• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১

ঘুমপাড়ানি চা


লাইফস্টাইল ডেস্ক সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২৩, ০১:২৬ পিএম
ঘুমপাড়ানি চা

ঢাকা : সারা দিন প্রচুর পরিশ্রম করার পর বিছানায় শোয়া মাত্রই দুই চোখের পাতা বুজে আসবে, এমনটাই আশা করি। কিন্তু ঘুমাতে গেলেই ব্যক্তিগত জীবন, সংসার, পেশা, ভবিষ্যৎ- নানা বিষয়ে চিন্তা মাথার মধ্যে জুড়ে বসে। এতে দিনের পর দিন ঘুমের ব্যাঘাত ঘটে এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয় শরীর ও মন। চোখের তলায় কালি পড়ে, ত্বক খসখসে হয়ে যাওয়াসহ নানাবিধ সমস্যা থেকে যায়।

যাদের অবসাদ, উদ্বেগের মতো সমস্যা রয়েছে, তাদের ক্ষেত্রে অনিদ্রা আরও ভয়ঙ্কর বিপদ ডেকে আনতে পারে। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে চিকিৎসকরা হালকা ডোজের ঘুমের ওষুধ দিয়ে থাকেন। তবে হালকা ডোজের ওষুধেরও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। তাই ওষুধের পরিমাণ এবং স্নায়বিক উত্তেজনা কমিয়ে রাতে যাতে ভালো ঘুম হয় তার জন্য রইল কিছু ভেষজ চায়ের খোঁজ।

ক্যামোমাইল চা : অনিদ্রাজনিত সমস্যায় প্রাচীনকাল থেকেই ক্যামোমাইল চায়ের ব্যবহার হয়ে আসছে। উদ্বেগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে, প্রদাহ নাশ করতে ক্যামোমাইল চায়ের জুড়ি মেলা ভার। একরকম ফুল থেকে তৈরি হয় এই চা। এর ফলে এই চায়ের মধ্যে ক্ষতিকর ক্যাফেইন থাকে না। তাই এই চা খেলে স্নায়ুর উত্তেজনা কম থাকে। ঘুম ভালো হয়। তবে যারা গর্ভবতী, তাদের এই চা এড়িয়ে চলারই পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

অশ্বগন্ধা চা : মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণ করতে অশ্বগন্ধা যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ একটি ভেষজ। স্নায়ুর উত্তেজনা প্রশমিত করতে, মনকে শান্ত রাখতে সাহায্য করে এই চা আর এতে ভালো ঘুম হয়। ইন্ডিয়ান জার্নাল অব সাইকোলজিক্যাল মেডিসিনে প্রকাশিত এক প্রবন্ধে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এই চা খেলে খুব সহজে সতেজ ও ফুরফুরে হওয়া যায়।

ব্রাহ্মী চা : ‘ব্রেন টনিক’ হিসেবে ব্যবহার করা হয় ব্রাহ্মী পাতার রস। এতে আছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। ক্যান্সার রোধ করার পাশাপাশি এটি আবার ডায়াবেটিসের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কমাতেও ভূমিকা রাখে। এছাড়া ব্রাহ্মী শাকের মধ্যে রয়েছে প্রাকৃতিক সেডেটিভ। তাই অনিদ্রাজনিত সমস্যায় দারুণ কাজ দেয় এই চা।

এমটিআই

Wordbridge School
Link copied!