• ঢাকা
  • রবিবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯

‘খন্দকার মোশতাক মার্কা কালো টুপির মধ্যেই ঘাপলা’


মিলি সুলতানা নভেম্বর ৩০, ২০২২, ১০:৫০ এএম
‘খন্দকার মোশতাক মার্কা কালো টুপির মধ্যেই ঘাপলা’

ঢাকা: খন্দকার মোশতাক মার্কা এই কালো টুপি দেখেই ঘাপলা শুরু হয়ে গিয়েছিল। যেন খন্দকার মোশতাকে ইন্সপায়ার্ড হয়ে এমন গেট আপ নিয়েছিলেন বদরুদ্দিন আহমেদ রাহী। সারিকা সাবরিনের স্বামী হিসেবে মিডিয়ার কল্যাণে ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছেন রাহী। তবে আজ পরিস্থিতি ভিন্ন। রাহী সাহেবের যত্ন করে বানানো সৌম্য সুন্দর পরিপাটি ভদ্র মেয়াদ উত্তীর্ণ মুখোশের অস্বাস্থ্যকর গন্ধে ভুরভুর করছে চারপাশ। 

রাহীর মত লোভী পুরুষ। সারিকা বোকামি করেছেন রাহীর মত বেকারকে বিয়ে করে। এধরণের পুরুষের লোভের পরিধি ব্যাপক। উঠতে বসতে জাগতে ঘুমাতে বউয়ের ওয়ালেট আর ক্রেডিট কার্ডের চৌকিদার হয়ে ওঠে এরা। সারিকা কি জানতেন না বেশিরভাগ বেকারের সেলফ রেসপেক্ট থাকেনা! সারিকার বর্তমান পরিস্থিতির কথা ভাবলে খারাপ লাগে। যখন কল্পনা করি, সারিকার গায়ে হাত তুলতেন রাহী-এইটুকু কল্পনা করে থমকে যাই। 

কেন সারিকা রাহীর মারধোর হজম করেছেন? যৌতুকের জন্য চাপ দেয়া- সেলফ ডিপেনডেন্ট একজন নারীর উপর এমন ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স মেনে নেয়া যায়না। রাহীর মত ঘরালু হায়েনাকে গ্রেফতার করে শাস্তির মুখোমুখি করা হোক। 

দুঃখের সাথে লক্ষ্য করলাম কিছু বিদ্যান এবং দাম্পত্য বিশেষজ্ঞ সারিকাকে দন্ড দেয়ার দায়িত্ব নিজ কাঁধে তুলে নিয়েছেন। এসব বিচারকদের মনে সারিকা সম্পর্কে কয়েকটা সস্তা ধারণা আছে। যেমন, কেন সারিকার প্রথম বিয়ে ভেঙে গেল এটা যেন তার বিরাট গোস্তাখি। সারিকার মত মেয়েদের বিয়ে করলে পুরুষের জীবন তছনছ হতে বাধ্য। এদের চোখে যৌতুকলোভী নির্যাতক বদরুদ্দীন আহমেদ রাহী খুব সভ্যভদ্র। চেহারা দেখতে নামাজি- কালামি। স্ত্রী নির্যাতনকারী অমানুষ রাহীর জন্য অনেকের দরদ উথলে উঠেছে। সারিকার বিচারকদের মানসিকতা অন্ধত্ব বরণ করে নিয়েছে। 

সারিকা নির্যাতিতা তাকে মানবিক সাপোর্ট দেয়া উচিত। সুখী হতে কে না চায়? বিয়ে করে সংসার নিয়ে সুখী হতে চাওয়া কি অপরাধ? নির্লজ্জ রাহী স্ত্রীর টাকায় কেনা শেরওয়ানী পাগড়ি নাগরাই জুতা ঘড়ি অলংকার পরে নওশার সাজে হেসেখেলে বিয়ে করেছেন। এ থেকেই প্রমাণ হয় তিনি তার আত্মসম্মান ও পৌরুষ সেরদরে বিক্রি করে দিয়েছেন। ডমোস্টিক ভায়োলেন্সের নায়ক রাহীর শাস্তি চাই।

সোনালীনিউজ/এম

Wordbridge School