• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২১, ১৫ মাঘ ১৪২৭

উহানে সুস্থ থাকার দুর্লভ ঘটনা জানালেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী


নিউজ ডেস্ক মার্চ ২২, ২০২০, ০৫:২৪ পিএম
উহানে সুস্থ থাকার দুর্লভ ঘটনা জানালেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: চীন থেকে ছড়ানো মহামারী করোনাভাইরাস সংক্রমণ পুরো বিশ্বকে কাঁপিয়ে দিয়েছে। আর চীন সরকারের বৃত্তি নিয়ে উহানে লেখাপড়া করছেন বাংলাদেশি ছাত্র জোবায়ের হক জিসান। উহান ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির মাস্টার্স ইন ভেহিকল ইঞ্জিনিয়ারিং-এর ছাত্র তিনি। চীনের করোনা সংক্রমিত এলাকা হিসেবে উহানের অবস্থান শীর্ষে। 

আর এমন ভয়াবহ সংক্রমিত স্থানে থেকেও কিভাবে নিজেকে সংক্রমণমুক্ত রাখলেন তিনি, সে বিষয়ে ফেসবুকে বিভিন্ন সময় পোস্ট দিয়েছেন এই বাংলাদেশি।  একটি পোস্টে তিনি জানান, ‘উহানে আমি কিভাবে এখনও সুস্থ আছি?

জানালেন পরামর্শ: 

১। শহর লকডাউন হবার পর থেকে একবারও কারো সাথে মিশিনি।

২। ভিটামিন সি সাপ্লিমেন্ট নিয়েছি প্রতিদিন।

৩। ইনডোর এক্সারসাইজ করেছি প্রতিদিন।

৪। নেগেটিভ তাপমাত্রাতেও প্রতিদিন গোসল করে পরিচ্ছন্ন থেকেছি।

৫। দিনে ৭-১০ বার হ্যান্ডওয়াস দিয়ে হাত ধুয়েছি।

৬। হাঁচি দেওয়ার সময়, সবসময় টিস্যু ব্যাবহার করেছি।

৭। রুম এর বাহিরে গেলে মাস্ক ব্যাবহার করছি যদিও ২/১ বার বাহিরে গেছি।

৮। মনকে ভালো রাখার জন্য মাঝে মাঝে কমেডি শো দেখেছি।

৯। নামাজে আল্লাহর কাছে দোয়া করেছি।’

তিনি তার আরেক পোস্টে লেখেন, ‘জ্বর/সর্দি/মাথাব্যথা হলেই একেবারে ভেঙ্গে পরবেন না। আবহাওয়া পরিবর্তনের কারণেও এরকম হতে পারে। ৩/৪ দিন আমিও অসুস্থ ছিলাম পরে জেনেছি এটা ঠাণ্ডাজনিত। মানসিকভাবে শক্ত হোন, ঠাণ্ডা মাথায় পদক্ষেপ নিন।’

এখন উহানে আক্রান্তের সংখ্যা শূন্য, এরপরেও নিরাপত্তার কমতি নেই। আপনারা কোন আনন্দে গায়ে হাওয়া লাগিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন?

বরাবরই বলে আসছি জনসমাগম এড়িয়ে চলুন। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন। আপনারা শিক্ষিত হয়েও কেন এরকম খামখেয়ালিপনা করছেন? নিজের, পরিবারের, দেশের কথা চিন্তা করুন। জনসচেতনতা বাড়াতে গিয়ে ভিড় করলে, লাভের চেয়ে ক্ষতি বেশি। দুরুত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করুন। একান্ত প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাহিরে যাবেন না। করোনা প্রতিরোধের নিয়ম কানুন মেনে চলুন। 

নিজে মানসিকভাবে শক্ত হোন , অন্যকেও মানসিক ভাবে সহায়তা করুন। মনকে প্রফুল্ল রাখুন, ভেঙ্গে পরবেন না। মনের শক্তি দিয়ে বড় বড় দুর্যোগ এবং রোগকেও মোকাবিলা করা যায়। ইন শা আল্লাহ সব ঠিক হয়ে যাবে।’

এদিকে, সারাবিশ্বে এই মুহূর্তে আক্রান্ত অবস্থায় রয়েছেন ১ লাখ ৯৯ হাজার ৬৯৪ জন, যাদের মধ্যে ৫ শতাংশ ৯ হাজার ৯৪৩ জন গুরুতর অবস্থায় এবং মৃদু সংক্রমিত অবস্থায় আছেন ৯৫ শতাংশ ১ লাখ ৮৯ হাজার ৭৫১ জন। 

সোনালীনিউজ/এমএএইচ