• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১

চলনবিলে খিরার বাম্পার ফলনে খুশি কৃষকরা


নাটোর প্রতিনিধি মার্চ ২৯, ২০২৩, ০১:৫৮ পিএম
চলনবিলে খিরার বাম্পার ফলনে খুশি কৃষকরা

নাটোর: চলনবিল অধ্যুষিত নাটোরের সিংড়ায় চলতি বছরে ১৭০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের খিরা ও শসা চাষ করা হয়েছে। এ বছর প্রাকৃতিক দুর্যোগ না থাকায়, বীজ-সার এবং কীটনাশক সূলভমূল্যে পাওয়ায় খিরার বাম্পার ফলন হয়েছে। আশানুরুপ ফলন পাওয়ায় খুশি কৃষকরা।

উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, এ বছর সিংড়া উপজেলার বিয়াশ, আয়েশ, ঠেংগাপাকুরিয়া, ডাহিয়া, সরিষাবাড়ী, গাড়াবাড়ী, পারিল, বড়গ্রাম, আজিমপুর, ক্ষীরপোতা, পিপুলশন গ্রামের মাঠের পর মাঠ যেদিকে চোখ যায় শুধু খিরা আর খিরা।

চলনবিলে ব্যাপক খিরা উৎপাদন হওয়ায় প্রতি মণ খিরা ৫০০-৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কৃষকরা আশা করছেন দাম আরও বৃদ্ধি পাবে।

উপজেলার ডাহিয়া ইউনিয়নের বিয়াশ গ্রামের কৃষক আমজাদ হোসেন জানান, এ বছর ১ বিঘা জমিতে খিরার আবাদ করতে খরচ হয়েছে ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা। আশা করছি খরচ বাদে ৫০ হাজার থেকে ৬০ হাজার টাকা লাভ হবে।

জসিম আলী, নাসির উদ্দীনসহ একাধিক কৃষক জানান, এলাকায় খিরা চাষের জন্য প্রতি বিঘা জমি ২০ হাজার টাকায় লিজ নেওয়া হয়েছে। কারণ, খিরা চাষ লাভবান হওয়ায় খিরা চাষে ঝুঁকছেন এ অঞ্চলের কৃষকরা। আর যাদের নিজস্ব জমি আছে তারা আরও বেশি লাভবান হচ্ছেন।

চলনবিলের খিরা স্থানীয় বিয়াশ, সাঁতপুকুরিয়া, সিংড়া হাটে চাহিদা পূরণের পর প্রতিদিন ট্রাকযোগে ঢাকা, চট্টগ্রাম, বগুড়া, পাবনা, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন শহরে চলে যাচ্ছে।

সিংড়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কুষিবিদ সেলিম রেজা জানান, সিংড়া উপজেলায় খাল খননের ফলে বন্যার পানি আগাম নেমে যাওয়ায় কৃষকরা আগাম চাষ করায় চলনবিলে খিরা চাষে কৃষকরা ব্যাপক সফলতা পেয়েছে। কৃষকরা বিঘা প্রতি খরচ বাদে ৪০-৪৫ হাজার টাকা করে লাভ করছেন। এভাবে আগামীতে কৃষকরা খিরা চাষে আরও উদ্যোগী হবেন।

সোনালীনিউজ/এজে/এসআই

Wordbridge School
Link copied!