• ঢাকা
  • শনিবার, ৩১ জুলাই, ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮
abc constructions

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে মাটিতে নামালো অস্ট্রেলিয়া 


ক্রীড়া ডেস্ক জুলাই ২১, ২০২১, ১২:০৮ পিএম
ওয়েস্ট ইন্ডিজকে মাটিতে নামালো অস্ট্রেলিয়া 

ঢাকা: উড়তে থাকা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে মাটিতে নামালো অস্ট্রেলিয়া। টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়াকে এক প্রকার নাকানি-চুবানি খাইয়েছে ক্যারিবিয়রা। পাঁচ ম্যাচের সিরিজ ৪-১ ব্যবধানে জিতে নেয় স্বাগতিকরা। কিন্তু প্রথম ওয়ানডেতেই অন্য এক অস্ট্রেলিয়াকে দেখা গেল। তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ডাকওয়ার্থ-লুইস-স্টার্ন পদ্ধতিতে অস্ট্রেলিয়ার জয় ১৩৩ রানে।

বারবাডোজে মঙ্গলবার প্রথম ইনিংসের মাঝপথে নামা বৃষ্টিতে ম্যাচ নেমে আসে ৪৯ ওভারে। অস্ট্রেলিয়া তোলে ২৫২ রান। ডিএলএস পদ্ধতিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৫৭। তারা গুটিয়ে যায় স্রেফ ১২৩ রানেই। নতুন বলে ৮ ওভারের ক্যারিবিয়ান ব্যাটিংয়ের মেরুদণ্ড ভেঙে দেন স্টার্ক ও হেইজেলউড। ২৭ রানে হারায় তারা ৬ উইকেট। 

স্টার্কের তখন ২৩ রানে উইকেট ৩টি, হেইজেলউডের বোলিং বিশ্লেষণ ৪-১-৩-৩! স্টার্ক পরের দিকে এক ওভারে নেন আরও দুই উইকেট। ওয়ানডেতে অষ্টমবার ৫ উইকেট শিকার করে ম্যান অব দা ম্যাচ তিনিই। ৬ ওভারের প্রথম স্পেলের পর হেইজেলউডকে আর প্রয়োজনই হয়নি।

ওয়ার্নার-স্মিথ-ম্যাক্সওয়েল-কামিন্স-স্টয়নিসরা তো এই সফরেই আসেননি, ম্যাচের আগে ছিটকে যান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চও। তবে অধিনায়কত্বের অভিষেকে ব্যাট হাতে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন অ্যালেক্স কেরি। ব্যাটিংয়ের জন্য বেশ কঠিন উইকেটে তার ৬৭ রানের ইনিংস ম্যাচের সর্বোচ্চ। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে অভিষেক হয় তিন জনের, দুই ব্যাটসম্যান জশ ফিলিপি, বেন ম্যাকডারমট ও পেসার ওয়েস অ্যাগার। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা দলকে ভালো শুরু এনে দেন ফিলিপি ও ম্যাকডারমট। ৫১ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন দুজন।

২৫ ওভারের বেশি উইকেটে কাটিয়ে ম্যাকডারমট আউট হন ৪৮ বলে ২৮ রান করে। কেয়ারি ও অ্যাশটন টার্নারের জুটি সেখান থেকে টেনে নেয় দলকে। পঞ্চম উইকেটে ১০৪ রানের গুরুত্বপূর্ণ জুটি গড়েন দুজন। শেষদিকে যখন ঝড় তোলার পালা, তখন ৫ ওভারের মধ্যে অস্ট্রেলিয়া হারায় ৫ উইকেট। সবকটিই নেন ওয়ালশ। শুরুটা হয় কেরিকে দিয়ে। ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৮৭ বলে ৬৭ করে থামেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক। দেড় বছর পর ওয়ানডে খেলতে নেমে টার্নার আউট হন ৪৫ বলে ৪৯ রান করে। পরে আর দ্রুত রান তুলতে পারেন নি কেউ।

লক্ষ্য তাড়ায় ক্যারিবিয়ান ব্যাটিং প্রায় ধ্বংসস্তুপ। অ্যাডাম জ্যাম্পাকে পাল্টা আক্রমণে কাইরন পোলার্ড চেষ্টা করেন লড়ে যাওয়ার। ৪১ বলে ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক স্পর্শ করেন ফিফটি। তবে পুরনো বলে ফিরে এক ওভারেই স্টার্ক নেন পোলার্ড ও আকিল হোসেনের উইকেট। বিশাল ব্যবধানে জিতে আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগের ১০টি পয়েন্ট পায় অস্ট্রেলিয়া। এখন তার পয়েন্ট তালিকার তিনে, ৫০ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশের পেছনে। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ আগামীকাল একই মাঠে।

সোনালীনিউজ/এআর

Haque Milk Chocolate Digestive Biscuit
Dutch Bangla Bank Agent Banking
Wordbridge School