• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১

আন্তর্জাতিক জুয়েলারি মেশিনারিজ প্রদর্শনী শুরু ৪ জুলাই


নিজস্ব প্রতিবেদক জুন ২৪, ২০২৪, ০৪:১৮ পিএম
আন্তর্জাতিক জুয়েলারি মেশিনারিজ প্রদর্শনী শুরু ৪ জুলাই

ঢাকা: ‘গহনায় হোক প্রযুক্তির ছোঁয়া’ এই প্রতিপাদ্য নিয়ে আগামী ৪ জুলাই শুরু হচ্ছে প্রথম আন্তর্জাতিক জুয়েলারি মেশিনারিজ প্রদর্শনী বাংলাদেশ ২০২৪। ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) এই প্রদর্শনী চলবে ৬ জুলাই পর্যন্ত।

আন্তর্জাতিক জুয়েলারি মেশিনারিজ আয়োজন করেছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স অ্যাসোসিয়েশন (বাজুস)। প্রদর্শনী দেখতে কোনো টিকিট লাগবে না। এতে বিশ্বের ১০টি দেশের ৩০টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে।

সোমবার (২৪ জুন) বাজুস কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাজুসের সাধারণ সম্পাদক বাদল চন্দ্র রায়, মুখপাত্র ও বাজুসের কার্যনির্বাহী সদস্য ডা. দিলীপ কুমার রায়, সহ-সভাপতি সমিত ঘোষ অপু, বাজুসের উপদেষ্টা রুহুল আমিন রাসেল, কেএনসি সার্ভিসেসের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ক্রান্তি নাগভেকার।

সংবাদ সম্মেলনে প্রদর্শনীর বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরেন বাজুসের সহ-সভাপতি সমিত ঘোষ অপু। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক জুয়েলারি মেশিনারিজ প্রদর্শনী বাংলাদেশ ২০২৪ এর আয়োজন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, দেশের জুয়েলারি শিল্পের উন্নয়ন ও নতুন নতুন শিল্প কারখানা স্থাপনে বিনিয়োগকারীদের উৎসাহিত করার জন্য এই প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। এই প্রদর্শনী আগামী ৪ জুলাই শুরু হয়ে শেষ হবে ৬ জুলাই।

তিনি আরও বলেন, এই প্রদর্শনী ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা (আইসিসিবি) হল- ০২, পুষ্পগুচ্ছ ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত প্রদর্শনী দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। এই প্রদর্শনীতে প্রবেশের জন্য কোনো টিকিট লাগবে না।

অপু বলেন, প্রথম আন্তর্জাতিক জুয়েলারি মেশিনারিজ প্রদর্শনী বাংলাদেশ ২০২৪ এ অংশ নিচ্ছে ভারত, ইতালি, তুরস্ক, সংযুক্ত আরব আমিরাত, জার্মানি, চীন ও থাইল্যান্ডসহ বিশ্বের প্রায় ১০টি দেশের ৩০টি প্রতিষ্ঠান।

এই প্রদর্শনীর ফলে বিশ্বের আধুনিক মেশিনারিজের সাথে এই খাতের ব্যবসায়ীদের পরিচিতি ঘটবে। যার ফলে বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আধুনিক জুয়েলালি শিল্প কারখানা স্থাপনের সুযোগ সৃষ্টি হবে- বলে অভিমত দেন সোনা ব্যবসায়ীদের এই নেতা।

তিনি বলেন, নতুন নতুন শিল্প কারখানা স্থাপিত হলে জুয়েলারি শিল্পের বিকাশ ও রপ্তানির দুয়ার উন্মোচিত হবে। এদেশে স্বর্ণ শিল্পের হারানো ঐতিহ্য আবার ফিরে পাবে। আমাদের দেশের কারিগর বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আধুনিক ডিজাইনের গহনা তৈরি করতে সক্ষম হবে।

তিনি আরও বলেন, দেশের স্বর্ণ শিল্পীদের গড়া নিত্যনতুন আধুনিক ডিজাইনের অলংকারের পরিচিতি বাড়বে। বাজুস আশা করছে এই প্রদর্শনী দেশীয় জুয়েলারি শিল্পকে সমৃদ্ধশালী করার পাশাপাশি বিশ্ববাজারে একটি নতুন অবস্থান তৈরিতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

এআর

Wordbridge School
Link copied!