• ঢাকা
  • রবিবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯

নয়া পল্টনেই অনঢ় বিএনপি, পুলিশের না 


নিজস্ব প্রতিবেদক  ডিসেম্বর ৮, ২০২২, ১১:০২ এএম
নয়া পল্টনেই অনঢ় বিএনপি, পুলিশের না 

ঢাকা: দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশের হামলা-গুলি, কার্যালয়ে অভিযান এবং নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে আজ বৃহস্পতিবার সারাদেশে মহানগর-জেলা পর্যায়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। এ ছাড়া আগামী ১০ ডিসেম্বর নয়া পল্টনেই গণসমাবেশ করার সিদ্ধান্তেও অটল আছে দলটি।

গতকাল বুধবার রাতে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সভাপতিত্বে জাতীয় স্থায়ী কমিটির জরুরি ভার্চুয়াল বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। বৈঠক শেষে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা জানানো হয়েছে।

বৈঠক সূত্রে জানা যায়, গতকাল বুধবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সামনে অবস্থান নেওয়া নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশের হামলা, দলীয় কার্যালয়ে অভিযান, নেতাকর্মীদের আটক করা হলেও আগামী ১০ ডিসেম্বর গণসমাবেশ করার পক্ষে দলটির নীতিনির্ধারকরা। তারা মনে করেন, সরকার যতই নির্যাতন করুক, চলমান পরিস্থিতিতে পিছু হটা যাবে না। সেক্ষেত্রে ১০ ডিসেম্বর গণসমাবেশের মধ্যদিয়ে সরকারের সব অন্যায়ের প্রতিবাদ জানানো হবে। 

নিহত মকবুল স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা

স্থায়ী কমিটির বৈঠকে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পুলিশি হামলাকে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ঘোষিত কর্মসূচি যথাযথভাবে পালনের আহ্বান জানানো হয়। মির্জা ফখরুল জানান, স্থায়ী কমিটির ১০ ডিসেম্বর ঢাকা বিভাগীয় গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে বিনা উসকানিতে পুলিশের অহেতুক, অযাচিত ও কাপুরুষোচিত গুলিবর্ষণ, হামলা এবং পুলিশের গুলিতে পল্লবী থানার ৫ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা মকবুল হোসেনকে হত্যা করা হয়েছে। সহস্রাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার, হয়রানি ও আহত করা হয়েছে।

গতকাল রাতে বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, মিরপুর পল্লবী থানার ৫ নম্বর ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক ছিলেন মকবুল হোসেন। তার মরদেহ ঢাকা মেডিকেল মর্গে রাখা আছে।

সভায়, গ্রেপ্তারকৃত নেতাকর্মীদের অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করে পুলিশ প্রশাসনের প্রতি হামলা, গুলি, দমন-নিপীড়ন, গ্রেপ্তার ও হয়রানী বন্ধের আহ্বান জানানো হয়।

মির্জা ফখরুলের প্রশংসায় স্থায়ী কমিটি

এই সভায় দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের সাহসী ভূমিকার জন্য স্থায়ী কমিটির সদস্যরা ভূয়সী প্রশংসা করেন। বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ একজন নেতা বলেন, ‘এই বয়সেও দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গুলি-টিয়ার গ্যাসের মধ্যে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়েছেন। এই সাহসী পদক্ষেপের জন্য বৈঠকে অংশগ্রহণ করা সবাই তার প্রশংসা করেন।’

ভার্চুয়াল এই সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। 

সোনালীনিউজ/এম

Wordbridge School