্রদান করা হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ সামসুল আবেদিন খোকন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আবু তারেক, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সাজিয়া আফরিন প্রমুখ। বরাদ্দকৃত ঘরের মধ্যে চুয়াডাঙ্গা সদরে ৩৪টি, আলমডাঙ্গায় ৫০টি, দামুড়হুদায় ৩২টি ও জীবননগরে ১৮টি। এছাড়াও চুয়াডাঙ্গা জেলায় আরো ৯৯৭ টি ঘর নির্মাণ করে মুজিববর্ষের মধ্যে প্রদান করা হবে।

ফরিদপুর: ফরিদপুরে ৯টি উপজেলায় নির্মাণকৃত ঘর ১৪৮০ টি গৃহহীন পরিবারের মাঝে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশে ৬৬ হাজার ১শত ৮৯টি ঘরের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর পরই ফরিদপুরের সদর উপজেলার হলরুমে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার সদর উপজেলার গৃহহীনের মাঝে ঘরের চাবি ও জমির দলিল তুলে দেন। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুম রেজার সভাপতিত্বে এসময় অন্যদের মধ্যে ছিলেন পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান (বিপিএম সেবা), অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) দীপক কুমার রায়, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রাজ্জাক মোল্যা, উপজেলা প্রকৌশলী আজাহারুল ইসলাম সহ সরকারী কর্মকর্তা, মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক, ঘরের সুবিধাভোগীরা। একই সাথে জেলার প্রতিটি উপজেলায় বুঝিয়ে দেয়া হয় গৃহহীনদের মাঝে ঘর।  

ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম): জেলার ভূরুঙ্গামারীতে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ২শত ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে ২০০ টি সেমি পাকা ঘর ও জমির দলিল হস্তান্তর করা হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর উপজেলা পরিষদ হল রুমে ঘর ও জমির দলিল হস্থান্তর করেন কুড়িগ্রাম জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সুজা-উদ-দৌলা। এসময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূরুন্নবী চৌধুরি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার দেব শর্মা, সহকারী কমিশনার (ভুমি) জাহাঙ্গির আলম, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শাজাহান সিরাজ ও সাবেক কমান্ডার মহি উদ্দিন আহাম্মেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জয়পুরহাট: সারাদেশের ন্যায় জয়পুরহাটেও ১৬০ টি পরিবারের মাঝে জমি ও গৃহ প্রদান করা হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) উপজেলা পরিষদের মিলনায়নে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কর্যক্রমের উদ্বোধন করেন। জেলার ৫টি উপজেলায় মোট ১৬০ টি পরিবারের মাঝে নবনির্মিত এসব বাসগৃহের কবুলিয়ত দলিল, নামজারী ও গৃহ প্রদানের সার্টিফিকেট সম্বলিত ফোল্ডার হস্তান্তর করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক শরীফুল ইসলাম, পুলিশ সুপার সালাম কবির, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আরিফুর রহমান রকেট, উপজেলা চেয়ারম্যান এস.এম সোলায়মান আলী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিল্টন চন্দ্র রায় সহ প্রশাসনের কর্মকর্তা ও জন প্রতিনিধিরা। 

ভোলা: মুজিব শতবর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে ভোলার ৫২০ গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবারের মাঝে ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তে ঘরগুলো হস্তান্তর করা হয়।প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধনের পর পরই সদর উপজেলার ১৮২ গৃহহীন পরিবারে হাতে নতুন ঘরের চাবি ও জমির কাগজপত্র তুলে দেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মমিন টুলু। 

এর আগে অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখের ভোলা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ। উপকারভোগীদের মধ্যে রয়েছে নদীভাঙা, পঙ্গু, বিধবা ও ভিক্ষুক সহ হতদরিদ্র ভূমিহীনরা। জেলার মোট ৫২০টি ঘরের মধ্যে সদর উপজেলায় ১৮২, দৌলতখানে ৪২টি, বোরহানউদ্দিন ২৮টি, তজুমদ্দিন ১৮টি, লালমোহনে ২০টি, চরফ্যাসন ৩০টি ও মনপুরা উপজেলায় ২০০টি ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। 

মাগুরা: মাগুরায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে ১১৫টি ঘর পেয়েছেন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে দেশের সকল জেলায় একযোগে এ কার্যক্রমের উদ্বোধনের পর মাগুরায় উপকারভোগীদের মাঝে এসব ঘরের চাবি ও দলিল হস্তান্তর করা হয়। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর সদর উপজেলার উপকারভোগীদের মাঝে ঘরের চাবি ও দলিল হস্তান্তর করেন। 

এ সময় জেলা প্রশাসক ড. আশরাফুল আলম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পঙ্কজ কুন্ডু, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল হালিম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইব্রাহিম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জুলিয়া সুকাইনা, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু নাসির বাবলু, পৌর মেয়র খুরশীদ হায়দার টুটুল, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল ফাত্তাহ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সুফিয়ান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

মুন্সীগঞ্জ: মুজিব বর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহপ্রদাণ প্রকল্পের আওতায় মুন্সীগঞ্জের ৬টি উপজেলার ৫০৮ পরিবারকে জমি ও সেমি পাকা ঘর দেয়া হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্সের পরপরই উপকারভোগীদের মাঝে জমির দলিলসহ ঘর বুঝিয়ে দেয় জেলা প্রশাসন। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা, মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক মনিরুজ্জামান তালুকদার, মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন, গজারিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম গজারিয়া, উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জিয়াউল ইসলাম চৌধুরী প্রমুখ। জেলার সদর উপজেলায় ১০০টি, গজারিয়া উপজেলায় ১৫০টি, লৌহজং উপজেলায় ১৪৩টি, সিরাজদিখান উপজেলায় ২৫টি, টঙ্গীবাড়ি উপজেলায় ২০টি, শ্রীনগর উপজেলায় ৭০টি পরিবার এ জমি ও ঘর পেয়েছেন। 

যশোর: জেলার ৮টি উপজেলায় প্রথম ধাপে ৬৬৬টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের হাতে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পাকা ঘরের চাবি তুলে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরিবারকে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক জমিসহ ঘর প্রদান করা হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক উদ্বোধনের পর ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের হাতে জমির দলিলসহ ঘর হস্তান্তর করা হয়। 

জেলা প্রশাসক মো. তমিজুল ইসলাম খান প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে এসব দলিল হস্তান্তর করেন। জমিসহ নতুন ঘর পেয়ে মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দেওয়ায় তারা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।দলিল হস্তান্তরকালে উপিস্থত ছিলেন যশোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নূরজাহান ইসলাম নীরা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. রফিকুল হাসান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ কামরুজ্জামানসহ সরকারি কর্মকর্তারা।

সাতক্ষীরা: মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহপ্রদাণ প্রকল্পের আওতায় সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় ১৩০টি ভূমিহীন পরিবারকে জমি ও সেমি পাকা ঘর দেয়া হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্সের পরপরই উপকারভোগীদের মাঝে জমির দলিলসহ ঘর বুঝিয়ে দেয় জেলা প্রশাসক এ এম মোস্তফা কামাল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা ০২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। 

তিতাস (কুমিল্লা): কুমিল্লার তিতাসে মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে গতকাল শনিবার উপজেলা মিলনায়তনে ভ‚মিহীন ও গৃহহীন ১৬টি পরিবারের মাঝে নতুন ঘরের দলিল ও চাবি হস্তান্তর করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা. রাশেদা আক্তার, সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) মোসা. রুবাইয়া খানম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আহসানুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান মো. মহসীন ভ‚ঁইয়া, মো. নূরনবী ও সামছুল হক সরকার প্রমুখ। 

ভালুকা (ময়মনসিংহ) : সারাদেশের ন্যায় ভালুকায় আশ্রয়নের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে ২১টি স্থানে আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় নির্মিত আশ্রয়হীন ১ শত ৯৯ টি পরিবারের হাতে দলিলসহ চাবি হস্তান্তর করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদ হলরোমে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সালমা খাতুনের সভাপতিত্বে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ,ময়মনসিংহ সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য মনিরা সুলতানা মনি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বক্তব্য রাখেন। 

গাইবান্ধা: গাইবান্ধার সদর উপজেলায় ১০৫টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার মুজিব বর্ষের অঙ্গিকার ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের চাবি পেলেন। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বাড়ির চাবি হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এরপর সুবিধাভোগীদের মাঝে বাড়ির চাবি হস্তান্তর করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. আব্দুল মতিন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাফিউল ইসলাম, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আনিসুর রহমানসহ প্রশাসনের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা। 

বরিশাল: জেলার ১০ উপজেলায় ভূমি ও গৃহহীন ১ হাজার ৯টি পরিবারকে ২ শতাংশ খাস জমিসহ সরকারের দেয়া নতুন নির্মিত সেমিপাকা ঘরের কাগজপত্র হস্তান্তর করা হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) বরিশাল সদর উপজেলা পরিষদের হলরুমে সদর আসনের এমপি ও পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক, বিভাগীয় কমিশনার ড. অমিতাভ সরকার, জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার এবং জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক তালুকদার মো. ইউনুস সদর উপজেলার ১৫৭টি জমি ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে ঘরসহ জমির কাগজপত্র তুলে দেন। জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, জেলার ১০ উপজেলায় ভূমি ও গৃহহীন ১ হাজার ৯টি পরিবারের মাঝে ঘরসহ জমির কাগজপত্র হস্তান্তর করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে জেলায় মোট ১ হাজার ৫৫৬টি ঘর ও জমির দলিল বিতরণ করা হবে। 

বীরগঞ্জ (দিনাজপুর): দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ হলরুম থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে যুক্ত হন দিনাজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল। 

এসময় দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় ৩৫০টি পরিবারের মাঝে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তর করেন এমপি গোপাল। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আমিনুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়শা আক্তার বৃষ্টি, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল কাদের, উপজেলা কমিশনার (ভুমি) ডালিম সরকার, বীরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল মতিন প্রধান, উপজেলা আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

 ফুলবাড়ী (দিনাজপুর): বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে রংপুর-রাজশাহী বিভাগে উপজেলা পর্যায়ে সর্বাধিক সংখ্যক ঘর পেয়েছে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার ভূমিহীন ও গৃহহীনরা। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) ফুলবাড়ী উপজেলার ৪০০ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পবিবারকে ঘরের চাবি ও জমির কবুলিয়ত দলিল হস্তান্তর করা হয়েছে। 

গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিডিও কনফারেন্সের সাথে সমন্বয় রেখে সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারগুলো মাঝে ঘরের চাবি ও জমির কবুলিয়ত দলিল হস্তান্তর করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রিয়াজ উদ্দিন। 

এসময় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আতাউর রহমান মিল্টন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) কানিজ আফরোজ, নবনির্বাচিত পৌর মেয়র মাহমুদ আলম লিটন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হায়দার আলী শাহ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মঞ্জু রায় চৌধুরী, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শফিউল ইসলামসহ বিভিন্ন সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যমকর্মীসহ উপকার ভোগীরা উপস্থিত ছিলেন। 

গঙ্গাচড়া (রংপুর): বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান উদ্বোধনের পর প্রধানমস্ত্রীর উপহার হিসেবে গঙ্গাচড়ায় ঘর ও জমি পেলেন ৯৫টি পরিবার। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রীর ভার্চুয়ালি উদ্বোধনের পর তার অনুমতি ক্রমে উপজেলা পরিষদ চত্তরে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমির দলিল ও ঘরের চাবি হস্তান্তর করেন রংপুরের জেলা প্রশাসক মো. আসিব আহসান।এ সময় উপস্থিত ছিলেন গঙ্গাচড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব রুহুল আমিন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাসলীমা বেগম, ভাইস চেয়ারম্যান সাজু মিয়া লাল, রাবিয়া বেগম, সহকারি কমিশনার (ভূমি) শরিফুল ইসলাম, গঙ্গাচড়া মডেল থানার ওসি সুশান্ত কুমার সরকার প্রমুখ। 

সরিষাবাড়ী: উপহার হিসেবে ঘর ও ২ শতাংশ করে খাস জমি পেলো জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের ২শ ৯৫টি পরিবার। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে সারাদেশে ৬৬ হাজার ১৮৯ ঠিকানাবিহীন পরিবারকে বাড়ি হস্তান্তর অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করেন তিনি। ভিডিও কনফারেন্সে অনলাইনে এ অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও তথ্য প্রতিমন্ত্রী আলহাজ ডা: মুরাদ হাসান। এ সময় তথ্য প্রতিমন্ত্রী ২৯৫টি পরিবারের হাতে ঘরের দলিলসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র তুলে দেন। 

উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে তথ্য প্রতিমন্ত্রী আলহাজ ডা. মুরাদ হাসান বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে গৃহহীন, ভূমিহীন মানুষের জন্য ঘর নির্মাণ করে দিয়েছেন। ভূমিহীন ও গৃহহীনদের স্বপ্ন পূরণে সরকারের এই সাফল্য মুজিববর্ষকে ইতিহাসে মহিমান্বিত করে রাখবে। 

এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শিহাব উদ্দিন আহমেদ, উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা গিয়াস উদ্দিন পাঠান, প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার হুমায়ুন কবীর, সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ আবু মো. ফজলুল করীম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মোফাজ্জল হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদসহ উপকারভোগী ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

নাটোর: নাটোরে মুজিব বর্ষ উপলক্ষে প্রথম পর্যায়ে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের কাছে ৫৫৮টি পাকা ঘর হস্তান্তরের ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে গৃহহীনদের প্রধানমন্ত্রীর ঘর প্রদানের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। এই উপলক্ষে শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকাল দশটার দিকে সদর উপজেলা পরিষদের কনফারেন্স রুমে এক বর্ণাঢ্য আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শাহরিয়াজ পিএএ, পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম, নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও নাটোর জজ কোটের পিপি অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক শামসুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম রমজান সহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে গণভবন হতে দেশের ৬৪ জেলার ৪৯২টি উপজেলার সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে ৬৯ হাজার ৯শ’ ৪ জন ভূমিহীন ও গৃহহীনকে ঘর প্রদান কার্যক্রমের প্রথম পর্যায়ের শুভ উদ্বোধন করবেন। 

পার্বতীপুর (দিনাজপুর): মুজিববর্ষ উপলক্ষে দিনাজপুরের পার্বতীপুরে ২৬২ জন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার পেল প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৯টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশের ন্যায় এসব ভূমিহীন-গৃহহীনদের দুই ঘর বিশিষ্ট ২৬২ পাকা বসতবাড়ির চাবি হস্তান্তর করেন। উদ্বোধনের পর প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে উপজেলা হলরুমে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো. হাফিজুল ইসলাম প্রামানিক উপজেলার ২৬২জন ভূমিহীন ও গ্রহহীন পরিবারের হাতে জমির দলিলসহ বাড়ির চাবি হস্তাস্তর করেন।

পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাশিদ কায়সার রিয়াদ বলেন, উপজেলায় ভূমিহীন ও গ্রহহীন ‘ক’ তালিকাভূক্ত ২৬২টি পরিবারের মধ্যে প্রাথমিক পর্যায়ে ১৮০টি পরিবারকে সরকারি খাস জমিতে পাকা বাড়ি দেওয়া হয়েছে। ২ শতাংশ খাস জমি পরিবার প্রতি বন্দোবস্ত দিয়ে কবুলীয় সম্পন্ন করে দেয়া হয়েছে। দুইটি কক্ষ বিশিষ্ট রঙ্গিন পাকা ঘর, রান্নাঘর, বারান্দা ও বাথরুম। রয়েছে সুপেয় পানির জন্য টিউবওয়েল ও উম্মুক্ত খেলার মাঠ। ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা ব্যায়ে প্রতিটি পাকা বাড়ি নির্মাণ করা হয়।

ফটিকছড়ি (চট্টগ্রাম): ‘আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী (মুজিববর্ষ) উপলক্ষে চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার ৬শ’ গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার। ইতোমধ্যে প্রথম ধাপে উপজেলায় ৭০টি গৃহহীন পরিবারের কাছে জমির দলিল ও ঘরের চাবি বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশব্যাপী গৃহগুলোর শুভ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ফটিকছড়ি উপজেলা পরিষদের বীর মুক্তিযোদ্ধা জহুরুল হক সম্মেলন কক্ষে ভিডিও কনফারেন্স এ যুক্ত হন বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশন এর চেয়ারম্যান ও স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, মহিলা সংসদ সদস্য খাদিজাতুল আনোয়ার সনি, উপজেলা চেয়াম্যান হোসাইন মোহাম্মদ আবু তৈয়ব,ভাইস-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ছালামত উল্লাহ চৌধুরী শাহীন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেবুন্নাহার মুক্তা।

লক্ষ্মীপুর: মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের গৃহ হস্তাস্তর অনুষ্ঠান লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে শনিবার (২৩ জানুয়ারি)  সকালে অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

অনুষ্ঠান শুরুতে ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের গৃহ হস্তাস্তর অনুষ্ঠান শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দর সভাপতিত্বে ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুমের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার ড. এএইচএম কামরুজ্জামান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম সালাহ উদ্দিন টিপু প্রমুখ। 

এসময় আরো বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মোহাম্মদ সফিউজ্জামান ভুঁইয়া, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. শাহিদুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মামুনুর রশিদ, জাকির হোসেন ভৃঁইয়া আজাদ। 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভূমিহীনদের জন্য ১ হাজার ৯১টি ঘরের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মুজিব বর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে শনিবার গনভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এসব ঘরের উদ্বোধন করা হয়। 

এ উপলক্ষে আখাউড়া উপজেলা মিলনায়তনে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার এ,বি, এম আজাদ, জেলা প্রশাসক হায়াত উদ দৌলা খান, পুলিশ সুপার মো. আনিসুর রহমান, আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নূর এ আলম, উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কাশেম, পৌর মেয়র তাকজিল খলিফা কাজল প্রমূখ। 

এ সময় সরকারী কর্মকর্তাসহ, মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও উপকারভোগীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে উপকারভোগীদের মাঝে তাদের ঘর বুঝিয়ে দেয়া হয়। এছাড়াও জেলার বিভিন্ন উপজেলাতে ঘর উদ্বোধন ও হস্তান্তর উপলক্ষে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। 

সুনামগঞ্জ: মুজিববর্ষে ‘আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সুনামগঞ্জের ১১টি উপজেলার ৪০৭ দরিদ্র গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবার পেল ঘর হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর উপহার। গতকাল শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দরিদ্র-আশ্রয়হীন পরিবারের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘরের চাবি ও দলিল হস্তান্তরের জন্য তিনি নির্দেশ দেন প্রশাসনের কর্মকর্তাদের।

পরে সুনামগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলার দরিদ্র গৃহহীন পরিবারের মধ্যে ঘরের চাবি ও দলিল তুলে দেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও কর্মকর্তারা।

লালমনিরহাট: মুজিবর্ষে লালমনিরহাটে ভূমিহীন ও গৃহহীন ৯শত ৭৮টি পরিবারকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার জমির কবুলিয়াত দলিলসহ পাকা ঘর পেয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্স-এর মাধ্যমে গৃহগুলো হস্তান্তর উদ্বোধন করেন।

একই সঙ্গে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে জেলার ৫উপজেলায় ‘ক শ্রেণীর’ ৯শত ৭৮টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২শতাংশ জমির কবুলিয়াত দলিলসহ গৃহগুলো গৃহহীন পরিবারের মাঝে হস্তান্তর করা হয়। জমিসহ পাকা ঘর পেলো সদর উপজেলায় ১শত ৫০টি, আদিতমারী উপজেলায় ১শত ৩০টি, কালীগঞ্জ উপজেলায় ১শত ৫০টি, হাতীবান্ধা উপজেলায় ৪শত ২৫টি ও পাটগ্রাম উপজেলায় ১শত ২৩টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। 

সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. মতিয়ার রহমান। বক্তব্য রাখেন ক্যাপ্টেন (অবঃ) আজিজুল হক বীর প্রতীক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রফিকুল ইসলাম, জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব সেকেন্দার আলী, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি নজরুল হক পাটোয়ারী ভোলা, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সুজন প্রমুখ।

কুষ্টিয়া: আশ্রয়নের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার এই শ্লোগানে সারা দেশে একযোগে ৬৬ হাজার ১৮৯ টি পরিবারকে একখন্ড জমি গৃহ প্রদান কর্মসূচির শুভ উদ্বোধন করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

এ উপলক্ষেশনিবার (২৩ জানুয়ারি)  সকালে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলা অডিটোরিয়ামে গৃহহীনদের মাঝে ঘরের চাবি, দলিলসহ ঘরটি ব্যবহারের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সুবিধাভোগিদের বুঝিয়ে দেওয়া হয়। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিংকন বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন  জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিনসহ প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দরা। 

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের গৃহদান প্রকল্পে কুষ্টিয়ায় সর্বমোট ৩৩৮ ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ১৫৭ টি ঘর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। ১৮১ টি ঘর নির্মাণের কাজ চলমান এবং পর্যায়ক্রমে বাকি গুলোর নির্মান কাজ শেষ হবে। সর্বমোট ৩৩৮ ঘর নির্মাণ হবে।

মেহেরপুর: মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীনদের ও গৃহহীনদের জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টার সময় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা হলরুমে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ সময় গাংনী উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে উপস্থিত ছিলেন, মেহেরপুর জেলা আওয়ামীল লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গাংনী উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ খালেক, গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেলিম শাহ নেওয়াজ, প্রকল্প বাস্তায়ন কর্মকর্তা নিরঞ্জন চক্রবর্তী, গাংনী থানার ওসি বজলুর রহমান সহ সুবিধাভোগীরা উপস্থিত ছিলেন। 

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় উদ্যোগে মেহেরপুর সদরে ১৬, গাংনীতে ৮ ও মুজিবনগরে ৪টি ‘দুর্যোগ সহনীয় ঘর নির্মাণ করেছে উপজেলা প্রশাসন। সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী কার্যক্রম সম্প্রসারণ ও গ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন ও এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সবার জন্য বাসস্থান নিশ্চিতকরণ কর্মসূচির আওতায় ওই ঘরগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। 

পাবনা : মুজিব জন্ম শতবর্ষ উপলক্ষে পাবনায় ১ হাজার ৮৬ জন অসহায় ভূমিহীন ও গৃহহীন মানুষের মাঝে  দুই শতক জমিসহ গৃহ হস্তান্তর করা হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি)  সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে হস্তান্তর করেন। পাবনার সকল উপজেলা পরিষদ ভবন থেকে একযোগে এ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে জেলার গৃহহীনদের মাঝে ঘরের চাবি ও জমির দলিলের ফাইল তুলে দেয়া হয়।

পাবনা সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়নে সদর উপজেলার গৃহহীনদের হাতে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের এসব ঘরের চাবি তুলে দেন পাবনা সদর আসনের সংসদ সদস্য গোলাম ফারুক প্রিন্স, জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ, পুলিশ সুপার মুহিবুল ইসলাম খান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কাজী আতিউর রহমান, ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা বেবী ইসলামসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা। 

শেরপুর: মুজিব শতবর্ষে বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না- প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশনা অনুযায়ী সারা দেশের ন্যায় শেরপুরেও ২৯১ জন ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য স্বপ্নের নীড় তৈরি করা হয়েছে। 

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মধ্যদিয়ে শেরপুরের প্রতিটি উপজেলায় এসব ঘরের চাবি আনুষ্ঠানিক ভাবে হস্তান্তর করা হয়।

এ উপলক্ষ্যে শেরপুর সদর উপজেলা পরিষদ হলরুমে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উপকারভোগীদের মধ্যে ঘরের চাবী ও দলিল হস্তান্তর করেন স্থানীয় সাংসদ ও সরকার দলীয় হুইপ আতিউর রহমান আতিক। 

শেরপুর সদর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ফিরোজ আল মামুনের সঞ্চলনায় এসময় শেরপুরের জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক এটিএম জিয়াউল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চন্দন কুমার পাল, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তোফায়েল আহমেদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ওয়ালীউল হাসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মুক্তাদিরুল ইসলাম, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাবিহা জামান শাপলা, প্রেসক্লাব সভাপতি শরিফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মেরাজ উদ্দিনসহ জেলায় কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

সোনালীনিউজ/এমটিআই