• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১

বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীকে অবমাননায় দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা


পাবনা (জেলা) প্রতিনিধি  মার্চ ২১, ২০২৩, ০৮:১৪ পিএম
বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীকে অবমাননায় দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

পাবনা: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অবমাননার অভিযোগে পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার একটি কলেজের অধ্যক্ষ ও এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের এক নেতা। মঙ্গলবার (২১ মার্চ) মামলার বিষয়টি প্রকাশ পায়। 

এর আগে গত ১৬ মার্চ পাবনা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-৫ এ মামলাটি দায়ের করেন আমিনপুর থানা আওয়ামী লীগের সদস্য এমএনএইচ জাকির।

অভিযুক্তরা হলেন-কাশিনাথপুর শহীদ নূরুল হোসেন ডিগ্রি কলেজের (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষ তরিত কুমার কুন্ডু ও বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাহবুব রহমান।

অভিযোগে বলা হয়েছে, গত ৩ ও ৪ মার্চ দুই দিনব্যাপী শহীদ নূরুল হোসেন ডিগ্রি কলেজে সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে প্রকাশিত ‘উচ্ছ্বসিত সূবর্ণ’ নামের ম্যাগাজিনের কভার পৃষ্ঠায় স্থানীয় এক জামায়াত নেতার বড় ছবিসহ তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের শুভেচ্ছা বিজ্ঞাপন ছাপানো হয়। এর পরের পৃষ্ঠায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তৃতীয় পাতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি দিয়ে শ্রদ্ধায় স্মরণ জানানো হয়। 

বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ছবির আগে বৃহত্তর কাশিনাথপুর সাংগঠনিক থানা জামায়াতের আমীর মোস্তাফিজুর রহমান ফিরোজের বড় করে ছবি ছাপায় এলাকার সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। গত ৩ ও ৪ মার্চ দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে মোড়ক উন্মোচন করা হয় ম্যাগাজিনটির।

এ বিষয়ে ম্যাগাজিনের দায়িত্বে থাকা সহকারী অধ্যাপক মাহবুব রহমানের বক্তব্য পাওয়া না গেলেও কলেজের (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষ তরিত কুমার কুন্ডু বলেন, ‘এটা আমাদের অনিচ্ছাকৃত ভুল। বিষয়টি নিয়ে আমরা দুঃখপ্রকাশ করেছি।’

মামলার বাদী এমএনএইচ জাকির বলেন, ‘মামলার দায়ের পরপরই আমি ঢাকায় গিয়েছিলাম। পরবর্তীতে বিষয়টি জানি না। শুনেছি ডিবিকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এখন আদালত যে আদেশ দেন সেটিই মেনে নেবো।’

কলেজ গভর্নিং বডির সভাপতি ও সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাসুদ হোসেন বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি কিছুই জানতাম না। আমি দেখেছি অনেক পরে। ম্যাগাজিন ছাপানোর আগে কলেজ কর্তৃপক্ষ আমার সঙ্গে ম্যাগাজিনের বিষয়ে কোনো প্রকার যোগাযোগ করেননি। আমি খুবই মর্মাহত। কোন অবস্থাতেই কলেজ কর্তৃপক্ষের কাছে এটা আশা করিনি।’

পাবনা-১ (সাঁথিয়া ও বেড়া) আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার এ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু বলেন, ‘বিষয়টি আমিও দেখেছি। এটা অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক ঘটনা। এ ঘটনার জন্য অবশ্যই কলেজ কর্তৃপক্ষকে জবাব দিতে হবে।’

সোনালীনিউজ/আইএ

Wordbridge School
Link copied!