• ঢাকা
  • সোমবার, ১৭ জুন, ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১

জনপ্রতিনিধিদের আয়ের উৎস অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত


নিজস্ব প্রতিবেদক মে ৩০, ২০২৪, ১২:৪৭ পিএম
জনপ্রতিনিধিদের আয়ের উৎস অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত

ঢাকা : আনারের হত্যাকাণ্ডের পর জনপ্রতিনিধিদের ব্যক্তিগত বিষয়গুলো খোঁজ খবরের আওতায় আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কারণ হত্যাকাণ্ডটি একটি অন্ধকার জগৎ উন্মোচন করে দিয়েছে।

তাই একাধিক সংস্থা জনপ্রতিনিধিরা কি করেন, তাদের আয়ের উৎস কি, তারা কোথায় চলাফেরা করেন ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয়ে নতুন করার তথ্য সংগ্রহ  শুরু করা হয়েছে।

১২ মে  চিকিৎসার জন্য কলকাতায় গিয়ে পরিকল্পিত ও নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার হন এমপি আনোয়ারুল আজীম। এরপরই একে একে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর বিভিন্ন তথ্য। হত্যার নৈপথ্যে চোরাকারবারি ও আন্ডারওয়ার্ল্ডের যোগসাজশ ছিল বলেও গণমাধ্যমের বিভিন্ন প্রতিবেদনে উঠে আসে।

ফলে একদিকে যেমন সরকারের জন্য বিব্রতকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে, তেমনই এই ঘটনাটি জনপ্রতিনিধিদের সম্বন্ধে সাধারণ মানুষের মধ্যে নেতিবাচক ধারণা সৃষ্টি করেছে। আর এ কারণেই জনপ্রতিনিধিদের কার্যকলাপ ও আয়ের উৎস অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে সরকারের দায়িত্বশীল একটি সূত্র।

সূত্রমতে, আনারের হত্যাকাণ্ডের পর জনপ্রতিনিধিদের ব্যক্তিগত বিষয়গুলো খোঁজ খবরের আওতায় আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কারণ হত্যাকাণ্ডটি একটি অন্ধকার জগৎ উন্মোচন করে দিয়েছে। তাই একাধিক সংস্থা জনপ্রতিনিধিরা কি করেন, তাদের আয়ের উৎস কি, তারা কোথায় চলাফেরা করেন ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয়ে নতুন করার তথ্য সংগ্রহ  শুরু করা হয়েছে বলে জানা যায়।

অন্যদিকে এবার উপজেলা নির্বাচনেও  কোটিপতিদের ছড়াছড়ি লক্ষ্য করা গেছে। তারা এই বিত্তবৈভব কিভাবে বানিয়েছেন, তাদের আয়ের উৎস কি- সে সম্পর্কে যেমন খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে, তেমনই যারা  জনপ্রতিনিধি হয়েছেন তারা কি ধরনের ব্যবসা করছেন এবং অনৈতিক কোন কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত কিনা সে ব্যাপারেও অনুসন্ধান শুরু হচ্ছে বলে জানা গেছে। ধাপে ধাপে এই অনুসন্ধানগুলো চলবে বলে সরকারের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছে।

এমটিআই

Wordbridge School
Link copied!