• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১

নবম পে-স্কেলসহ ৬ দফা দাবিতে সরকারি কর্মচারীদের মানববন্ধন


নিজস্ব প্রতিনিধি মে ২৪, ২০২৪, ০২:২৩ পিএম
নবম পে-স্কেলসহ ৬ দফা দাবিতে সরকারি কর্মচারীদের মানববন্ধন

ঢাকা: নবম পে-কমিশন গঠন করে বেতন বৈষম্য নিরসন-সহ ৬ দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছে ১১-২০ গ্রেড সরকারি চাকুরিজীবী ফোরাম।

শুক্রবার (২৪ মে) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ১১-২০ ফেরামের সভাপতি লুৎফর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসানের নেতৃত্বে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ২০১৫ সালে ৮ম পে-স্কেল প্রদানের পর ৯ বছর পার হতে চলছে, দ্রব্যমূল্য তিনগুন বেড়েছে। ৮ম পে-স্কেলে টাইমস্কেল-সিলেকশনগ্রেড রহিতকরনসহ আকাশ-পাতাল বৈষম্য ছিল। দেশের মানুষের গড় আয় বেড়েছে অথচ নিম্ন গ্রেডের কর্মচারিদের আয় বাড়েনি মোটেই। ১১-২০ গ্রেডের সরকারি কর্মচারিরা দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধোগতি ও সেবা খাতের ব্যয় বৃদ্ধির কারণে মানবেতর জীবনযাপন করছে। 

তাই চলমান জীবন বাস্তবতার নিরিখে প্রজাতন্ত্রের ১১-২০ গ্রেডের কর্মচারীদের সমস্যা সমূহ নিরসনে বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশু হস্তক্ষেপ কামনা ও সরকারের কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানান তারা। 

১১-২০ ফোরামের ৬ দফা দাবিগুলো হলো-
১. পে-কমিশন গঠন পূর্বক বৈষম্য মুক্ত ৯ম পে স্কেল ঘোষনার মাধ্যমে বেতন বৈষম্য নিরসনসহ বেতন স্কেলের পার্থক্য সমহারে নির্ধারন ও গ্রেড সংখ্যা কমাতে হবে, পে-কমিশনে ১১-২০ গ্রেডের কর্মচারি প্রতিনিধি
রাখতে হবে। 

২. যে সকল কর্মচারি মূল বেতনের শেষ ধাপে পৌঁছে গেছে তাদের বাৎসরিক বেতন বৃদ্ধি নিয়মিত করতে হবে।

৩. টাইম স্কেল, সিলেকশন গ্রেড, বেতন জ্যেষ্ঠতা পূণর্বহাল, ব্লক পোষ্ট নিয়মিত করনসহ সকল পদে পদোন্নতি বা ৫ বছর পর পর উচ্চতর গ্রেড প্রদান করতে হবে।

৪. বাজারমূল্যের উর্দ্ধগতি ও জীবন যাত্রার ব্যয় বৃদ্ধির সাথে সমন্বয় পূর্বক সকল ভাতাদি পুনঃনির্ধারণ
ও ১১-২০ গ্রেডের চাকুরিজীবীদের রেশন ব্যবস্থা প্রবর্তন অথবা ন্যায্য মূল্যে সরকারি ভাবে পন্য সরবরাহ করতে হবে।

৫. সচিবালয়ের ন্যায় সকল সরকারি ও স্বায়ত্তসাশিত দপ্তর, অধিদপ্তরে কাজের ধরন অনুযায়ি পদনাম ও গ্রেড পরিবর্তনসহ এক ও অভিন্ন নিয়োগবিধি প্রনয়ণ করতে হবে।

৬. সকল স্বায়ত্তসাশিত প্রতিষ্ঠানে গ্রাচ্যুয়িটির পরিবর্তে পেনশন প্রবর্তনসহ সরকারি কর্মচারিদের বিদ্যমান গ্রাচুইটি/আনুতোষিকের হার ৯০% এর স্থলে ১০০% নির্ধারণ ও পেনশন গ্রাচুইটি ১ টাকার সমান ৫০০ টাকা নির্ধারণ করতে হবে।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন, ১১-২০ ফোরামের কার্যকরি সভাপতি মোঃ ফাহাদুর রহমান রাজু, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ সফিকুল ইসলাম, সহসভাপতি- আসাদুর রহমান জুয়েল, মোঃ আবুল হোসেন, মোঃ মোফাজ্জল হোসেন, সরোয়ার হোসেন সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আব্দুর রাজ্জাক, সহ-সাধারন সম্পাদক-মোঃ আনিসুর রহমার, আরিফুল ইসলাম, আবুল কালাম আজাদ (ব্রাহ্মণবাড়িয়া সভাপতি), মোঃ মঞ্জুরুল রহমান, নাসিরুজ্জামান, গোলাম রসুল নয়ন, রিয়াজ উদ্দিন, মোঃ কামাল হোসেন, রেভা পারভীন, অর্থ সম্পাদক তারিকুল ইসলাম, সহ- অর্থ সম্পাদক-মোঃ শাহআলম, আব্দুল হালিম, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, মোঃ মামসাদ, ঢাকা মহানগর আহবায়ক-মোঃ ছারোয়ার হোসেন তালুকদার, যুগ্ম আহবায়ক-মোঃ কেফায়েত হোসেন সোহাগ, মোঃ মনির হোসেন, আব্দুল্লাহ আল মামুন, সদস্য সচিব মাহবুব হক তালুকদার, ঢাকা বিভাগীয় সভাপতি মৌসুমি প্রধান, সাধারন সম্পাদক আশিকুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক রবিউল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক তারেক মাহমুদ, চট্টগ্রাম বিভাগীয় সম্পাদক আনোয়ারুল আজিম, সাংগঠনিক মোঃ তাওহিদুল ইসলাম, মহানগর আহবায়ক মাহবুব উল আরিফিন, সদস্য সচিব নজরুল ইসলাম, বরিশাল বিভাগীয় সভাপতি গোলাম কাদের তানু, সম্পাদক আজগর আলী, রাজশাহী বিভাগীয় সভাপতি আহসান মোর্সেদ, নারায়নগঞ্জ জেলা সভাপতি-হালিম ভূইয়া, সম্পাদক আব্দুর রব লাবু, সিনিয়র সহ সভাপতি মোঃ দেলোয়ার, গাজীপুর প্রতিনিধি ইমরান হোসেন, ঢাকা জেলা সম্পাদক মোহাম্মদ আলি জিন্নাহ, খাদিজা খানম, এ আর শরীফ, ঝর্না আক্তার, লুনা কর্মকার, খুলনা সভাপতি নূর মোহাম্মদ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী, টাঙ্গাইল থেকে মোঃ হাবিব, কুড়িগ্রাম থেকে মোঃ কামালসহ কেন্দ্রীয় বিভাগ মহানগর
ও জেলার অন্যান্য নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন দাপ্তরিক ও জাতীয় ভিত্তিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

আইএ

Wordbridge School
Link copied!