• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১

হাফেজ বশিরের বিশ্বজয়


ধর্মচিন্তা ডেস্ক ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২৪, ১১:৫২ এএম
হাফেজ বশিরের বিশ্বজয়

ঢাকা : আমাদের কিশোর হাফেজরা বিশ্বদরবারে বারবার বাংলাদেশের নামকে সমুন্নত করছেন। তাদের সৌজন্যে আন্তর্জাতিক মঞ্চে বারবার অলংকৃৃত হচ্ছে বাংলাদেশের পতাকা। তারা পৃথিবীর সব হাফেজকে পেছনে ফেলে বারবার ছিনিয়ে আনছেন প্রথম পুরস্কার।

আন্তর্জাতিক পর্যায়ে শেষ এক দশকে আমাদের কিশোর হাফেজদের বিশ্বজয়ী হওয়ার মতো বড় বড় কীর্তি এবং ভারী ভারী পুরস্কার অর্জনের ভিত্তিতে বলা যায়, ইতিমধ্যে তারা পৃথিবীবাসীর সামনে বাংলাদেশের জন্য প্রচণ্ড সম্মান ও গৌরবময় এক অধ্যায়ের সূচনা করেছেন।

বিশ্বজয়ে বাংলাদেশের এই গৌরবময় অধ্যায় বিরামহীনভাবে দীর্ঘ হচ্ছে। এবার বিশ্বজয় করে দেশে ফিরেছেন হাফেজ বশির আহমদ। চলতি মাসের ২১ তারিখ ইরানে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় ১১০টি দেশের মধ্যে ৩০ পারা গ্রুপে প্রথম স্থান অর্জন করেন হাফেজ বশির।

ইরানের এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের ১০ দিন আগে আলজেরিয়ার রাজধানী আলজিয়ার্সে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অর্জন করেন হাফেজ বশির। এছাড়াও ২০২১ সালে এন টিভিতে তিনি প্রথম হয়েছিলেন এবং ২০২২ সালে হুফফাজুল কোরআন ফাউন্ডেশনের প্রতিযোগিতায়ও তার প্রথম স্থান অর্জন করার রেকর্ড রয়েছে।

হাফেজ বশির ঢাকার মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদ্রাসার ছাত্র। মাদ্রাসার অধ্যক্ষ নেছার আহমাদ আন নাছিরী বলেন, ‘বশির অনেক মেধাবী একজন ছাত্র। সে মাত্র পাঁচ মাসে হিফজ শেষ করেছে।’

হাফেজ বশির আহমদ হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার বেগুনাই গ্রামের আবদুর রশিদ ও বুশরা চৌধুরীর ছেলে। চার ভাইবোনের মধ্যে সে সবার বড়। পরিবারের প্রথম ও বড় সন্তান হওয়ায় মা-বাবার একটু বাড়তি প্রত্যাশাই ছিল তার প্রতি। তার বাবা লাখাই উপজেলার একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সহকারী অধ্যাপক। তার বাবা বলেন, ‘আমি চাই সে যেন বিশ্ববরেণ্য আলেম হতে পারে এবং ইসলামের খেদমত করতে পারে।’

হাফেজ বশির আল কোরআনিক সায়েন্স বিষয় নিয়ে মদিনা বিশ্ববিদ্যালয় অথবা আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে চান এবং কর্মজীবনে হারামাইনের ইমাম হয়ে ইসলামের খেদমত করতে চান।

ইতিপূর্বে বিভিন্ন দেশে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে নাজমুস সাকিব, আবদুল্লাহ আল মামুন, তরিকুল ইসলাম, সাইফুর রহমান ত্বকী, ইয়াকুব হোসাইন তাজ, আবু রায়হান, সালেহ আহমদ তাকরিম প্রমুখ প্রথম স্থান অর্জন করেন।

এমটিআই

Wordbridge School
Link copied!