• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১
ডাকাতি ও ধর্ষণ

খরচের ভয়ে বাসে ‘প্যানিক বাটন’ লাগায় না মালিকরা


নিজস্ব প্রতিবেদক আগস্ট ৪, ২০২২, ০৬:৫২ পিএম
খরচের ভয়ে বাসে ‘প্যানিক বাটন’ লাগায় না মালিকরা

ঢাকা: টাঙ্গাইলের মধুপুরে বাসে গণধর্ষণ ও ডাকাতির ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) কাজ করছে। যদিও ঘটনাটি টাঙ্গাইলের, তবে টাঙ্গাইল পুলিশের পাশাপাশি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশও কাজ করছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) বিকেলে রাজধানীর হোসনি দালান ইমামবাড়ায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম। সংগৃহীত ছবি:

ডিএমপি কমিশনার বলেন, যেকোনো ডাকাতির ঘটনাকে পুলিশ অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে দেখে। যদিও ঘটনাটি টাঙ্গাইলের, টাঙ্গাইল পুলিশের পাশাপাশি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশও ডাকাতদের গ্রেপ্তারে কাজ করছে।

এ সময় বাসে প্যানিক বাটন লাগানো নিয়ে প্রশ্ন করা হলে মহানগর পুলিশ প্রধান বলেন, বাসে ডাকাতি ও ধর্ষণের মতো ঘটনা রোধে প্যানিক বাটন বসানোর কথা থাকলেও সব বাসে এখনো তা সম্ভব হয়নি। ঢাকার কিছু কিছু বাসে প্যানিক বাটন বসানো হয়েছে। এর পেছনে যে খরচ তা বহনে বাস মালিকরা রাজি না হওয়ায় সব বাসে বসানো সম্ভব হয়নি।

তিনি আরও বলেন, ডাকাতির ক্ষেত্রে প্যানিক বাটন কাজে আসবে। কারণ ডাকাতরা যদি বাসে ওঠে তখন চালক প্যানিক বাটন চাপ দিলে খুব সহজে পুলিশের কাছে খবর চলে আসবে। তবে বাসে নারীদের শ্লীলতাহানি ও ধর্ষণের ঘটনায় অনেক সময় দেখা যায় চালক ও চালকের সহকারী জড়িত থাকেন। সেক্ষেত্রে প্যানিক বাটন কাজে আসবে না। কারণ চালক তো তখন নিজেই অপরাধী, সে তো ওই বাটন চাপবে না।

আরেক প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার জানান, যেসব এলাকায় নারী শ্রমিকরা বেশি কাজ করেন সেসব এলাকার বাসের চালক ও হেলপারের ছবিসহ জীবনবৃত্তান্ত ও বাসের নম্বর লিখে রাখতে হবে। তাহলে আপরাধীদের সহজেই শনাক্ত করা যাবে।

আরও পড়ুন<<>>বাসে ডাকাতি-গণধর্ষণের লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন নারী যাত্রী

সোনালীনিউজ/আইএ

Wordbridge School
Link copied!