• ঢাকা
  • শনিবার, ২০ জুলাই, ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১
রাসিক নির্বাচন 

বিএনপিপন্থি ২২ কাউন্সিলর প্রার্থীর বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রে সুপারিশ যাচ্ছে


রাজশাহী ব্যুরো জুন ৫, ২০২৩, ১২:০৬ পিএম
বিএনপিপন্থি ২২ কাউন্সিলর প্রার্থীর বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রে সুপারিশ যাচ্ছে

ফাইল ছবি

রাজশাহী: রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচন বয়কট করেছে বিএনপি। কিন্তু দলটির পক্ষ থেকে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে তাঁরা ভোটের দিন ভোটকেন্দ্রেও যাবেন না ভোট দিতে। এমনকি দলীয় নেতাকর্মীদেরও নিষেধ করা হয়েছে কারো পক্ষে প্রচারণায় অংশ না নিতে। তা উপেক্ষা করেছে দলীয় কর্মীরা। রাসিক নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে সবমিলিয়ে ১৫৮ জন প্রার্থী অংশ নিচ্ছেন। এর মধ্যে সংগঠনের কড়া হুশিয়ারি উপেক্ষা করে অংশ নিচ্ছেন নারী-পুরুষসহ বিএনপিপন্থি অন্তত ২২ নেতাকর্মী। তাঁদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিতে মহানগর বিএনপির পক্ষ থেকে কেন্দ্রে চিঠি দেওয়া হচ্ছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। রোববার (৪ জুন) সন্ধ্যায় এ চিঠি প্রস্তুত করে কেন্দ্রে পাঠানোর সিদ্ধান্ত হচ্ছে বলে বিএনপি নেতা সূত্রে জানা গেছে।

দলীয় সূত্র মতে, রাসিক নির্বাচনে অংশ না নিতে রাজশাহী মহানগর বিএনপির পক্ষ থেকে কড়া হুশিয়ারি দেওয়া হয়েছিল। সে কারণে মেয়র পদে কেউ অংশ নেননি। তবে কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে অংশ নিতে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন অন্তত ২২ জন নেতাকর্মী। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন, ২নং ওয়ার্ডে ইয়াসিন আলী সরকার, ৩নং ওয়ার্ডে হাবিবুর রহমান, ৪নং ওয়ার্ডে ফজলে কবীর টুটুল, ৫নং ওয়ার্ডে কেএম ইফতেখার হামিদ, ৬নং ওয়ার্ডে বদিউজ্জামান, ১০নং ওয়ার্ডে আব্বাস আলী সরদার, ১১নং ওয়ার্ডে আবু বাক্কার কিনু, ১৪নং ওয়ার্ডে টুটুল, ১৫নং ওয়ার্ডে আব্দুস সোবহান লিটন, ১৬নং ওয়ার্ডে বেলাল আহম্মেদ, ১৮নং ওয়ার্ডে শহিদুল ইসলাম পচা, ১৯নং ওয়ার্ডে নুরুজ্জামান টিটো, ২২নং ওয়ার্ডে মির্জা পারভেজ রিপন, ২৫নং ওয়ার্ডে তরিকুল আলম পল্টু, ২৬নং ওয়ার্ডে আকতারুজ্জামান কোয়েল, ২৭নং ওয়ার্ডে আনোয়ারুল আমিন আজব, ২৮নং ওয়ার্ডে আশরাফুল হাসান বাচ্চু, ২৯নং ওয়ার্ডে সাইদুর রহমান।

এছাড়াও, সংরক্ষিত নারী আসনের ৩নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডে মুসলিমা বেগম বেলী, ৪নং ওয়ার্ডে- পুতুল, ৫নং ওয়ার্ডে- সামসুন নাহার, ৮নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডে শাহনাজ বেগম শিখা, ৯নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডে- আয়শা খাতুন বিএনপিপন্থি বলে নিশ্চিত হওয়া যায়। রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাবেক সহসভাপতি ও কাউন্সিলরপ্রার্থী আনোয়ারুল আমিন আযব বলেন, ‘কাউন্সিরর পদে দলীয় ভোট করার সুযোগ নাই। এলাকার জনগণের অনুরোধে আমরা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি। দল এখন ব্যবস্তা নিলে কিছু করার নাই।’

সংরক্ষিত নারী আসনের প্রার্থী ও মহানগর মহিলা দলের নেত্রী শামসুন নাহার বলেন, ‘আমরা দলীয়ভাবে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছি না। গতবারও নির্বাচিত হয়েছি। নিজের দায়বদ্ধতা থেকে ভোট করছি। দলীয় সিদ্ধান্ত যদি আসে, সেটা নিয়ে পরে কথা হবে।’

মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক এরশাদ আলী ইশা বলেন, ‘আমরা বার বার কড়া হুশিয়ারি দেওয়ার পরেও দলীয় অনেকেই কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চিঠি প্রস্তুত করা হচ্ছে। 

তিনি আরও বলেন, ২০ জনের কাছাকাছি প্রার্থী আছে আমাদের। তাদের সকলের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না।

সোনালীনিউজ/জেএ/এসআই

Wordbridge School
Link copied!