• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯

সচিবালয়ের ন্যায় পদবি পরিবর্তনের দাবি


নিজস্ব প্রতিবেদক আগস্ট ৭, ২০২২, ০৭:২৯ পিএম
সচিবালয়ের ন্যায় পদবি পরিবর্তনের দাবি

ঢাকা: বাংলাদেশ সচিবালয়, বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট (হাইকোর্ট ও আপীল বিভাগ), বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন, জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের ন্যায় পদবী পরিবর্তন চান অধিদপ্তর ও পরিদপ্তরের প্রধান সহকারী-উচ্চমান সহকারীরা।

গত ৫ আগস্ট (শুক্রবার) রাজধানীতে এক সভায় এ দাবি জানায় বাংলাদেশ আন্তঃঅধিদপ্তর প্রধান সহকারী-উচ্চমান সহকারী কল্যাণ সমিতি।   

সমিতির সভাপতি মো: আলাউদ্দিন-এর সভাপতিত্বে এবং মহাসচিব মোঃ মোজাম্মেল হক এর সঞ্চালনায় উক্ত সভায় বিভিন্ন অধিদপ্তরের প্রধান সহকারী, উচ্চমান সহকারী ও সমমান পদ এবং ফিডার পদধারীগণ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় সংগঠনের সভাপতি মো: আলাউদ্দিন স্বাগত বক্তব্যে বলেন, স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে ১৯৭৭ সালের ঘোষিত জাতীয় বেতন স্কেলে সকল সরকারি প্রতিষ্ঠানের (সচিবালয়ের ভিতর ও বাহির উচ্চমান সহকারী ও প্রধান সহকারী) উচ্চমান সহকারী পদ জাতীয় বেতন স্কেলের একই গ্রেডে চৌদ্দ (১৪) নির্ধারিত ছিল। ১৯৯৫ সালে শুধুমাত্র বাংলাদেশ সচিবালয়ের ভিতরের প্রধান সহকারী ও উচ্চমান সহকারী পদের দায়িত্ব সুবিধাদি/বেতন স্কেল, কর্মপরিধি ও পদমর্যাদা অপরিবর্তিত রেখে প্রশাসনিক কর্মকর্তা করা হয়। যা পরবর্তীতে ১৯৯৭ সালে গ্রেড ১১ এবং ১৯৯৯ সালে গ্রেড ১০ এ উন্নীত করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট (হাইকোর্ট বিভাগ ও আপীল বিভাগ), বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন ও জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের উচ্চমান সহকারী/প্রধান সহকারী পদবীও একই ভাবে পরিবর্তন করে প্রশাসনিক কর্মকর্তা করাসহ গ্রেড ১০ এ উন্নীত করা হয়েছে।

সংগঠনের মহাসচিব মো: মোজাম্মেল হক বলেন, বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন অধিদপ্তরে কর্মরত উচ্চমান সহকারী, প্রধান সহকারী ও সমস্কেলভূক্ত পদধারী প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীগণ সরকারের নীতি নির্ধারকগণের নিকট নথি ব্যবস্থাপনাসহ পত্রলিখনাদির মতো সরকারের বিভিন্ন কাজ ও গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচি প্রতিপালন করে থাকেন। বাংলাদেশ সচিবালয়, বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট (হাইকোর্ট ও আপীল বিভাগ), বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন, জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের উচ্চমান সহকারী ও প্রধান সহকারীগণকে প্রশাসনিক কর্মকর্তা পদে উন্নীত করা হলেও অধিদপ্তর ও পরিদপ্তর পর্যায়ে এরুপ পদের পদধারীদের বিষয়ে পদবী পরিবর্তনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। যা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সংবিধানের ২৭ নং অনুচ্ছেদের পরিপন্থী। যার প্রেক্ষিতে প্রজাতন্ত্রের এ সকল কর্মচারীদের মধ্যে হতাশা ও ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, আমরা ২০০৯ সাল থেকে এ দাবি বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে আসছি। বর্তমানে এ দাবি বাস্তবায়ন সংক্রান্ত জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কমিটি বিভিন্নভাবে কালক্ষেপন করছে। এ বিষয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীর ব্যক্তিগত হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

উক্ত সভায় সংগঠনের সভাপতি অবসরজনিত কারণে বিদায় নেওয়ায় মহাসচিব মো: মোজাম্মেল হককে সভাপতি এবং খাদ্য অধিদপ্তরের প্রধান সহকারী মো: মমিনুর রশিদ সিদ্দিকীকে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বপালনের সিদ্ধান্ত সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়। উক্ত সভায় দাবি বাস্তবায়ন বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন মো: মমিনুর রশিদ সিদ্দিকী, প্রধান সহকারী, খাদ্য অধিদপ্তর; জিয়াউল হক, উচ্চমান সহকারী, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর; শেখ মো: আমিন উল্লাহ, উচ্চমান সহকারী, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর; মো: গোলাম মোস্তফা, উচ্চমান সহকারী, বিটিসিএল; আশফাকুল আশেকিন, সাঁটমুদ্রাক্ষরিক, পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট; মো: আবুল কালাম আজাদ, উচ্চমান সহকারী, বাংলাদেশ পুলিশ; মো: মুশফিকুর রহমান, বাংলাদেশ বেতার; মো: জাহাঙ্গীর হোসেন, উচ্চমান সহকারী, মাতৃসদন ও শিশু হাসপাতাল;  মো: গোলাম আহাদ, অভ্যান্তরীণ নিরীক্ষা পরিদপ্তর ছাড়াও বিভিন্ন দপ্তরের কর্মচারীগণ বক্তব্য রাখেন।

সোনালীনিউজ/আইএ

Wordbridge School
Sonali IT Pharmacy Managment System