• ঢাকা
  • রবিবার, ২৬ মে, ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

এসডিজি বাস্তবায়ন ও স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে এনজিওদের কাজ করার আহ্বান  


নিজস্ব প্রতিবেদক সেপ্টেম্বর ৭, ২০২৩, ০৫:৫৬ পিএম
এসডিজি বাস্তবায়ন ও স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে এনজিওদের কাজ করার আহ্বান  

ঢাকা: বাংলাদেশ টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) বাস্তবায়নের সকল সূচকে আগ্রগতি অর্জন করেছে। এই অগ্রগতিকে ধরে রাখতে সরকারি-বেরসকারি সকল সংস্থার কার্যক্রমে অধিকতর গতিশীলতা ও সহযোগিতার ওপর গুরুত্বারোপ করেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আখতার হোসেন। এসময় ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত ও স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে সরকারি-বেরসকারি সকল প্রতিষ্ঠানসমূহকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার (৭ সেপ্টেম্বর) ঢাকার আগারগাঁওস্থ পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) ভবনে ‘বাংলাদেশে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) বাস্তবায়নে এনজিওদের ভূমিকা’ শীর্ষক একটি সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পিকেএসএফ-এর চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ এবং স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন পিকেএসএফ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. নমিতা হালদার এনডিসি ।

সভায় এসডিজি বিষয়ক উপস্থাপনা প্রদান করেন মোঃ মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব (এসডিজি), প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। সভায় ‘এসডিজি বাস্তবায়নে এনজিওদের ভূমিকা’ বিষয়ক উপস্থাপনা প্রদান করেন মোঃ মশিয়ার রহমান, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক, পিকেএসএফ।

পিকেএসএফ-এর চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান সারাজীবন দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটানোর জন্য সংগ্রাম করেছেন। পিকেএসএফ-এর সকল কাজের মূল দর্শন হচ্ছে এই দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটানো। এ লক্ষ্যে পিকেএসএফ সকল কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বাংলাদেশের জনসংখ্যার ২৭% এর বয়স ২৫-২৯ বছর। এই তরুণদের জন্য প্রয়োজনীয় শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও কাজের সুযোগ সৃষ্টি করার জন্য কাজ করতে তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানান।     

পিকেএসএফ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. নমিতা হালদার বলেন, ক্ষুধা নিবারণ এবং দারিদ্র্য বিমোচন থেকে শুরু করে শান্তি ও সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠায় এসডিজি’র বেশীরভাগ লক্ষ্য অর্জনে পিকেএসএফ কাজ করছে। তিনি বলেন, বিগত তিন দশকে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক অগ্রগতিতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছে পিকেএসএফ।

এএইচ/আইএ

Wordbridge School
Link copied!