• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০৮ ডিসেম্বর, ২০২৩, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪৩০
গাজীপুর সিটি নির্বাচন

২৫ তারিখে ভোট, ২৬ তারিখে ফলাফল!


নিজস্ব প্রতিবেদক  মে ২৬, ২০২৩, ১২:৩২ এএম
২৫ তারিখে ভোট, ২৬ তারিখে ফলাফল!

ঢাকা: সারাদেশের মানুষের চোখ এখন গাজীপুর সিটি করপোরেশন (গাসিক) নির্বাচনের ফলাফলের দিকে। এবারের নির্বাচনে কে জয়ী হবেন? কে হচ্ছেন গাজীপুরের নগরপিতা। 

নির্বাচনে মোট কেন্দ্র ৪৮০টি। এর মধ্যে ৪৫০ কেন্দ্রের ফলাফল অসমর্থিত সূত্রে পাওয়া গেছে। এতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আজমত উল্লা নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ১ লাখ ৮৫ হাজার ৩৭৯ ভোট। স্বতন্ত্র প্রার্থী জায়েদা খাতুন টেবিল ঘড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ২ লাখ ৫ হাজার ৪১৩ ভোট।

ফলাফল নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ অনেকেই মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। মো. তৌহিদুল ইসলাম নামে একজন লিখেছেন, “২৫ তারিখের ভোট ২৬ তারিখে গিয়ে ঠেকলো, এরপরও ইভিএমে বিশ্বাস রাখছি! সকল গণমাধ্যমে দেখছি ঘড়ি (জায়েদা) এগিয়ে আছে। কিন্তু অভিনন্দন জানাচ্ছে আজমত চাচাকে। সঠিক কোনটা?”

আসাদ সবুজ নামে একজন লিখেছেন, “রাইত ফুডা ওইয়া যাইবে মনে কয়। বৃহস্পতিবার ভোট গ্রহণ করলো, শুক্রবার হয়ে গেল,  ফলাফল এখনো অসমাপ্ত।”

মো. খায়রুল আকাশ নামে একজন লিখেছেন, “গাজীপুরের ফলাফল হবে হিরো আলমের মতো এগিয়ে থেকে পিছিয়ে যাইবে।”

এভাবে অসংখ্য মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে মন্তব্য করেছেন। 

এর আগে সকাল ৮টায় শুরু হয়ে ভোটগ্রহণ একটানা চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। সকাল থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ভিড় করেন ভোটাররা। নির্বাচন নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ ছিল না প্রার্থীদের। 

সকাল থেকেই বিভিন্ন কেন্দ্রের সামনে ছিল ভোটারদের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতি। বিশেষ করে নারী ভোটারদের সংখ্যা ছিল চোখে পড়ার মতো। তবে দুপুরের দিকে ভোটার উপস্থিতি কিছুটা কমে যায়।

নগরে এই প্রথম ইভিএমে ভোট হয়। এ প্রযুক্তির সঙ্গে অনেক ভোটারই অপরিচিত। যে কারণে অনেক কেন্দ্রেই ভোটগ্রহণে ছিল ধীরগতি। বিশেষ করে নারী ও বয়স্করা কিছুটা জটিলতায় পড়েন। তবে তরুণরা স্বাচ্ছন্দ্যেই ভোট দিয়েছেন।

গাজীপুর সিটিতে মেয়র পদে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে আওয়ামী লীগের আজমত উল্লা খান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী জায়েদা খাতুনের মধ্যে। দুজনের জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। তাদের মতোই ভোটের পরিবেশ ভালো বলে জানান আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহনূর ইসলাম রনি। ভোটের পরিবেশ নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন তিন মেয়র প্রার্থী আজমত উল্লা খান, শাহনূর ইসলাম রনি এবং জায়েদা খাতুন। এ ছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৪৬ জন ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ৭৯ জন প্রার্থী আছেন। সাধারণ ওয়ার্ডে একজন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মোট ভোটার ১১ লাখ ৭৯ হাজার ৪৬৩ জন। পুরুষ ৫ লাখ ৯২ হাজার ৭৬২ জন, ৫ লাখ ৮৬ হাজার ৬৯৬ জন নারী এবং ট্রান্সজেন্ডার ১৮ জন ভোটার।

সোনালীনিউজ/এম

Wordbridge School
Link copied!