• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২১, ১৪ মাঘ ১৪২৭

ম্যারাডোনার সম্পদ নিয়ে স্ত্রী বান্ধবীদের মাঝে দ্বন্দ্ব


ক্রীড়া ডেস্ক নভেম্বর ৩০, ২০২০, ১২:১১ পিএম
ম্যারাডোনার সম্পদ নিয়ে স্ত্রী বান্ধবীদের মাঝে দ্বন্দ্ব

ঢাকা: ম্যারাডোনার সবশেষ বান্ধবী রোসিও অলিভাকে শেষকৃত্যে ঢুকতে দেননি তার সাবেক স্ত্রী ক্লাদিয়া ভিয়াফান। গণমাধ্যমে এনিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অলিভা। আর কিংবদন্তির সম্পদ নিয়েও তৈরি হয়েছে দ্বন্দ্ব।

ক্লাদিয়া কোনভাবেই আর ম্যারাডোনার সম্পদের উত্তরাধিকার নন বলে মন্তব্য করেছেন আর্জেন্টিনার এক আইনজীবী। তার মতে আদালতে ম্যারাডোনার বৈধ পাঁচ সন্তানই শেষ পর্যন্ত সম্পদের বড় অংশের উত্তরাধিকার পাবে।

ম্যারাডোনার পরিবারের একজন হিসেবে তাকে শেষবিদায় জানাতে পারেননি রোসিও অলিভা। ম্যারাডোনার জীবনে আসা অগণিত নারীর সর্বশেষ জন এই অলিভা। শেষকৃত্যে অলিভাকে ঢুকতে দেননি ম্যারাডোনার সাবেক স্ত্রী ক্লাদিয়া ভিয়াফান।

ক্ষোভ প্রকাশ করে রোসিও অলিভা বলেন, ভিয়াফান সেখানে আমাকে ঢুকতে দেয়নি। জানি না সে কেন আমার সঙ্গে কেন এমন করলো? শুধু শেষবিদায় জানাতে চেয়েছিলাম। আমি ছিলাম দিয়েগোর শেষ সঙ্গী। বাকিদের তার ওপর যতটা অধিকার, আমারও তাই। সৃষ্টিকর্তা সব দেখছেন। একদিন এর মূল্য দিতে হবে।

মূল্যের হিসেব-নিকেশ ইতিমধ্যে করতে শুরু করেছে তার উত্তরাধিকারে। ম্যারাডোনার রেখে যাওয়া স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ নিয়ে সাবেক স্ত্রী, বান্ধবী ও সন্তানদের দ্বন্দ্ব যুদ্ধে রূপ নেয়ার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। কারণ বাড়ি, গাড়ি ও স্পন্সর চুক্তি মিলিয়ে প্রায় ৯০ মিলিয়ন ডলারের সম্পদ রেখে গেছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল কিংবদন্তি।

তবে লড়াইটা যে মূলত বৈধ পাঁচ সন্তানের সেটিও স্পষ্ট করেছেন আইনজীবী মার্টিন অ্যাপোলো। কারণ, প্রথমত ক্লাদিয়া ভিয়াফান আর তার বৈধ স্ত্রী ছিলেন না, পরবর্তীতে আর কোনও বৈধ স্ত্রীও ছিল না ম্যারাডোনার।

বুয়েন্স এইরেস’র আইনজীবী মার্টিন এপোলো বলেন, ক্লাদিয়া যা করছেন তা অনুচিত। তিনি অনেক আগেই তার অধিকার হারিয়েছেন। কারণ ম্যারাডোনা তাকে তালাক দিয়েছেন। ম্যারাডোনা আর কোনও বিয়েও করেননি। সুতরাং তার বৈধ পাঁচ সন্তানই হবে সম্পদের বড় দাবিদার। কারণ তাঁরাই ম্যারাডোনার পরিচয় বহন করছে।

স্বীকৃত পাঁচের বাইরে স্বীকৃতি না পাওয়া আরও ছ’জন নিজেদের ম্যারাডোনার সন্তান বলে দাবি করেন। সব মিলিয়ে ম্যারাডোনার উত্তরাধিকারের লড়াইটা আদালতে গড়াবে এটা এখন নিশ্চিত।

সোনালীনিউজ/টিআই