• ঢাকা
  • বুধবার, ১০ আগস্ট, ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯

তিন মাসের মধ্যে বিভাগীয় মামলা নিষ্পত্তির নির্দেশ


নিজস্ব প্রতিবেদক জুলাই ৩১, ২০২২, ০৭:৩৪ পিএম
তিন মাসের মধ্যে বিভাগীয় মামলা নিষ্পত্তির নির্দেশ

ঢাকা: জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বর্তমানে ৩৭টি বিভাগীয় মামলা বিচারাধীন রয়েছে। এসকল মামলা তিন মাসের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশনা দিয়েছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। সম্প্রতি মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সমন্বয় সভায় এ নির্দেশনা দেওয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, চলতি বছরের প্রথম পাঁচ মাসে (জানুয়ারী-মে) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ৪৩৩টি অভিযোগ আসে। এই অভিযোগগুলো যাচাই বাছাই ও প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়ায় ১১ জন ক্যাডার কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। এগুলো ছাড়াও আরও ৩৭টি বিভাগীয় মামলা চলমান ছিল। বিভাগীয় মামলার তদন্ত শেষে ৪৮টি মামলার মধ্যে এই পাঁচ মাসে ১১টি মামলা নিষ্পত্তি করা হয়। এর মধ্যে অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় ২ জন কর্মকর্তাকে গুরুদন্ড, ৪ জনকে লঘুদন্ড দেয় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। বাকী ৫ জন কর্মকর্তাকের অব্যহতি দেওয়া হয়। বর্তমানে ৩৭টি বিভাগীয় মামলা চলমান রয়েছে।

মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সমন্বয় সভায় বিভাগীয় মামলা দ্রুততম সময়ে নিষ্পত্তি করতে ৩ মাস সময় বেধে দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে তিন মাস অতিবাহিত হলে প্রয়োজনে তদন্ত কর্মকর্তাদের ১ মাস পর পর তাগিদ দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়। মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (শৃঙ্খলা ও তদন্ত) এই নির্দেশনা বাস্তবায়ন করবেন।

জানতে চাইলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের শৃঙ্খলা ও তদন্ত অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. ফরিদ উদ্দিন আহমদ বলেন, বিচারাধীন মামলাগুলো দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য আমরা কাজ করছি। যাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয় তারা অনেক সময় উপস্থিত হতে চায় না। এজন্য নিষ্পত্তিতে সময় লাগছে। বিভাগীয় মামলা বিলম্বিত হলে কর্মকর্তাদের পদোন্নতিসহ প্রাপ্য অনেক কিছু পেন্ডিং থাকে। এছাড়া যারা তদন্তের দায়িত্বে থাকেন তাদের নিজ নিজ দফতরের দৈনন্দিন কাজও ব্যাহত হয়। যে সকল মামলা বেশি সময় ধরে পেন্ডিং সেই মামলার তদন্ত কর্মকর্তাদের নিয়ে আমরা শীঘ্রই বসবো। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রাথমিক তদন্তে সন্দেহাতীতভাবে অপরাধ প্রমাণিত হলে বিভাগীয় মামলা দায়ের করা হয়। তার পরেও বিভাগীয় মামলায় শাস্তি হওয়ার সংখ্যা খুবই নগণ্য। বিভাগীয় মামলায় কাউকে দোষী সাব্যস্ত করলে অভিযোগ গঠনপূর্বক তখন মন্ত্রণালয়ের প্রধান হিসাবে জনপ্রশাসন সচিব কারণ দর্শানো নোটিশ জারি অথবা ব্যক্তিগত শুনানি গ্রহণ করেন। এরপর কাউকে শাস্তি প্রদান কিংবা অব্যাহতি দেয়া হয়। এর পরেও যারা শাস্তি পান তারাও বিভিন্নভাবে তদবির করে দন্ড মওকুফ করিয়ে নিচ্ছেন।

সোনালীনিউজ/আইএ

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System